সর্বশেষ আপডেট : ১৯ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

 লাল কার্ড দিয়ে রোনালদোর চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু, বোনের আবেগঘন স্ট্যাটাস

স্পোর্টস ডেস্ক:: ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। রিয়ালের সাবেক তারকা এখন ইতালীয় ক্লাব জুভেন্টাসের হয়ে খেলছেন। কিন্তু জুভেন্টাসের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজের অভিষেক ম্যাচেই লাল কার্ড দেখতে হয়েছে পর্তুগীজ উইঙ্গারকে।

এরপরই কাঁদতে কাঁদতে মাঠ ছেড়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ২-০ গোলে জেতা ম্যাচের প্রথমার্ধেই ঘটে ওই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা।অপরদিকে ভাই রোনালদোর এমন অঝোরে কান্না সহ্য করতে পারছেন না রোনালদোর বোন কাতিয়া আভেইরো।

চ্যাম্পিয়নস লিগে ‘এইচ’ গ্রুপে জুভেন্টাস-ভ্যালেন্সিয়া ম্যাচের ২৯ মিনিটে ভ্যালেন্সিয়ার জেসন মুরিলো রোনালদোর কাছাকাছি থাকার সময় পড়ে যান। খালি চোখে দেখে মনে হয় রোনালদো তাকে ফেলে দেন। এসময় রোনালদো মুরিলোর চুলে হাত দিলে ঘটনা লালকার্ড পর্যন্ত গড়ায়।

পরবর্তীতে টেলিভিশন রিপ্লেতে দেখা যায় ভ্যালেন্সিয়ার ওই ডিফেন্ডার অভিনয় করেছেন। কিন্তু ভিএআর প্রযুক্তি না থাকায় বেঁচে যান ওই ডিফেন্ডার। তা না হলে হয়তো উল্টো তিনিই লালকার্ড পেয়ে যেতেন। কিন্তু তার ভাগ্যটা ভালোই বলতে হবে।

যদিও মাঠের রেফারি প্রথমে লালকার্ড দেননি। কিন্তু গোল লাইনের পাশে থাকা সহকারী রেফারি লালকার্ডের মত দেন। তাতে কান্না ভেজা চোখে মাঠ ছাড়েন রোনালদো। মাঠ ছাড়ার পরও সাইডলাইনে গিয়ে নিজেকে সামলাতে পারছিলেন না ৩৩ বছর বয়সী এই তারকা।

নিজের ভাইয়ের সঙ্গে এমন আচরণ মেনে নিতে পারছেন না বোন আভেইরো। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে নিজের ক্ষোভ ঝেড়ে তিনি লিখেছেন, ‘এটা ফুটবলের জন্য লজ্জার, ন্যায় একদিন প্রতিষ্ঠিত হবে। তারা আমার ভাইকে ধ্বংস করতে চায়, কিন্তু ঈশ্বর কখনও ঘুমান না। তারা এই অশ্রুর মূল্য দেবে। তারা তোমাকে ডুবাতে চায়, কিন্তু তারা সফল হবেনা।’



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: