সর্বশেষ আপডেট : ১৪ মিনিট ২৬ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইহুদিদের ‘উপহার’ বললেন জার্মান প্রেসিডেন্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: জার্মানি ও ইউরোপের বিভিন্ন এলাকার রাস্তায়, স্কুলে ও অনলাইনে সম্প্রতি ইহুদিবিদ্বেষী নানা বক্তব্য দেখতে পাওয়ায় এসব কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছেন জার্মান প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক-ভাল্টার স্টাইনমায়ার৷

ডয়েচে ভেলে জানিয়েছে স্থানীয় সময় রোববার ইহুদিদের আলোর উৎসবে যোগ দিয়ে তিনি জার্মানিতে ইহুদি বিদ্বেষের কালো অধ্যায়কে স্মরণ করেন৷ সেই সঙ্গে কোনো কোনো পর্যায়ে এই বিদ্বেষ আবারও দেখা যাচ্ছে বলে এর নিন্দা জানান তিনি৷

ব্রান্ডেনবুর্গ গেটের সামনে এই অনুষ্ঠানে স্টাইনমায়ার এ সময় ৮০ বছর আগেকার গণহত্যার কথা স্মরণ করে বলেন, নাৎসিদের ইহুদি নিধনের ইতিহাসের কারণে জার্মানদের দায়িত্ব নিতে হবে৷ এই দায়িত্ব কখনো শেষ হবে না।

জার্মানির ইহুদি সম্প্রদায়কে ধন্যবাদ দিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য একটা উপহার যে আপনারা ইতিহাসের ফাটল মেরামতে আমাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন৷’

ইহুদিদের আলোর উৎসব হানুক্কাহ শুরু হয়েছে গত রোববার। এদিন স্টাইনমায়ার ও বার্লিনে ইহুদি সম্প্রদায়ের মেয়র রাব্বি ইয়েহুদা টাইশটাল ইউরোপের সবচেয়ে বড় মেনোরাহের মোমবাতিতে আগুন জ্বালিয়ে উৎসবের উদ্বোধন করেন৷ এই মেনোরাহটি ৩৩ ফুট উঁচু৷ হানুক্কাহ চলবে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত৷

হানুক্কাহ অর্থ উৎসর্গ করা৷ আর মেনোরাহ হলো এক রকমের মন্দির, যার মোমবাতিগুলো সব সময় জ্বলে৷ বার্লিনে প্রতিবছর ৮ দিনব্যাপী হানুক্কাহ উৎসব হয়৷ এ বছর এ আলোর উৎসবটি হচ্ছে ব্রান্ডেনবুর্গ গেটে৷

এদিকে সম্প্রতি জার্মানির অতি ডানপন্থি দল অলটারনেটিভ ফর জার্মানির (এএফডি) কিছু সদস্য হলোকস্ট ও নাৎসিদের অপরাধের ব্যাপারে দেশটির সাধারণের প্রায়শ্চিত্তমূলক মানসিকতার কঠোর সমালোচনা করেছেন৷




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: