সর্বশেষ আপডেট : ১৩ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিভাগীয় কমিশনার ও ইউএনও বারাবরে ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমিতির অভিযোগ

ছাতক প্রতিনিধি:: বিভাগীয় কমিশনারের নির্দেশনা অমান্য করে ছাতকের পাথর ব্যবসায়ীদের জড়িয়ে বিভিন্ন মিথ্যা অপপ্রচারে লিপ্ত থাকায় কোম্পানীগঞ্জ পাথর ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার ও ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। সোমবার ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক আবুল হাসান সমিতি ও পাথর ব্যবসায়ীদের পক্ষে এ অভিযোগ দেন।

জানা যায়, ছাতক ও কোম্পানীগঞ্জের পাথর ব্যবসায়ীদের মধ্যে বিরাজমান ব্যবসায়ী মতবিরোধ নিরসনে গত ১৫ অক্টোবর সিলেট বিভিাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে ছাতক ও কোম্পানীগঞ্জের বিভিন্ন ব্যবসায়ী সমিতি ও পাথর ব্যবসায়ীদের নিয়ে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিভাগীয় কমিশনারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সিলেট ও সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক, ছাতক ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ছাতকের সহকারী কমিশিনার(ভুমি)সহ সরকারী কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। সভায় উভয় উপজেলার পাথর ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন। এ সময় ব্যবাসায়ী সার্থে ২০১০ সালে সিলেট সার্কিট হাউজে সরকারী উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও উভয় উপজেলার ব্যবসায়ীদের সম্মতিতে করা চুক্তির বিভিন্ন ইতিবাচক দিক তোলে ধরেন ছাতকের ব্যবাসায়ীরা। সভায় ২০১০ সালে করা চুক্তির ভিত্তিতে আপাদত ব্যবসা করার পরামর্শ দেন বিভাগীয় কমিশনার। অর্থাৎ ৩ হাজার ফুট ও তার অধিক ক্ষমতা সম্পন্ন বাল্কহেড, বড় নৌকা ছাতকের তিন নদীর মোহানা গোয়ালগাঁও পয়েন্ট অতিক্রম না করে লোডিং-আনলোডিং করার কথা বলা হয়। পাশাপাশি সিলেট ও সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসককে সংশ্লিষ্ট এলাকা সরজমিনে পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দাখিল করার কথাও বলা হয় ওই বৈঠকে। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে স্থায়ী সিদ্ধান্ত গ্রহনের পূর্ব পর্যন্ত ২০১০ সালে করা ব্যবসায়ী চুক্তিমত ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য উভয় উপজেলার পাথর ব্যবসায়ীদের নির্দেশনা দেয়া হয়। কিন্তু ১৫ অক্টোবর সিলেট বিভিাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্ত ছাতকের ব্যবসায়ীরা মেনে চললেও নির্দেশনা অমান্য করে কোম্পানীগঞ্জের ব্যবসায়ীরা ছাতকের ব্যবসায়ীদের জড়িয়ে মিথ্যাচার ও অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন বলে ছাতকের ব্যবসায়ীরা অভিযোগ তুলেছেন। পাশাপাশি কোম্পানীগঞ্জে অবস্থানরত ছাতকের ব্যবসায়ীদের ক্রাসার মিলগুলো বন্ধ করে দেয় তারা। ভারত থেকে আমদানীকৃত চুনাপাথর ক্রয়-বিক্রয়ও তারা বন্ধ করে দিয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। ফলে এখানের ব্যবসায়ীরা ব্যবসা ক্ষেত্রে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। একই সাথে কোম্পানীগঞ্জে অবস্থানরত ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তাসহ ব্যবসায়ীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন ভোগছেন বলে অভিযোগে বলা হয়েছে। এ ব্যবাপারে ছাতকের পাথর ব্যবাসায়ী ও ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষে সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন ও সাধারন সম্পাদক আবুল হাসান জানান, কোম্পানীগঞ্জের ব্যবসায়ীরা বিভাগীয় কমিশনারের নির্দেশনা অমান্য করে ব্যবসায়ী পরিবেশ বিনষ্ট করে যাচ্ছেন। তারা ছাতকের ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে নৌকা আটকসহ বিভিন্ন মিথ্যা-অপপ্রচার চালিয়ে উত্তেজনা ছড়াচ্ছেন। এখানের ব্যবসায়ীরা কোম্পানীগঞ্জের কোন নৌকা আটক করেনি। উপর্যুপরি কোম্পানীগঞ্জে অবস্থানরত ছাতকের ক্রাসার মিলগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ব্যবসায়ীদের স্বাভাবিক ব্যবসায় বাধা প্রদান করছেন তারা। এসব বিষয় দ্রুত নিস্পত্তি না হলে পাথর ব্যবসায় মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: