সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সাংবাদিকতা পেশার বিকাশ সাধনে সিলেট প্রেসক্লাবের ভূমিকা অনন্য – হাসান শাহরিয়ার

 ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: কমনওয়েলথ জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের আন্তর্জাতিক সভাপতি প্রখ্যাত সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার বলেছেন, সিলেটের সাংবাদিকতার ইতিহাস যেমন সমৃদ্ধ, তেমনি এই পেশার বিকাশ সাধনে সিলেট প্রেসক্লাবের ভূমিকাও অনন্য। সিলেট প্রেসক্লাবের প্রয়াত সাংবাদিকগণ স্মৃতিতে ভাস্বর; তাঁরা ছিলেন আলোকবর্তিকা। তিনি বলেন, তাঁদের কীর্তি ছিল কর্মের চেয়েও মহান। তাঁদের চিন্তাচেতনা ও অনুসৃত পথই সিলেট প্রেসক্লাবের প্রেরণার উৎস। আজ তাঁদের কথা স্মরণ করে, তাঁদের অঙ্গীকার, পেশার মান উন্নয়নে আপোসহীন সংগ্রাম, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতা, সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতার স্বীকৃতি দিয়ে এবং তাঁদের প্রতি বিন¤্র শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে সিলেট প্রেসক্লাব ঋণের ভার কিছুটা হলেও লাঘব করেছে। বুধবার সিলেট প্রেসক্লাবের প্রয়াত সদস্যদের জীবন ও কর্ম নিয়ে প্রণীত গ্রন্থ অনুভবে-অনুরাগে’র প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দেশের প্রখ্যাত এ সাংবাদিক বর্তমান সময়ে সংবাদপত্রের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে বলেন, রাজনীতিবিদ, শিক্ষক, ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, ব্যবসায়ী, আইনজীবী কিংবা গৃহবধু সম্পাদক হয়ে সাংবাদিকদের উপর ছড়ি ঘুরাচ্ছেন। অর্থের বলে সম্পাদক হয়ে যাচ্ছেন পত্রিকার মালিকেরা। লিখতে বললে কলম ভেঙে যাবে, কিন্তু তারাই তো নির্ধারণ করছেন তাদের পত্রিকার নিয়ম-নীতি। সম্পাদক হওয়ার জন্য সাংবাদিকতায় ন্যূনতম ১৫ বছরের অভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন এই দাবি সাংবাদিক ইউনিয়ন বহু আগেই করেছে। কিন্তু রহস্যময় কারণে তা আইনে রূপান্তরিত হয়নি।

তিনি আরো বলেন, যুগে যুগে সাংবাদিকদের মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব করা হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সাংবাদিকদের কাছে মরার উপর খাড়ার ঘা। তথ্য অধিকার আইন ও নিন্দিত অফিসিয়াল সিক্রেট অ্যাক্টÑএর পাশাপাশি অবস্থান নিশ্চিত করে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছে। এই আইনটি বলবৎ হলে সংবিধানে প্রদত্ত মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতা বিঘিœত হবে। হাসান শাহরিয়ার বলেন, গণতন্ত্রের বিকাশে সুষ্ঠু সাংবাদিকতা অপরিহার্য। শুধু প্রচার সংখ্যা অনুযায়ী বিজ্ঞাপন বন্টন এবং কাগজ আমদানির উপর ট্যাক্স কমালেই এ শিল্পে অনেক উন্নতি সাধিত হবে। খরচ কমলে পত্রিকার প্রচার সংখ্যা যেমন বাড়ানো যাবে, তেমনি পত্রিকার দাম মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যেও সীমাবদ্ধ রাখা সম্ভব হবে। শুধু সাংবাদিকদের দোষারূপ না করে সুষ্ঠু সাংবাদিকতার পরিবেশ সৃষ্টি এবং সর্বত্র ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন করে নিশ্চিত করতে হবে সাংবাদিকদের ন্যূনতম বেতন ও ভাতা। সম্পাদক হতে হলে সাংবাদিকতায় ন্যূনতম ১৫ বছরের অভিজ্ঞতার বিধান রাখতে হবে। সাংবাদিকদের পেশাদার হতে সহায়তা করুন, তাদের দলীয় ক্যাডার বা সরকারের তল্পিবাহক বানানোর চেষ্টা করবেন না। দেখবেন অচিরেই অবস্থা পাল্টে যাবে, ‘সাংঘাতিক’দের সংখ্যা কমে যাবে। বাংলাদেশের মিডিয়া যথেষ্ট স্বাধীন। তবে সাংবাদিকের স্বাধীনতা নেই, আছে মালিকের স্বাধীনতা। সত্যকে সত্য এবং মিথ্যাকে মিথ্যা হিসেবে প্রকাশ করাই সাংবাদিকের স্বাধীনতা।

ক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তবারক হোসাইন। বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আব্দুল মালিক চৌধুরী ও ইকবাল সিদ্দিকী, প্রখ্যাত সাংবাদিক হোসেন তৌফিক চৌধুরী, সাংবাদিক ও প্রাবন্ধিক রফিকুর রহমান লজু, দৈনিক সিলেটের ডাকের নির্বাহী সম্পাদক আবদুল হামিদ মানিক, দৈনিক সিলেট সংলাপের সম্পাদক মুহাম্মদ ফয়জুর রহমান।

ক্লাবের পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক খালেদ আহমদের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন কলামিস্ট আফতাব চৌধুরী, ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি এনামুল হক জুবের, সহ-সভাপতি এম এ হান্নান, সিনিয়র সাংবাদিক আব্দুল মালিক জাকা, সাবেক সহ-সভাপতি মোহাম্মদ বদরুদ্দোজা বদর ও হুমায়ূন রশিদ চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সমরেন্দ্র বিশ্বাস সমর, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বকশি ইকবাল, প্রবাসী সাংবাদিক সাঈদ চৌধুরী, ক্লাবের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক নূর আহমদ, সাবেক পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. আব্দুল মুকিত অপি, সাবেক ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক আহবাব মোস্তফা খান ও মো. আব্দুল আহাদ, প্রয়াত সাংবাদিক জিতেন সেনের মেয়ে ইন্দ্রানি সেন।

উপস্থিত ছিলেন, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ মো. রেনু ও মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, দৈনিক সিলেট বাণীর সম্পাদক ওবায়দুল হক চৌধুরী, প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ শাহাব উদ্দিন শিহাব, সাবেক কোষাধ্যক্ষ খালেদ আহমদ, কার্যনির্বাহী সদস্য মো. ফয়ছল আলম, শুয়াইবুল ইসলাম ও দিগেন সিংহ, গল্পকার সেলিম আউয়াল, আবু তালেব মুরাদ, আব্দুল বাতিন ফয়সল, চৌধুরী দেলোয়ার হোসেন সেলিম, শেখ নাসির প্রমুখ । এছাড়াও ক্লাবের সদস্যবৃন্দ ও প্রয়াত সাংবাদিকদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন সিনিয়র সাংবাদিক আব্দুর রাজ্জাক।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: