সর্বশেষ আপডেট : ১৮ মিনিট ৩৮ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে সামাজ ও রাষ্ট্রের দায়বদ্ধতা

মোঃ শাহ আবু বক্কর:: একজন সাংবাদিক বা সংবাদ কর্মীর উপর হামলা করা কোন সাধারণ বিষয় নয়। যে সমাজে বা যে দেশে সংবাদ কর্মীদের নিরাপত্তা নেই সেই সমাজে বা দেশে আইনের শাসন বলতে কিছু নেই। সাধারণ মানুষের অসহায়ত্ব,কূটকৌষলের বেড়াজালে আবদ্ধ সত্যের শেষ আওয়াজ সংবাদ কর্মীদের কলমের আচরে প্রকাশ পায়।যত সময় গড়াচ্ছে বস্তুনিষ্ট সাংবাদিকতা,সংবাদ চর্চা এবং নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে সংবাদ পরিবেশন করা দূরূহ হয়ে উঠছে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মাধ্যমে বহু অসহায় ও নির্যাতিত মানুষ অধিকার আদায়ে সৎ সাহস নিয়ে সোচ্ছার হয়। অপরাধ দমন করা শুধুমাত্র আইন এবং প্রশাসনের সক্রিয়তার মাধ্যমে সকল ক্ষেত্রে সমানভাবে সম্ভব হয়না।

এক্ষেত্রে আমাদের সামাজিক প্রেক্ষাপটে সংবাদ কর্মীদের ইতিবাচক ভূমিকা প্রশংসনীয় ও প্রয়োজনিয়। সুশাসন,আইনের শাসন, সমাজ উন্নয়ন,অপরাধ দমন,মিথ্যার গভীর খাদ থেকে সত্যের আলো প্রজ্জলন করা,সর্বোপরি যে কোন সরকারের উন্নয়নের সঠিক উপলব্ধি জনমনে প্রতিভাত করার জন্য সংবাদ কর্মীদের ভূমিকা মুখ্য।দুঃখজনক হলেও সত্য,বিগত কয়েক বছর থেকে সাংবাদিকরা যতেষ্ট পরিমাণ নিপিড়নের নির্মম শিকারে পরিনত হচ্ছেন।একটা সময় ছিল যখন অপরাধীরা পুলিশের চাইতে সাংবাদিকদের বেশি ভয় করতো।অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় আইন শৃংখলা রক্ষাকারি বাহিনি ও সাংবাদিকদের মধ্যে তথ্যের সম্মন্বয় করে বড় বড় অপরাধীদের সহজে পাকড়াও করা যেত,যদিও তা সব সময় সবাই স্বিকার করন না।একথা সচেতন মাত্র সবাই উপলব্ধি করেন,বস্তুনিষ্ট সাংবাদিকতা ছাড়া অপরাধ দমন ও আইনের শাসন নিশ্চিৎ করা সম্ভব নয়।বিশেষ করে যারা মফস্বলে সাংবাদিকতা করে তারাতো নিজের খেয়ে অন্যের উপকারে নিয়োজিত। শতশত উপজেলা পর্যায়ে সংবাদ কর্মী রয়েছে যারা নূন্যতম হাত খরছের টাকাটা পর্যন্ত পায়না।অথছ ওরা নির্দিধায় সঠিক ও বস্তুনিষ্ট সংবাদ পরিবেশনে সদা নিয়োজিত রয়েছে।

আমাদের রাজনগর উপজেলায় সাংবাদিকতা নতুন নয়।এ উপজেলা থেকে জাতীয় পর্যায়ে অনেক যোগ্যতা সম্পন্ন ও ঝানু সাংবাদিক তৈরি হয়েছেন।বর্তমানে একাধিক সাংবাদিক রয়েছেন যারা দক্ষতার সহিত সততা বজায় রেখে জাতীয় গণমাধ্যম,পিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় সুনামের সহিত কাজ করছেন। অনেক সুনাম এবং ঐতিয্যের অধীকারি রাজনগর উপজেলা।কিন্তু আফসোসের বিষয়!যে উপজেলার এত সুনাম ও মর্যাদা,কিছু দিন পূর্বে এখানকার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিছবাউদ্দোজা ভেলাই মিয়া সাহেব একটি জাতীয় এ্যওয়াডে ভূষিত হওয়ার জন্য মনোনিত হয়েছেন,যেখানে কাজী খলিকুজ্জামান আহমদ ও ড.মুমিনুল হক বিশ্বনন্দিত সেখানে একজন সাংবাদিকের উপর প্রকাশ্য দিবালোকে সন্ত্রাসী হামলা হয় কিভাবে?উপজেলার বাসিন্দা হিসেবে এ লজ্জা রাখি কোথায়!এটাতো রিতিমত উপজেলার সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ এবং ঐতিয্যের সাথে বেয়াদবি।যে সব সন্ত্রাসীরা উপজেলায় মাদক ব্যবসা, নারী ব্যবসা,দাদন ব্যবসাসহ নানান প্রকারের অপকর্মের সাথে জরিত তাদের কোন প্রকার ছাড় দেওয়া উচিত হবেনা। সাংবাদিক ফরহাদের উপর হামলা শুধুমাত্র ব্যক্তি ফরহাদের উপর হামলা নয় বরং রাজনগরের স্বাধীন গণমাধ্যম ও মুক্তবুদ্ধি চর্চার উপর চরম আঘাত। ইতিপূর্বে রাজনৈতিক নেতাদের নাম ব্যবহার করে অনেক অপকর্ম হয়েছে মর্মে প্রচলিত আছে। সবাই জানে কে বা কারা সমাজ বিরোধী বাজে কাজের সাথে জরিত।ইতিপূর্বে এসব বিষয় নিয়ে বেশ কিছু সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল। এই সব সন্ত্রাসীরা উপজেলা ব্যাপি সংঘবদ্ধ ভাবে ছিনতাই, রাহাজানি,চুরি,ডাকাতিতে জরিত থাকতে পারে, সচেতন মহল এমনটাই মনে করছেন।

পরিশেষে বলবো উপজেলার সম্মান রক্ষা করার জন্য, চুরি-ডাকাতি বন্ধ করার জন্য,মেয়েদের ইভটিজিংয়ের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য,সার্বিক আইন শৃংখলা রক্ষার জন্য, স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য,মুক্তবুদ্ধি চর্চার জন্য,জনসাধারণের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য এইসব চিন্নিত সন্ত্রাসীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিৎ করা হয় এবং সকল রাজনৈতিক নেতারা সহ জনসাধারণ এদের সামাজিকভাবে বয়কট করেন।আমরা ফরহাদ হোসেনের মত সৎ ও আদর্শিক, অসাম্প্রদায়ীক চেতনার কোন সংবাদ কর্মীর লাঞ্চনা কোন অবস্থায় মেনে নিতে পারিনা। মেনে নেয়া যায়না।সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে সমাজ ও রাষ্ট্রের দায়বদ্ধতা অনেক।যদি সংবাদ কর্মীদের উপর নির্যাতন বন্ধ করতে সমাজ ও রাষ্ট্র ব্যর্থ হয় তখন অবস্থা কোন দিকে মোর নিবে তা সহজে অনুমেয়। আইনের শাসন নিশ্চিৎ করা এবং সমাজকে অনাচার ও দূরাচার মুক্ত করার জন্য আদর্শিক সাংবাদিকতার বিকল্প নেই।তাই সমাজ ও রাষ্ট্রের স্থিতিশিলতার স্বার্থে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করতে হবে।

লেখক:সমাজকর্মী ও সাহিত্যিক।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: