সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

টাকার অভাবে বন্ধ এরশাদের নির্বাচনি প্রচরণা!

নিউজ ডেস্ক:: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাকার অভাবে নির্বাচনি প্রচারণা করতে পারছেন না জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। জাতীয় পার্টির রংপুর মহানগরের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, অর্থের অভাবে রংপুর-৩ (সদর) আসনে এরশাদের পক্ষে প্রচারণা কার্যক্রম চালানো যাচ্ছে না। দুয়েকদিন প্রচারণা শুরু করা হলেও তা থমকে গেছে। এ কারণে স্থানীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি হয়েছে।

দলীয় সূত্র মতে, রংপুর-৩ আসনের মহাজোট প্রার্থী এইচ এম এরশাদ চিকিৎসার জন্য ১০ ডিসেম্বর সিঙ্গাপুরে উড়াল দেন। নির্বাচন এলেই দিশা থাকে না এরশাদের।কখনও দলটি ভাঙনের শিকার হয়, কখনও সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারে না বলে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আনপ্রেডিক্টেবল রাজনীতিবিদ এরশাদের বিরুদ্ধে রয়েছে নানা অভিযোগ। তিনি দলটিতে সকাল-বিকাল নিজের দেওয়া সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেন– এটাই সবচেয়ে বড় অভিযোগ। সেই আলোকেই এবারের নির্বাচনে মহাজোটের মনোনয়ন চূড়ান্ত করার পর্যায়ে হঠাৎ বেঁকে বসেছিলেন এরশাদ। মহাজোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়ে তিনি সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি হন। তারপর চিকিৎসার জন্য বর্তমানে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন তিনি।

দলীয় নেতাকর্মীরা বলছেন, মনোনয়নপত্র দাখিল করতে, এমনকি মনোনয়নপত্র বাছাই এবং প্রতীক বরাদ্দসহ কোনও কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে রংপুরে আসেননি এরশাদ। এছাড়াও নির্বাচনি প্রচারণা কিংবা গণসংযোগ করতেও আসতে পারেননি তিনি। মূলত নির্বাচনি তফসিল ঘোষণার পরপরই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ায় কিছুদিন ঢাকায়র সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ছিলেন। এরপর তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে গেছেন।

একারণে দলীয় প্রধান এইচ এম এরশাদের অনুপস্থিতিতে রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসিরের নেতৃত্বে দলের নেতাকর্মীরা দুই দিন নগরীর বিভিন্ন স্থানে ভোটারদের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করে ভোট চেয়েছেন। এছাড়াও নগরজুড়ে স্বল্প পরিসরে ৩-৪টি ইজি বাইকে মাইকের মাধ্যমে প্রচারণা চালানো হয়েছে। কিন্তু তারপরও রংপুর সিটি করপোরেশনের ২৫টি ওয়ার্ড এবং ৩টি ইউনিয়নে এখনও এরশাদের পক্ষে তেমন কোনও প্রচারণা দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। এমনকি অনেক এলাকায় এখনও পোস্টার পর্যন্ত ঝুলানো হয়নি।

এদিকে রংপুর সদর আসনে মহাজোটের জাতীয় পার্টি থেকে এরশাদ ছাড়া আওয়ামী লীগের আর কোনও প্রার্থী নেই। ফলে মহানগরীর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা অলস সময় পার করছেন। এ ব্যাপারে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মণ্ডল বলেন, ‘রংপুর সদর আসনে আওয়ামী লীগের কোনও প্রার্থী নেই। এখানে এরশাদ হচ্ছেন মহাজোটের প্রার্থী। আমরাও চাই তার পক্ষে নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নিতে। কিন্তু জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে সাড়া পাওয়া যায়নি। তারপরও আমরা মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে এরশাদের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছি। অচিরেই আমরা পুরোদমে প্রচারণায় অংশ নেবো।’

এদিকে জাতীয় পার্টির মহানগরের এক শীর্ষ নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মূলত আর্থিক সংকটের কারণে আমরা নির্বাচনি প্রচারণা চালাতে পারছি না। এর আগের নির্বাচনে এরশাদ নিজেই এসব বিষয় দেখভাল করতেন কিন্তু তিনি সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন থাকায় আমরা বিপাকে পড়েছি। আর্থিক সংকটের বিষয়টি এরশাদকে টেলিফোনে জানানো হয়েছে।

রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসিরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আর্থিক সংকটের কারণে প্রচারণাসহ সার্বিক কর্মকাণ্ডে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। বিষয়টি সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন এরশাদকে জানানো হয়েছে। দলের মহাসচিব মশিয়ার রহমান রাঙ্গাকেও বলা হয়েছে। তবে তিনি (রাঙ্গা) নিজেও রংপুর-১ আসনের প্রার্থী। তাই তাকেও নিজের প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে।’ তবে দলীয় প্রধান এইচ এম এরশাদ এবং মহাসচিব রাঙ্গা দ্রুত সমস্যার সমাধান করে ফেলবেন বলেও জানান এস এম ইয়াসির।







নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: