সর্বশেষ আপডেট : ১৩ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নৈসর্গিক সৌন্দর্যের নিদর্শন মৌলভীবাজার ( পর্ব-৩)

মুবিন খান, মৌলভীবাজার:: ঋতু বৈচিত্রে এখন শরৎ। চারদিকে কাঁশফুলের ছড়াছড়ি। প্রকৃতির এক অপরূপ দৃশ্য যেন মন কাড়ে ভ্রমণ প্রিয়সীদের। এ সময়টাতে ভ্রমণে বের হলে প্রকৃতির এক অপরূপ দৃশ্য অবলোকন করা যায়। আর সে ভ্রমণের স্থানটি যদি হয় চায়ের রাজ্যে তা হলে তো কথাই নেই। প্রকৃতি প্রেমী এমন পর্যটকদের জন্য প্রস্তুত চা ও হাওরের রাজ্য কুলাউড়া। পাহাড় আর হাওরের এমন সমন্বয় বাংলাদেশের আর কোথাও নেই। আর হাওর বলতে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকি।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে পর্যটনের অপার সম্ভাবনা যে দিকেই চোখ যায় কেবলই সবুজের সমারোহ। উচু-নিচু টিলা, মাথার ওপর নীল আকাশ। চারদিক ভালোমতো নজর বুলালে চোখে পড়ে মনকাড়া বনানী আর রঙবেরঙের সব পাখি। চা বাগান, হাওর, ঘন-জঙ্গল, খনিজ গ্যাসকূপ আর আনারস, লেবু ও রাবার বাগান দিয়ে সাজানো অদ্ভুত এক সুন্দর মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলা। প্রকৃতি যেন সুনিপুণ তুলি দিয়ে এঁকেছে এ উপজেলার মানচিত্র। চায়ের রাজধানী মৌলভীবাজারের সাতটি উপজেলার ধারাবাহিক প্রতিবেদনে তৃতীয় পর্বে সকল তথ্য নিয়ে কুলাউড়া উপজেলার পর্যটন কেন্দ্র গুলোর উপর।
মৌলভীবাজার জেলা সদর থেকে ৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত কুলাউড়া উপজেলা।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, মোঘল সুবাদার এর কাছ থেকে দেওয়ানী পাওয়ার পর মনসুর গ্রামের প্রখ্যাত দেওয়ান মামন্দ মনসুরের পিতামহ মামন্দ মনোহরের ভ্রাতা মামন্দ কুলাঅর কুমার থাকাবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন। তাঁর মৃত্যুর পর মামন্দ মনোহর ভ্রাতার স্মৃতি রক্ষার্থে নিজ জমিদারির পূর্বাংশে একটি বাজার প্রতিষ্ঠা করে নাম রাখেন কুলঅরার বাজার। কালক্রমে কুলঅরার বাজার থেকে কুলাউড়া নামকরণ করা হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তর হাওর হাকালুকির বেশিরভাগ অংশ কুলাউড়ার অধীনে। এটি এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম মিঠাপানির জলাভূমি। এর আয়তন ১৮,১১৫ হেক্টর, এরমধ্যে শুধুমাত্র বিলের আয়তন ৪,৪০০ হেক্টর। মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা, কুলাউড়া, জুড়ী এবং সিলেট জেলার ফেঞ্চুগঞ্জ, গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার জুড়ে বিস্তৃত এ হাওর। ভূতাত্ত্বিকভাবে এর অবস্থান, উত্তরে ভারতের মেঘালয় পাহাড় এবং পূর্বে ত্রিপুরা পাহাড়ের পাদদেশে। ভূতাত্ত্বিক বৈশিষ্ট্যের কারণে উজানে প্রচুর পাহাড় থাকায় হাকালুকি হাওরে প্রায় প্রতি বছরই আকষ্মিক বন্যা হয়। এই হাওরে ৮০-৯০টি ছোট, বড় ও মাঝারি বিল রয়েছে। শীতকালে এসব বিলকে ঘিরে পাখিদের বিচরণে মুখর হয়ে উঠে গোটা এলাকা। অতিথি পাখি দেখতে নভেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি মাস হচ্ছে হাকালুকি হাওর ভ্রমণের আদর্শ সময়। এ সময় হাওরের চারপাশ অতিথি পাখির কোলাহলে মুখর হয়ে থাকে। হাওরে বিলের পানিতে ফোটা হাজারো পানা, শাপলা, পদ্ম আর নীলপদ্ম শোভিত মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক শোভা দেখে পর্যটক ও প্রকৃতি পিপাসুরা বিমোহিত হন। অপরূপ সৌন্দর্যমন্ডিত হাকালুকি হাওর এখন আকর্ষণীয় পর্যটন স্পটে পরিণত হয়েছে।
হাওরের মনোরম পরিবেশ থেকে ফিরে এসে যেতে পারেন পৃথিমপাশা নবাববাড়ি। ইতিহাস ঐতিহ্যের এই নবাববাড়ি দেখলে মনে হবে দুইশত বছর আগের কোন এক সুখের রাজ্যে গিয়েছি। কুলাউড়া উপজেলা থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে পৃথিমপাশা ইউনিয়নে এটির অবস্থান। প্রাচীন অনেক নিদর্শন এই বাড়িতে রয়েছে যা পর্যটকদের বিমোহিত করবে।

সব কিছু শেষে বিকেলের মুক্ত বাতাসের উদ্দেশ্যে যেতে পারেন উপজেলার চাঁ বাগান গুলোতে। গাজিপুর চা বাগান, লুয়াইনি হলিছড়া চা বাগানসহ মোট ৩৩ টি চা বাগান রয়েছে। উপজেলা সদর থেকে যেকোনো গাড়িতে করে এসে চা বাগানের অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন। মৌলভীবাজার থেকে কুলাউড়া সড়কে যত সামনে অগ্রসর হবেন ততই শুধু চা বাগানের সমারোহ। মন চাইবে মিশে যেতে চায়ের সারিসারি মিছিলে। চা বাগানের এই দৃশ্য উপভোগ করার পর চোখে পড়বে রাবার বাগানের বিস্তৃর্ণ এলাকা। উপজেলায় মোট ৪ টি রাবার বাগান রয়েছে। সারিবদ্ধ রাবার বাগান গুলো দেখলে ইচ্ছে করবে সেখানে বসে থাকতে।
তাছাড়া কর্মধা ইউনিয়নে মুরাইছড়া ইকোপার্ক, হযরত শাহ কামালের মাজার, চাতলগাঁও বধ্যভূমি, গগনটিলা, কাদিপুর শিববাড়ি সহ অনেক দর্শনীয় স্থান কুলাউড়া উপজেলায় রয়েছে।
কুলাউড়া উপজেলার সচেতন নাগরিকরা বলেন, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন না থাকায় কুলাউড়ায় পর্যটকরা আসতে পারছেন না। যদি কুলাউড়ার দর্শনীয় স্থান সমূহকে সরকার পর্যটন স্থান ঘোষনা করে তাহলে এই এলাকায় অর্থনৈতিক উন্নয়নের বিকাশ ঘটানো সম্ভব।

আগামী পর্বে থাকছে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার পর্যটন নিয়ে প্রতিবেদন।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: