সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৫৯ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন: মজুমদার পাড়ায় সংখ্যালঘু পরিবারের ভূ-সম্পদ দখল পায়তারার অভিযোগ

নগরীর ১০ নম্বর ওয়ার্ডের মজুমদার পাড়ায় সংখ্যালঘু একটি পরিবারের ভূ-সম্পদ দখল পায়তারার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবারের তিন সহোদর স্বপন দাশ, শিপন দাশ ও তপন দাশ।

লিখিত বক্তব্যে স্বপন দাশ বলেন, তাদের পিতা মৃত নিবারণ চন্দ্র দাশের রেখে যাওয়া বাগবাড়ি মৌজায় ৭২ শতক ভূমির উত্তরাধিকারী সূত্রে মালিক তারা। তাদের পিতা নিবারণ চন্দ্র জীবদ্দশায় ১১ শতক ৫০ পয়েন্ট ভূমি জনৈক হামিদা বানুর নিকট বিক্রি করেন। বাকি ৬০ শতক ৫০ পয়েন্ট ভূমি তারা ভোগদখল করে আসছেন। এ ভূমি জবরদখল করতে একটি চক্র উঠেপেড়ে লেগেছে। তারা হলোÑ বিশ্বনাথ উপজেলার ভুরকী গ্রামের মৃত হাজি আবরু মিয়া মাস্টারের পুত্র হাজি মো. ছফির মিয়া, ছফির মিয়ার স্ত্রী ফরিদা বেগম, ছেলে ফরিদ আহমদ, একই উপজেলার দেওকলস ইউনিয়নের জগৎপুর গ্রামের মৃত শাইস্তা মিয়ার পুত্র ছানা মিয়া, নগরীর দর্শনদেউড়ি এলাকার আফরুজ মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম, শিবগঞ্জ এলাকার আব্দুল খালিকের পুত্র আব্দুল কাইয়ূম উরফে হেলাল, জালালাবাদ আবাসিক এলাকার খুরশেদ আলীর পুত্র সাদিকুর রহমান, বিশ্বনাথ উপজেলার বুরইয়া গ্রামের ইশাদ উল্লাহর পুত্র আজাদ মিয়া এবং আজাদ মিয়ার স্ত্রী আফিয়া বেগম।

স্বপন আরো বলেন, এদের মধ্যে নজরুল ইসলাম, আব্দুল কাইয়ূম উরফে হেলাল এবং সাদিকুর রহমানের কানিশাইল এলাকায় অবৈধ হাউজিং ব্যবসা ছিল। তারা তাদের সম্পূর্ণ প্লট ক্রেতাদের ভুল বুঝিয়ে বিক্রি করে চলে যায়। এখন জাল দলিল তৈরি করে আমাদের সম্পত্তি গ্রাস করার চেষ্টা করছে। আমরা এর বিরুদ্ধে আদালতে স্বত্ব ও জাল দলিল বাতিলের জন্য মোকদ্দমা দায়ের করি। যার নং ২১১/২০১৮। এতে এ চক্র ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২৬ আগস্ট আমাদের বাড়িতে জোরপূর্বক প্রবেশ করে জমি ছেড়ে দিতে বলে এবং প্রাণে মারার হুমকি দেয়। আমরা সংখ্যালঘু হওয়ায় তাদের হুমকিতে আমাদের জান-মাল নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

স্বপন বলেন, এ চক্র এখন আমাদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। গত ৫ আগস্ট চাঁদাবাজির অভিযোগে মো. ছানা মিয়া বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় আমাদের তিন ভাইয়ের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক একটি মামলা করে। যার নং জিআর ৩৭৭/১৮। গত ২৩ আগস্ট ছফির মিয়া বাদী হয়ে একই অভিযোগে কোতোয়ালি থানায় আমাদেরকে আসামি করে আরেকটি মামলা দায়ের করে। যার নং জিআর ৪০২/১৮। দুটি মামলায়ই আমরা জামিনে রয়েছি। তারা আরও মামলা দিয়ে হয়রানি করবে বলে হুমকি দিচ্ছে। তিনি বলেন, এরা প্রভাবশালী ও সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক হওয়ায় তাদের ভয়ে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতা বোধ করছি। সংবাদ সম্মেলনে তিন সহোদর তাদের পৈত্রিক ভূ-সম্পদ ভূমিখেকো চক্রের হাত থেকে রক্ষায় এবং জালিয়াত চক্রের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পুলিশ-প্রশাসনের উর্ধ্বতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিন সহোদর ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বোন নন্দিতা দাশ, স্বপন দাশের স্ত্রী প্রীতি রাণী দাশ, শিপন দাশের স্ত্রী ববিতা রাণী দাশ, আমিন মিয়া, সেলিম আহমদ, শেখ রহিম ও মাহিদ আহমদ।  – বিজ্ঞপ্তি


এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: