সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ডিজিটাল ব্যবস্থায় ডুববে আ.লীগ : বোয়াফের আলোচনায় বক্তারা

নিউজ ডেস্ক:: ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এ ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করেই স্বাধীনতা বিরোধীরা সরকারের বিপক্ষে একের পর এক অপপ্রচার চালাচ্ছে। আগামীতে সংসদ নির্বাচনে অনলাইনে অপপ্রয়োগকারীদের যদি প্রতিহত করতে না পারেন তাহলে এ ডিজিটাল ব্যবস্থায় আওয়ামী লীগকে ডুবাবে।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন’র পথ ও পদ্ধতি’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন লেখন সাংবাদিক ও কলামিস্টরা। আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)।

আলোচনায় অংশগ্রহণে সদয় সম্মতি প্রদান করেন- জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, সিনিয়র সাংবাদিক জাফর ওয়াজেদ, নারী নেত্রী মমতাজ লতিফ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস প্রমুখ। সভায় সভাপতিত্ব করেন বোয়াফের সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময়।

প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান বলেন, ১৯৭১ সালে জামায়াত বিভিন্ন নামে স্বাধানীতার বিরোধী করেছে। এখনো তারা নামে বেনামে সক্রিয়। স্বাধীনতা বিরোধীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ১৯৭৫ সালে বিষবৃক্ষ রোপন করেছিল। স্বৈরাচার এরশাদ, খালেদা জিয়া ও তারেক এটি পরিচর্চা করেছেন। তারা এখন সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছেন। বুদ্ধিজীবী সেজে বিভিন্ন পত্রিকায় ও টিভিতে টকশো করছেন। তারা সব সময় অপপ্রচারে অ্যাক্টিভ। আগামী নির্বাচনেও তারা এটি কাজে লাগাতে চেষ্টা করবে। তাই তাদের মোকাবেলা করতে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে অনলাইনে অ্যাক্টিভ হতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

সিনিয়র সাংবাদিক জাফর ওয়াজেদ বলেন, স্বাধানীতা বিরোধীরা সব সময় সাংবাদিক, শিক্ষক বুদ্ধিজীবীদের কাতারে বসে সুযোগ-সুবিধা নিয়ে অপপ্রচার চালিয়েছে। এরা এখনো সক্রিয়। বর্তমানে গণমাধ্যমে বিভিন্ন সংবাদ দেখলেই তা বোঝা যায়। এদের বিরুদ্ধে সচেতন হতে হবে। আগামী সংসদ নির্বাচনে এ মুখোশধারী সমাজ আবারও অপপ্রচার চালাবে তাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে।

আলোচনায় বক্তারা বলেন, আগামী নির্বাচনে যদি স্বাধীনতা বিরোধীরা যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে দেশে সহিংস অবস্থা সৃষ্টি হবে। এতে এক লাখ লোক নিহত হবে। বাদ যাবে না লেখক, সাংবাদিক, শিক্ষক ও বুদ্ধিজীবীরাও। স্বাধীনতা বিরোধীরা সব সময় সামাজিক ও গণমাধ্যমে সোচ্চার। তারা মিথ্যা পোস্ট দিয়ে মানুষকে বিপদগামী করছে। এসব অপপ্রচারকারীদের চিহ্নিত করতে হবে। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে তিনশ আসনে অনলাইন প্রতিরোধ কমিটি গঠন করতে হবে। স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এতে ব্যর্থ হলে দেশে ভয়াবহ অবস্থা সৃষ্টি হবে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: