সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৭ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এক সঙ্গে দুই বোনের আত্মহত্যা, রেখে গেছে চিরকুট

নিউজ ডেস্ক:: ‘আমাদের মৃত্যুর জন্য বাবা-মা এমনকি পরিবারের কেউ দায়ী নয়’ এমন চিরকুট লিখে একই রুমে আত্মহত্যা করেছে আপন দুই বোন। শনিবার বেলা আড়াইটার দিকে কক্সবাজারের রামু উপজেলার রশিদ নগর ইউনিয়নের সিকদারপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ঝুলন্ত মরদেহ ও চিরকুটটি উদ্ধার করেছে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি পুরো কক্সবাজারকে হতবাক করেছে।

আত্মহত্যাকারী দুই বোন মরজিনা আক্তার (১৭) ও তসলিমা আক্তার (১৩) রশিদনগর ইউপির সিকদারপাড়া এলাকার নজির হোসেনের মেয়ে।
স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার নুরুল আলম ও রামু থানা পুলিশের ওসি আবুল মনসুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

স্থানীয় চৌকিদার জয়নাল উদ্দীনের বরাত দিয়ে মেম্বার নুরুল আলম জানান, দিনের বেলা বাড়িতে মা-বাবা ও অন্যন্যা সদস্যদের অনুপস্থিতিতে মরজিনা ও তসলিমা একই রুমে গিয়ে ওড়না পেঁচিয়ে ঘরের ভিমের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করে। পরে তাদের ছোট ভাই ঝুলন্ত অবস্থায় বোনদের দেখতে পেয়ে চিৎকার দেয়। পরে তারা রামু থানার পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেন। খবর পেয়ে রামু থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) লাশের সুরহতাল রিপোর্ট তৈরি করে থানায় নিয়ে যায়।

চৌকিদার জয়নাল জানায়, মরজিনা আক্তারের বিয়ের কথাবার্তা চলছিল। আর তসলিমা স্থানীয় একটি হাই স্কুলের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। তবে তারা কি কারণে আত্মহত্যা করেছে কেউ বলতে পারেনি।

রামু থানা পুলিশের ওসি আবুল মনসুর জানান, তাদের লিখে যাওয়া একটি চিরকুট উদ্ধার করে পুলিশ। এ চিরকুটে তারা লিখেছেন ‘আমাদের মৃত্যুর জন্য মা-বাবা এমন কি পরিবারের কেউ দায়ী নয়।’ মনে হচ্ছে পারিবারিক কলহের জেরে তারা আত্মহত্যা করেছে। এরপরও মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনে চেষ্টা চলছে। মরদেহগুলো উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: