সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে শাহবাগ অবরোধ

নিউজ ডেস্ক:: প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিদের জন্য ৩০ শতাংশ কোটা রাখার দাবিতে রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করেছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড।

বুধবার রাত ৮টার দিকে তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শাহবাগ গিয়ে অবরোধ করেন। এতে ওই এলাকায় যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রাত ১টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তারা সেখানে অবস্থান করছিলেন।

অবস্থান কর্মসূচি থেকে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক মুক্তিযুদ্ধ ও গবেষণাবিষয়ক উপ-সম্পাদক মো. আল মামুন বলেন, সরকারি চাকরির সব ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহাল না হওয়া পর্যন্ত আমরা শাহবাগ মোড়ে অবস্থান করব।

তিনি বলেন, ‘তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকবে, কিন্তু প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীতে থাকবে না- এটা হতে পারে না।’ দাবি আদায়ে আগামী শনিবার বিকাল ৩টায় শাহবাগ মোড়ে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড মহাসমাবেশ করবে বলে জানান আন্দোলনকারীরা।

অবরোধের বিষয়ে রাত পৌনে ১১টার দিকে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান যুগান্তরকে বলেন, আমরা তাদের রাস্তা ছেড়ে দিতে বলেছি, যাতে যানচলাচলে কোনো ধরনের ব্যাঘাত সৃষ্টি না হয়। আশা করি, তারা রাস্তা ছেড়ে দিয়ে যানচলাচল স্বাভাবিক করবে।

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীগুলোর কোটা সংরক্ষণের দাবি : এদিকে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীগুলোর জন্য পাঁচ শতাংশ কোটা সংরক্ষণ না করা হলে ছাত্র ধর্মঘটের হুশিয়ারি দিয়েছে আদিবাসী কোটা সংরক্ষণ পরিষদ।বুধবার বেলা ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ ‘সচিবালয় ঘেরাও’ কর্মসূচিপূর্ব এক সমাবেশ থেকে সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক অলিক মৃ এ ঘোষণা দেন।সমাবেশ শেষে তারা মিছিল নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি হয়ে সচিবালয় ঘেরাওয়ের জন্য রওনা হলে দোয়েল চত্বরে পুলিশ বাধা দেয়।

পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে কর্মসূচি শেষ করেন তারা। অলিক মৃ বলেন,আদিবাসীরা পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী। তাদের জন্য কোটার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।কোটা আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা বলা হলেও সেই আন্দোলন ছিল কোটা সংস্কারের জন্য, বাতিলের জন্য নয়।

তিনি বলেন, আদিবাসীদের জন্য কোটা না রাখা হল- স্বপ্ন দেখিয়ে স্বপ্ন কেড়ে নেয়ার মতো। আদিবাসীদের জন্য ৫ শতাংশ কোটা রাখা না হলে সব আদিবাসী এলাকায় ছাত্র ধর্মঘট এবং পরে অর্ধদিবস হরতাল পালন করা হবে।







নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: