সর্বশেষ আপডেট : ২৩ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

১৪ সালে নির্বাচন না হলে দেশে মার্শাল ‘ল’ থাকতো – স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম

আব্দুর রব, বড়লেখা:: স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি বলেছেন, ২০১৪ সালে নির্বাচন শুরু করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু জ্বালাওপুড়াও শুরু করলো খালেদা জিয়ার দল। নির্বিচারে পুলিশ হত্যা করলো, মানুষকে হত্যা করলো। ৫ জানুয়ারীর নির্বাচন না হলে দেশে মার্শাল ‘ল’ থাকতো। তিনি বিএনপি-জামায়াতকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ২০১৪ সালে ভুল করেছেন, খেলা ছেড়ে মাঠ থেকে আর পালাবেন না। নির্বাচনে আপনাদের এত ভয় কেন। আগামী ডিসেম্বরে নির্বাচন হবেই। আমেরিকা, বৃটেন, মালয়েশিয়ায় যেভাবে ক্ষমতাসীন দলের অধীনে নির্বাচন হয় সেভাবেই আগামী নির্বাচন শেখ হাসিনার অধীনেই হবে এবং সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে। বিএনপিকে হুশিয়ারী দিয়ে তিনি আরো বলেন, মেসি ও নেইমার গোল মিস করতে পারে, কিন্তু শেখ হাসিনা এবারও গোল মিস করবেন না। আগামী নির্বাচন নিয়ে কোন ফাউল খেলা খেলবেন না। যদি কোন ফাউল খেলা খেলেন তবে খেলার মাঠ থেকে লাল কার্ড দেখিয়ে রেফারি বের করে দেবে। নির্ধারিত সময়ে শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হবে। সে নির্বাচনে লড়াই করব এবং আমরা জিতবই।

তিনি মঙ্গলবার বেলা দুইটায় মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় নবনির্মিত ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন পরবর্তী স্থানীয় আওয়ামীলীগ আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। বিভিন্ন দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে তিনি আগামী নির্বাচনের পূর্বেই মৌলভীবাজারে একটি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার কাজ শুরুর এবং জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চলতি মাসেই একটি অ্যাম্বুলেন্স বরাদ্দের ঘোষণা দেন। পরে বিকেল চারটায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৫০ শয্যা বিশিষ্ট নবনির্মিত হাসপাতাল ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মহিউদ্দিন আহমদ।

জাতীয় সংসদের হুইপ ও স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. শাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং জুড়ী উপজেলা আ’লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, যুবলীগ নেতা রিংকু রঞ্জন দাস ও শেখরুল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় জুড়ী হাসপাতাল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মতিন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বাবুল কুমার সাহা, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ব্রি. জেনারেল এম.এ মুহিত, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক তোফায়েল ইসলাম, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মিছবাউর রহমান, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান, জুড়ী ইউএনও অসীম কুমার বণীক, বড়লেখা উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, জুড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান গুলশানা আরা মিলি, কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু ইউসুফ, ভারপ্রাপ্ত জেলা সিভিল সার্জন ডা. বিনেন্দু ভৌমিক, বড়লেখা পৌরমেয়র ইমাম মো. কামরান চৌধুরী, জুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক বদরুল হোসেন, বড়লেখা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার উদ্দিন, সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, জুড়ী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কিশোর রায় চৌধুরী মন, বড়লেখা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ দাস নান্টু, জুড়ী ফুলতলা ইউপি চেয়ারম্যান মাসুক আহমদ, গোয়ালবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন লেমন, পশ্চিম জুড়ী ইউপি চেয়ারম্যান শ্রীকান্ত দাস, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মামুনুর রশীদ সাজু।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী জনসভায় উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে আরো বলেন, ‘বিগত নির্বাচনে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসায় আপনারা উন্নয়ন পাচ্ছেন। এখন ভোটের মাধ্যমে তা ফেরত দেওয়ার পালা। গত দশ বছরে শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে অনেক দিয়েছেন। শোককে বুকে ধারণ করে একাত্তরের ঘাতক দালালদের বিচার করেছেন। বিগত কোন সরকারই এদের বিচার করে নাই। এত কিছুর পরও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নয়ন অব্যাহত রেখেছেন। যার ফলে দু’মুঠো ভাত খেয়ে মানুষ সুখে আছে। খাদ্যে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে। মায়ের মমতা নিয়ে শেখ হাসিনা উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে। জনগণের দোরগড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দিতে নতুন নতুন কমিনিউটি ক্লিনিক হচ্ছে। সে ধারাবাহিকতায় আরো ৭ হাজার ডাক্তার নিয়োগ হবে। জুড়ীতেও কমিউনিটি ক্লিনিক হবে। আমার মেয়াদকালীন সময়ে জুড়ী ও বড়লেখা হাসপাতালের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও উদ্বোধন হল।

এদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি, বিকেলে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় সম্প্রসারিত নবনির্মিত হাসপাতাল ভবনের উদ্বোধন করেন। প্রধান অতিথি স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি ছাড়াও সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন হুইপ শাহাব উদ্দিন, উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সুন্দর, ইউএনও মুহাম্মদ সুহেল মাহমুদ, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আহমদ হোসেন, বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এপিপি গোপাল দত্ত প্রমূখ। মন্ত্রী স্বল্প সময়ের মধ্যে বড়লেখা হাসপাতালের সব সমস্যার সমাধানের আশ্বাস দেন।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: