সর্বশেষ আপডেট : ২১ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আবারো বিতর্কে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’

বিনোদন ডেস্ক:: ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’, যেন বিতর্কের আরেক নাম। সুন্দরী অন্বেষণের এই প্রতিযোগিতা বরাবরই সমালোচনার কবলে পড়ে আসছে। গত বছরের রেশ ধরে রেখে এবারও বিতর্ক তৈরিতে ভুল করেননি সুন্দরীরা। গ্র্যান্ড ফিনালেতে অংশ নেয়া দশ প্রতিযোগী এমনকি বিচারকদের নিয়েও চলছে তুমুল সমালোচনা। বলাই বাহুল্য, বর্তমানে টক অব দ্য টাউন হয়ে গেছে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৮’।

অনেকটা গোপনেই শুরু হয় এবারের মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা। যার আয়োজনে ছিলো অন্তর শোবিজ। কোনো ঘোষণা ছাড়াই গত ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে অডিশন রাউন্ড শুরু হয়ে যায়। এমন অবস্থায় আসলে কারা প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছেন, সেখানে স্বচ্ছতা আদৌ ছিলো কিনা, এই নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন অনেকে।

অডিশন রাউন্ডে বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন গায়ক শুভ্রদেব, অভিনেত্রী তারিন, মডেল ও অভিনেতা খালেদ সুজন, মডেল ইমি ও ব্যরিস্টার ফারাবী। তারাই প্রাথমিক বাছাই ও বিভিন্ন রাউন্ডে বিচারকার্য সম্পাদন করেছেন। আর বেছে নিয়েছেন সেরা দশ সুন্দরীকে।

তারা হলেন, নিশাত নাওয়ার সালওয়া, মনজিরা বাশার, ইশরাত জাহান সাবরিন, স্মিতা টুম্পা বাড়ৈ, আফরিন সুলতানা লাবণী, সুমনা নাথ অনন্যা, নাজিবা বুশরা, জান্নাতুল মাওয়া, শিরীন শিলা এবং জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।

এই দশ সুন্দরীকে নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় গ্র্যান্ড ফিনালে। রোববার (৩০ সেপ্টেম্বর) বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটির রাজদর্শন হলে অনুষ্ঠিত হয় জমকালো ফিনালে। সেখানে নিয়মিত বিচারকদের পাশাপাশি বিশেষ বিচারক হিসেবে যোগ দেন মাইলস ব্যান্ডের শাফিন আহমেদ, হামিন আহমেদ এবং নৃত্যশিল্পী আনিসুল ইসলাম হিরু।

এই গ্র্যান্ড ফিনালেতেই ঘটলো বিপত্তি। শুরুটা যেমন-তেমন, তীরে এসেও যেন তরীটা ডুবলো। ফাইনাল পর্বে বিচারকদের উদ্ভট প্রশ্ন আর প্রতিযোগীদের এলোমেলো উত্তর, পুরো আয়োজনটাকেই যেন মাটি করে দিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত সমালোচনার ঝড় বইছে এই অনুষ্ঠান নিয়ে।

কোনো বিচারক প্রশ্ন করেছেন, এইচটুও মানে কী? তার উত্তরে প্রতিযোগী উত্তর দিয়েছেন ধানমন্ডির রেস্টুরেন্ট! আবার এক প্রতিযোগীকে তার তিনটি উইশের (ইচ্ছা) কথা জিজ্ঞেস করা হলে তিনি তো পুরো ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে বসেন। তার দেয়া উত্তরে বিচারক যেমন অপ্রস্তুত হয়ে পড়েন, তেমনি মুহূর্তের মধ্যে তার এই অজ্ঞতা নিয়ে হাসাহাসির বন্যা বয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

বিতর্কের জন্য তো আর আয়োজন থেমে যাবে না। যথারীতি ঘোষণা হলো ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৮’র বিজয়ীর নাম। তিনি জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। পিরোজপুরের এই তরুণীকে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য বিচারকরা যোগ্যতর মনে করেছেন। তাই তার মাথায় উঠেছে বিজয়ীর মুকুট।

এবারের মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশে প্রথম রানার-আপ হয়েছেন নিশাত নাওয়ার সালওয়া, দ্বিতীয় রানার-আপ হয়েছেন নাজিবা বুশরা। এছাড়া স্মিতা টুম্পা পেয়েছেন মিস ট্রেন্ডি অ্যাওয়ার্ড। বেশ বিহেভিয়ার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন আফরিন লাবণী, মিস ইন্টিলিজেন্ট অ্যাওয়ার্ড নিশাত নাওয়ার সালওয়া, বেস্ট ফ্যাশন রানওয়ে মন্দিরা, মিস স্মাইলি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন অনন্যা, মিস ফটোজেনিক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন জান্নাতুল মাওয়া, মিস ট্যালেন্টেড অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন নাজিবা বুশরা, মিস পারসোনালিটি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন শিরীন শিলা, মিস স্পোর্টি ইশরাত জাহান সাবরিন, বেস্ট এপিয়ারেন্স অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।

আগামী ৭ ডিসেম্বর চীনে যাবেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। কারণ সেখানেই বসবে এবারের ‘মিস ওয়ার্ল্ড’। চীনে যাওয়ার আগে এই তিন মাসে নয়নিকা চ্যাটার্জি গ্রুমিং করে মূল প্রতিযোগিতার জন্য তৈরি করবেন।

গত বছরও তুমুল বিতর্কের মুখে পড়েছিলো ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতা। বিবাহিত জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলকে বিজয়ী ঘোষণা করা এবং পরবর্তীতে তার মুকুট বাতিল করে জেসিয়া ইসলামকে বিজয়ী করার ইস্যু নিয়ে হাসি-তামাশা হয়েছে গোটা দেশজুড়ে। সেসময় আয়োজক অন্তর শোবিজ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিলেন, পরেরবার তারা খুব গোছানো আয়োজন করবেন। যাতে কোনো বিতর্কের সুযোগ না থাকে। কিন্তু দেয়া কথা হারিয়েই গেছে। রয়ে গেছে কেবল বিতর্কটাই!




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: