সর্বশেষ আপডেট : ১৮ মিনিট ১৭ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

উচ্চশিক্ষার গুণগত মানের কাঠামো নিয়ে শাবিতে আইকিউএসি’র কর্মশালা

শাবি প্রতিনিধি:: উচ্চশিক্ষার গুণগত মানের কাঠামা নিয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ন্যাশনাল কোয়ালিফিকেশন ফ্রেমওয়ার্ক অব বাংলাদেশ’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (১৬ই সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মিনি অডিটরিয়ামে শাবি’র ইন্সটিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসিউরেন্স সেল (আইকিউএসি) ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের কোয়ালিটি অ্যাসিউরেন্স সেলের যৌথ উদ্যোগে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। শাবি’র আইকিউএসি’র পরিচালক অধ্যাপক ড. আব্দুল আওয়াল বিশ্বাসর সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী, লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামরুজ্জামান চৌধুরী, বিভাগীয় কমিশনার মিছবাহ উদ্দিন চৌধুরী, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিব প্রসাধ সেন, শাবি’র কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ইলিয়াস উদ্দিন বিশ্বাস প্রমুখ।

কর্মশালায় কি-নোট স্পিকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের কোয়ালিটি অ্যাসিউরেন্স সেলের প্রধান অধ্যাপক ড. সঞ্জয় কুমার অধিকারী। অনুষ্ঠানে সিলেটের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এবং মেডিকেল কলেজের প্রধান ও আইকিউএসির শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অতিরিক্ত পরিচালক অধ্যাপক ড. আশরাফুল আলমের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আইকিউএসি’ কর্মশালার উদ্দেশ্যটা হলো শিক্ষা গবেষণা মানদন্ডের দিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলাকে একটি প্ল্যাটফর্মে মধ্যে নিয়ে আসা। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রমোশন নীতি রয়েছে, কারিকুলামে একটি আকাশ পাতাল পার্থক্য আছে এটা হবে না, একটি জায়গায় আমারা দাড়াঁবো। সকল নীতিমালা এক হওয়া প্রয়োজন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন বিষয়ে ক্রেডিট নিয়ে জটিলতা আছে সেটা দূর করতে হবে।’

শিক্ষার্থীদর উদ্দেশ্যে উপাচার্য বলেন, পাবলিক ইউনিভার্সিটিতে ‘ফ্রি অব কস্ট’ পড়াশানা দুনিয়ার কোথাও নাই। আমাদের এখানে প্রতি শিক্ষার্থীর পিছনে প্রায় দেড় লাখ টাকা ভর্তূকি দেওয়া হচ্ছে। আর সাধারণ মানুষ এই ভর্তূকির টাকা দিচ্ছে। এখানে আজীবন থাকা যাবে না, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পড়ালেখা শেষ করে চলে যেতে হব। ১০/১৫ বছর যাবৎ থাকা যাবে না।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: