সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছাতকে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

ছাতক সংবাদদাতা:: ছাতকের শাখাইতি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফখরুল ইসলামের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্নীতিসহ নানা অভিযোগ তুলেছেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য ও সহকারী শিক্ষকবৃন্দ। প্রধান শিক্ষকের অনিয়ম-দূর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতায় বর্তমানে বিদ্যালয়ের শিক্ষার গুনগত মান হ্রাস পাচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। এরআগে বিভিন্ন সময়ে এ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সংশি¬ষ্ট দপ্তরে একাধিক অভিযোগ দেয়া হয়েছে। কিন্তু কোন প্রতিকার না হওয়ায় গত শনিবার প্রতিবাদের অংশ হিসেবে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা ক্লাস বর্জন করেছেন বলে জানা গেছে। গত ৯ অক্টোবর প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হুশিয়ার আলী মেম্বার।

অভিযোগ থেকে জানা যায়, ফখরুল ইসলাম প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদানের পর থেকেই বিদ্যালয়ের শিক্ষার গুনগত মানসহ সার্বিক বিষয়ে অবনতি ঘটতে থাকে। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের সাথে প্রধান শিক্ষকের অসৌজন্যমুলক আচরনের কারনে বিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পরিবেশ ক্রমান্বয়ে বিনষ্ট হচ্ছে। বিভিন্ন অজুহাতে প্রধান শিক্ষক সপ্তাহের সিংহভাগ সময় বিদ্যালয়ে উপস্থিতি দেখিয়েই বিদ্যালয় ত্যাগ করেন। নিয়মিত ক্লাস না হওয়ার কারনে ৫ম শ্রেনীর ৭২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে অধিকাংশই এখন অনিয়মিত হয়ে পড়েছে। ফলে আসন্ন পিএসসি পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের ফলাফল নিয়ে শংকিত হয়ে পড়েছেন অভিভাবকরা।
এদিকে, অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত বৃহস্পতিবার বিদ্যালয় পরিদর্শন করেছেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মানিক চন্দ্র দাস। স্থানীয়রা জানান, শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা ঘটনার সত্যতা তুলে ধরায় সহকারী শিক্ষকদের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে প্রধান শিক্ষক তাদের অযোগ্য শিক্ষক বলে তিরস্কার করেন। এ নিয়ে গত শনিবার প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকরা একে অপরের প্রতি মারমুখি অবস্থানে গেলে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হুশিয়ার আলীসহ সদস্যবৃন্দের হস্তক্ষেপে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। বিষয়টি শিক্ষা কর্মকর্তাকে অবগত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানান সভাপতি হুশিয়ার আলী। বর্তমানে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে বিরাজ করছে টান-টান উত্তেজনা। যেকোন মুহুর্তে অনাকাংখিত ঘটনা ঘটার আশংকা করছেন অভিভাবকরা।

এব্যাপারে প্রধান শিক্ষক ফখরুল ইসলাম বক্তব্য দিতে অনিহা প্রকাশ করেছেন। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মানিক চন্দ্র দাস জানান, বিষয়টি তিনি অবগত রয়েছেন। দ্রুতই তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভাপতি, উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল জানান, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে প্রধান শিক্ষকের সৌজন্যমুলক আচরনের পরিবর্তে অসৌজন্যমুলক আচরন এটি কাম্য নয়।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: