সর্বশেষ আপডেট : ৫৯ মিনিট ৩০ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

দক্ষিণ সুনামগঞ্জের কালনীতে ১৬ কোটি টাকা ব্যায়ে কালনী সেতুর ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন বৃহস্পতিবার

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: পাথারিয়া ইউনিয়নবাসীর স্বপ্ন ও জনগণের ভাগ্যে উন্নয়ন, স্থানীয় জনসাধারণের অর্থনীতিতে বিপ্লব ঘটাতে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আলহাজ¦ এম এ মান্নান এমপি বৃহস্পতিবার দক্ষিণ-পশ্চিম এলাকার মিলন সেতু পাথারিয়া বাজার সংলগ্ন কালনী সেতু-২ এর ভিত্তিপ্রস্থার স্থাপন করবেন।

উপজেলার দক্ষিণ-পশ্চিম জয়কলস পাথারিয়া ইউনিয়নের মধ্যদিয়ে প্রবাহিত কালনী নদী বিভক্ত করে রেখেছে। এই এই সেতু নির্মানের ফলে পশ্চিম পাড়ের মানুয়ের অন্তত ৫০ কিমি রাস্তা কমবে উপজেলা সদরে আসার ক্ষেত্রে, তেমনি ভাবে পাথারিয়া ইউনিয়নের ২০টি গ্রামের মানুষেরও যাতায়াত সহজ হবে। সেতুটি নির্মাণ করা অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের নির্বাচনী ওয়াদা ছিল।

এই সেতু যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আসবে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার জয়কলস,পাথারিয়া ইউনিয়ন,পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম সহ পাথারিয়া ইউনিয়নের খাশিপুর, নারাইনকুড়ি, কান্দিগাঁও,পুরান কান্দিগাঁও,আসামমুড়া,শ্রীনাথপুর,পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা, বসিয়াখাউরী, হাসারচর,শ্যামনগর ও বড়মোহা সহ প্রায় অর্ধ শতাধিক গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক সাধারণ জনগণের ভাগ্যের এবং স্থানীয় অর্থনীতিতে বিপ্লব ঘটবে।

পাথারিয়া বাজার খেয়াঘাটের খেয়াপাড়া পাড়ে যাত্রী সাধারণের দুর্ভোগ চিরতরে লাঘব হবে। পাথারিয়া বাজারটি ঐতিহ্যবাহী বাজার এবং গরু ক্রয় বিক্রয়ের বাজার হিসাবে পরিচিতি। এ বাজারে অত্র এলাকার জন সাধরণের নিত্য দৈনন্দিন বাজার ছিল। বাজারটিতে ইউনিয়ন ভূমি অফিস,পাথারিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয় সহ বিভিন্ন ব্যাংক সহ সরকারি অফিস বিদ্যামান রয়েছে। পাথারিয়া বাজার ব্রীজটির অভাবে অত্র এলাকার স্কুলের শিক্ষার্থী ও অভিবাবকেরা তাহাদের ছেলে মেয়েদের পাথারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে যাতায়াতে যে সঙ্কায় থাকতেন। উক্ত ব্রিজ নির্মাণে লাঘব হবে।

এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে বিগত ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বর্তমান সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান “পাথারিয়া বাজার সংলগ্ন কালনী সেতু -০২” নির্মাণের প্রতিশ্রতি দিয়ে ছিলেন। এ ব্রীজটি নির্মাণের দাবী এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের ।
সেতুটি নির্মাণের ফলে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের প্রাণকেন্দ্র শান্তিগঞ্জ বাজার থেকে মাত্র ৩০ মিনিটে জয়কলস ইউনিয়ের জামলাবাজ, হাসারচর শ্রীনাথপুর হয়ে পাথারিয়া বাজারে পৌছা যাবে। কারণ আগে যেখানে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার কাঠইর ইউনিয়ন হয়ে,দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার জয়কলস ইউনিয়েনের গাগলী,নোয়াখালী বাজার হয়ে দিরাই সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক মহা সড়ক পাড়ি দিয়ে পাথারিয়া ইউনিয়নের গণিগঞ্জ হয়ে পাথারিয়া বাজারে পাড়ি দিতে প্রায় ২ ঘন্টা সময় লাগতো।

কালনী সেতুটি নির্মাণ হলে অনায়াসে ৩০ মিনিটে উপজেলা সদর থেকে পাথারিয়া বাজারে যাতায়াত করা সম্ভব হবে। ফলে ৫০ কিলো মিটার রাস্তা পাড়ি না দিয়ে ১৫ কিলো মিটার রাস্তা পাড়ি দিলেই পাথারিয়া বাজারে পৌছা যাবে। আবার পাথারিয়া বাজার থেকে উপজেলা সদর শান্তিগঞ্জও পৌছা যাবে।
অদুর ভবিষ্যতে দিরাই উপজেলার যাত্রী সাধারণও দিরাই-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক মহা সড়কের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা ও সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মদনপুর পয়েন্ট হয়ে সিলেট অথবা সুনামগঞ্জ যাতায়াতে প্রায় ৫০ কিলো মিটার রাস্তা পাড়ি না দিয়ে পাথারিয়া বাজার কালনী সেতু-২ পাড়ি দিয়ে দক্ষিণ সুনামঞ্জ উপজেলার জয়কলস ইউনিয়নের উজানীগাঁও গ্রাম হয়ে সিলেট অথবা সুনামগঞ্জ যাতায়াত করতে পারবেন। এতে সাধারণ যাত্রী ও গাড়ী চালকদের প্রায় ৩০ কিলো মিটার রাস্তা যাতায়াত করা কমে আসবে।

কিন্তু অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের ঐক্লান্তিক প্রচেষ্টায় এই সেতুটি নির্মাণের ফলে মাত্র ৩০ মিনিটে উপজেলা সদরে যাওয়া সম্ভব হব। অন্তন্ত ৩০ কিলো মিটার রাস্তা কমবে। এ ব্রিজটি নির্মাণ কাজ শেষ হলে ঐ এলাকার প্রায় লক্ষাধিক মানুষ অতি সহজেই অল্প সময় ও অল্প টাকা ব্যয় করে পাথারিয়া বাজার-শ্রীনাথপুর-হাসারচর-জামলাবাজ-উজানীগাঁও দিয়ে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা সদর হয়ে সিলেট তথা যে কোন গন্তব্যে চলে যত পারবেন।
উপজেলার শিমুলবাক ও পাথারিয়া ইউনিয়নে কোন কলেজ নেই। যার ফলে শিক্ষার্থীরা দিরাই ও সুনামগঞ্জ শহরমূখী ছিলো। এখন থেকে সদরের কাছে শান্তিগঞ্জ ও পাগলা স্কুল এন্ড কলেজে যেতে শিক্ষার্থীরা আগ্রহী হবে। শিক্ষাক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে।
এছাড়াও পাথারিয়া বাজার এর আশপাশ ও গরু হাটে উপজেলার জয়কলস,পাথারিয়া ইউনিয়ন,পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম সহ পাথারিয়া ইউনিয়নের খাশিপুর, নারাইনকুড়ি, কান্দিগাঁও,পুরান কান্দিগাঁও,আসামমুড়া,শ্রীনাথপুর,পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা, বসিয়াখাউরী, হাসারচর,শ্যামনগর ও বড়মোহা সহ প্রায় অর্ধ শতাধিক গ্রামের সাধারণ মানুষ কালনী নদী পার হচ্ছেন ঘাটে থাকা খেয়া নৌকা দিয়ে ও হেমন্তে নদীর পানি কমে গেলে বাঁশের সাঁকো দিয়ে অনেক কষ্টে নদীটি পার হয়ে বাজারে আসতে হতো। তা চিরতরে লাঘব হবে।

উপজেলা স্থানীয় প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাথারিয়া ইউনিয়নের পাথারিয়া বাজার সংলগ্ন এলাকার কালনী নদীর উপর ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৬০মিটার দীর্ঘ ব্রীজ নির্মাণ করা জন্য প্রকল্পটির অনুমোধন করা হয়েছে।
উপজেলা পাথারিয়া বাজার কমিটির সাধারণ স¤পাদক মো.হাবিবুর রহমান বলেন, এই সেতুটি নির্মাণ করা একান্ত সময়ে দাবী ছিল। একজন স্বজ্জন রাজনীতিবিদ হিসাবে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী তার নির্বাচনী ওয়াদা পুরণে বদ্ধপরিকর ছিলেন বলেই তিনি এই অসাধ্য কাজটি স¤পন্ন করতে পারছেন। তাই আবারও এলাকার জনসাধারণ এমএ মান্নানকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করবে।

পাথারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমিনুর রশিদ আমিন বলেন, পাথারিয়া বাজারে কালনী সেতু-২ নির্মাণের ফলে দিরাই ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জের সাধারণ জনসাধারণের ভাগ্যের পরিবর্তনে আমাদের দারপ্রান্তে এসেগেছে। পাথারিয়া ইউনিয়ন বাসী কালনী সেতু ২ নির্মাণের ফলে দীর্ঘদিনের খেয়াপাড়াপাড়ে দূর্ভোগ লাঘব হবে।

সুনামগঞ্জ জেলা এলজিইউডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ইকবাল আহমদ এ প্রতিবেদককে বলেন, অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপির বিশেষ বরাদ্দ থেকে কালনী সেতু-২ নির্মাণের জন্য পরিকল্পনা প্রনয়ন করে তা বাস্তবায়নের জন্য মন্ত্রনালয়ে প্রেরণ করা হয়। গত একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন পেয়েছে, এখন দরপত্র আহ্বান করে কাজ শুরু করা যাবে। আগামী কিছুদিরে মধ্যেই এই প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। তিনি বলেন, প্রতিমন্ত্রীর প্রচেষ্ঠায় আগামী কিছুদিনের মধ্যে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পাগলা বাজারের উত্তর প্রান্তে মহাসিং নদীতে আরো একটি ব্রীজ নির্মাণের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে উপজেলার নোয়াখালী-জামলাবাজ এলাকার কালনী নদীর (কালনী-১ সেতুর) উপর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সিআইবিআরআর প্রকল্পের আওতায় ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে ১৩ কোটি ৯৪ লক্ষ ৮৮ হাজার ২৮৩ টাকা ব্যয়ে ১৬০মি. লম্বা ব্রীজ নিমার্ণ হয় অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপির প্রচেষ্ঠায়। এই প্রকল্পটির প্রায় ৪০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। এই প্রকল্প শেষ হতে না হতেই পাথারিয়া এলাকার জনগণের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন এই প্রতিমন্ত্রীর হাতধরে হওয়ায় এলাকাবাসীর স্বপ্ন পূরণ হল।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: