সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শূন্যপদ না থাকলেও অতিরিক্ত সচিব হলেন ১৬৩ কর্মকর্তা

নিউজ ডেস্ক:: শূন্যপদ না থাকলেও যুগ্মসচিব থেকে অতিরিক্ত সচিব পদে ১৬৩ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৩৩ জন বিসিএস প্রশাসন ক্যাডার এবং ৩০ অন্যান্য ক্যাডারের কর্মকর্তা আছেন।বুধবার রাতে পদোন্নতি পাওয়া ১৫৪ কর্মকর্তার নামে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বাকি ৯ কর্মকর্তা লিয়েনে থাকায় তাদের প্রজ্ঞাপন পরে জারি করা হবে। এবারও পদোন্নতি থেকে প্রায় শতাধিক কর্মকর্তাকে বঞ্চিত করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা অভিযোগ করেছেন।

অতিরিক্ত সচিব পদে অনুমোদিত পদের সংখ্যা ১২১। বর্তমানে অতিরিক্ত সচিব পদে কর্মরত আছেন ৪৭৫ কর্মকর্তা। এ পরিস্থিতিতে বুধবার রাতে ১৬৩ জনকে অতিরিক্ত সচিব করা হয়। ফলে এ পদে কর্মকর্তার সংখ্যা দাঁড়াল ৬৩৮ জনে।হিসাব অনুযায়ী অনুমোদিত পদের চেয়ে অতিরিক্ত কর্মকর্তা সংখ্যা দাঁড়াল ৫১৭। ফলে পদ না থাকায় পদোন্নতি পাওয়া অধিকাংশ কর্মকর্তাকে আগের পদেই (ইন সিটু) কাজ করতে হবে অথবা ওএসডি থাকতে হবে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, রেওয়াজ অনুযায়ী পদোন্নতিপ্রাপ্তদের ইতিমধ্যেই ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) করা হয়েছে।

অতিরিক্ত সচিবের মতো নির্ধারিত পদের তুলনায় যুগ্মসচিব ও উপসচিব পদেও অনেক বেশি কর্মকর্তা রয়েছে। এ মুহূর্তে যুগ্মসচিবের ৪১১টি পদের বিপরীতে ৬১৩ জন এবং উপসচিবের এক হাজার ৬টি পদের বিপরীতে এক হাজার ৭৫৭ জন কর্মরত আছেন। পদোন্নতিপ্রাপ্তদের মধ্যে বিসিএস ১৯৮২ বিশেষ ব্যাচের একজন, ১৯৮৪ ব্যাচের ৬ জন, ১৯৮৫ ব্যাচের ১৪ জন, ১৯৮৬ ব্যাচের ৮ জন, নবম ব্যাচের ৭ জন এবং নিয়মিত ব্যাচ হিসেবে দশম ব্যাচের ৯৭ জন কর্মকর্তা রয়েছেন।

এর মধ্যে দশম ব্যাচের ৯ জন লিয়েনে থাকায় তাদের পদোন্নতির প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়নি। এছাড়া প্রশাসন ক্যাডারের বাইরে থেকে ৩০ জনকে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। পদোন্নতিপ্রাপ্তদের মধ্যে এবার কমবেশি ৬০ জন কর্মকর্তা রয়েছেন, যাদের প্রয়োজনীয় যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও নানা কারণে এর আগে একাধিকবার বঞ্চিত হয়েছিলেন। অতিরিক্ত সচিব পদে ১৬৩ জনকে পদোন্নতি দিতে কমবেশি শতাধিক কর্মকর্তাকে বঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে। যারা বিসিএস ১৯৮২ বিশেষ ব্যাচ, ১৯৮৪ ব্যাচ, ১৯৮৫ ব্যাচ, ১৯৮৬ ব্যাচ ও নবম ব্যাচের কর্মকর্তা।

তবে কর্তৃপক্ষের দাবি, তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা বিচারাধীন অথবা চাকরির গোপন প্রতিবেদনে বিরূপ মন্তব্য থাকায় পদোন্নতি দেয়া সম্ভব হয়নি। জানা গেছে, বঞ্চিতদের অনেকেই বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় মন্ত্রীদের একান্ত সচিব (পিএস), প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মরত ছিলেন।

এর আগে একইভাবে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের বিভিন্ন সময়ে পদোন্নতিতে সব স্তরে বিপুলসংখ্যক কর্মকর্তা বঞ্চিত হয়েছিলেন। ওই সব বঞ্চিতরাও আগের আওয়ামী লীগ সরকারের সময় উল্লেখিত গুরুত্বপূর্ণ পদের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। সরকার পরিবর্তন হলেই আগের সরকারের সময়ে গুরুত্বপূর্ণ পদের দায়িত্বপালনকারীরা বঞ্চিত হবেন- এ যেন জনপ্রশাসনের ‘স্থায়ী সংস্কৃতি’ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বঞ্চিত হলেন যারা : পদোন্নতির প্রজ্ঞাপন পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, বিসিএস ১৯৮২ বিশেষ ব্যাচের একমাত্র কর্মকর্তা শওকত নবী পদোন্নতি পেয়েছেন। বিসিএস ১৯৮২ বিশেষ ও নিয়মিত ব্যাচের যারা বঞ্চিত হলেন তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন- জীবন কুমার চৌধুরী, ইব্রাহিম খলিল, মিশকাত আহমেদ চৌধুরী, এটিএম মহিউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

বিসিএস ১৯৮৪ ব্যাচের মোহাম্মদ শাফায়েত হোসেন, মুহাম্মদ নুরুল আলম, লোকমান আহমেদ, মুজিবুর রহমান আল মামুন, মো. হাবিবুর রহমান, মো. মিজানুর রহমান, মো. আবদুর রাজ্জাক, শাহাদাৎ হোসেন মজুমদার, এনায়েত হুসাইন, মো. কায়সারুল ইসলাম, মো. তানকিন হক সিদ্দিকী, মোহাম্মদ শমসের আলী,মো. জালাল উদ্দিন, মো. আতাউল হক, মো. খালিদ মাহমুদ, ড. মুহাম্মদ আবু ইউসুফ, মো. শরফুদ্দিন খান জিলানী, ইউসুফ আলী, মো. আবদুল আজিজ, বিকাশ চন্দ্র শিকদার, এএএম নাসিহুল কামাল, মওদুদ একে কাইয়ুম চৌধুরী, গোলাম মওলা, মো. ওয়াসিম জাব্বার, মো. শওকত আকবর, মুশফিক আহমেদ শামীম, আবদুল খালেক, জিয়াউর রহমান খান প্রমুখ। পদোন্নতি বঞ্চিতদের মধ্যে আরও আছেন ১৯৮৫, ১৯৮৬, নবম ও দশম ব্যাচের অর্ধশতাধিক কর্মকর্তা।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: