সর্বশেষ আপডেট : ১৫ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

চিকিৎসার জন্য নোবেল বিক্রি করেছেন মার্কিন পদার্থবিজ্ঞানী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: মার্কিন পদার্থবিজ্ঞানী লিয়ন লেডারম্যান। তিনিই সর্বপ্রথম ঈশ্বরকণা সম্পর্কে জানান বিশ্বকে। ১৯৯৩ সালে নিজের বইয়ে হিগস-বোসন কণার বর্ণনা দিয়ে তিনি লিখেছিলেন- ‘গডস পার্টিকল’।

১৯৮৮ সালে পদার্থবিদ্যায় নোবেল পুরস্কার পান তিনি।তবে সারাজীবন রাখতে পারেননি সেই নোবেল পুরস্কার। ২০১৫ সালে নিজের চিকিৎসার জন্য সেই নোবেল পদক নিলামে তুলতে হয়েছিল এ মার্কিন পদার্থবিজ্ঞানীকে।

অবশেষে ৩ অক্টোবর ৯৬ বছর বয়সে রেক্সবার্গের আইডাহো শহরের একটি হাসপাতালে মারা যান সেই নোবেল বিজয়ী বিজ্ঞানী লিয়ন লেডারম্যান। পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেন তিনি, কিন্তু রেখে গেলেন হিগস-বোসন নিয়ে তার ব্যাখ্যা করা মহামূল্যবান তত্ত্ব।শেষ বয়সে দীর্ঘদিন ধরে ডিমেনশিয়ায় ভুগছিলেন প্রবীণ এ বিজ্ঞানী।

১৯২২ সালে নিউইয়র্ক শহরে জন্ম লেডারম্যানের।তার বাবার একটি ধোপাখানা ছিল।নিম্ন-মধ্যবিত্ত পরিবারে বড় হওয়া এ বিজ্ঞানী নিউইয়র্কের সিটি কলেজে রসায়ন নিয়ে পড়াশোনা করেন।স্নাতক পাসের পরেই সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়ে অংশ নেন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে।

যুদ্ধ থেকে ফিরে এসে পুনরায় পড়াশোনা শুরু করেন।১৯৫১ সালে কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে সাব-অ্যাটমিক পার্টিকল নিয়ে শুরু করেন গবেষণা।১৯৭৮-৮৯ সাল পর্যন্ত ফার্মিল্যাবের ডিরেক্টর ছিলেন তিনি।

১৯৮৮ সালে ‘মিউয়ন নিউট্রিনো’ নামে একটি সাব-অ্যাটোমিক পার্টিকল আবিষ্কার করার জন্যই পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পেয়েছিলেন লেডারম্যান।পরবর্তী সময়ে ডিমেনশিয়া ধরা পড়ার পর নিলামে তোলেন তার নোবেলের সেই সোনার পদক।৭ লাখ ৬৫ হাজার ডলারে সেটি বিক্রি করেন।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: