সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মালয়েশিয়ার পর সৌদি শ্রমবাজারেও সিন্ডিকেট!

নিউজ ডেস্ক:: মালয়েশিয়ার পর এবার সৌদি আরবের শ্রমবাজারও সিন্ডিকেটের কবলে পড়তে যাচ্ছে। কয়েকটি রিক্রটিং এজেন্সি জনশক্তি রপ্তানি করায়ত্ত করার তোড়জোড় শুরু করেছে। অভিযোগ উঠেছে, গ্রিনল্যান্ড রিক্রুটিং এজেন্সির নেতৃত্বে ২৫টি এজেন্সি সৌদি আরবে জনশক্তি রপ্তানির সিন্ডিকেট করার চেষ্টা করছে। এতে সৌদি আরবে জনশক্তি রপ্তানিতে বড় ধরনের সংকট দেখা দিতে পারে। ইতোমধ্যে এ পদ্ধতির বিরোধিতা করেছে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রটিং এজেন্সি (বায়রা)। এ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিরসনে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়, বায়রা ও সৌদি সরকারের মধ্যে চলছে চিঠি চালাচালি।

জানা গেছে, সিন্ডিকেটের তৎপরতায় সৌদি সরকার ২৫টি রিক্রটিং এজেন্সিকে জনশক্তি রপ্তানির অনুমতি দেয়ার কথা ভাবছে। দুদেশের দূতাবাসের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাও ওই সিন্ডিকেটে আছেন। প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হলে ড্রপবক্সের মাধ্যমে ভিসার আবেদন করতে হবে। অন্য যে কোনো এজেন্সিকে নির্ধারিত ২৫ এজেন্সির মাধ্যমে জনশক্তি রপ্তানি করতে হবে। এতে খরচ বাড়বে বলে মনে করছে বায়রা। ‘জিটুজি-প্লাস’ নামে মালয়েশিয়া তাদের দেশে বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগ করত, সেই পদ্ধতি আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকেই স্থগিত হয়ে যাবে। অভিযোগ উঠেছে, মালয়েশিয়ায় শ্রমিক নিয়োগকারী নির্দিষ্ট ১০টি রিক্রুটিং এজেন্সির দুর্নীতির কারণে মালায়েশিয়া সরকার এ পদ্ধতি স্থগিত করেছে।

নতুন সরকারের পক্ষ থেকে নতুন নীতিমালা না হওয়া পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানি বন্ধ থাকবে। এ পরিস্থিতিতে সৌদি আরবে জনশক্তি রপ্তানির সিন্ডিকেট তৈরির খবরে ক্ষুব্ধ বায়রা। নির্দিষ্ট ২৫ এজেন্সি নয়, বায়রার সদস্যভুক্ত সবগুলো এজেন্সির মাধ্যমে জনশক্তি রপ্তানির নীতি প্রণয়ের জন্য সৌদি সরকারের কাছে দাবিও জানিয়েছে সংস্থাটি।বায়রার মতে, ২৫ এজেন্সি মানে সিন্ডিকেট।সিন্ডিকেটকে দায়িত্ব দিলে বিশৃঙ্খলা এবং অনিয়ম বাড়বে।তারা সিঙ্গাপুর,থাইল্যান্ড,মালয়েশিয়ার আদলে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ভিএসএফের মতো প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জনশক্তি রপ্তানির দাবি জানান।

এ বিষয়ে বায়রা প্রেসিডেন্ট, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, সাবেক সাংসদ বেনজির আহমেদ বলেন, এজেন্সি ভাগ করে দেয়া কোনো সুখবর না। সিন্ডিকেটের কবলে কোনো শ্রমবাজার সুফল বয়ে আনতে পারে না। এতে সাধারণ মানুষ বিশেষ করে নিম্নবিত্তরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তিনি বলেন, সুন্দর যে কোনো উপায়ে দেশের স্বার্থ রক্ষা করে জনশক্তি রপ্তানি করা হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২৫ এজেন্সির মাধ্যমে জনশক্তি রপ্তানির যে তোড়জোড় চলছে এর পেছনে গ্রিনল্যান্ড এজেন্সিসহ বেশ কয়েকটি এজেন্সির কর্ণধাররা রয়েছেন। তারা সৌদির শ্রমবাজার নিয়ন্ত্রণ করতে মরিয়া। এ পরিস্থিতিতে সৌদি আরবে সহজে এবং সঠিকভাবে জনশক্তি রপ্তানির পথ সব রিক্রুটিং এজেন্সির জন্য উন্মুক্ত রাখতে সরকারকে কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়ানোর পাশাপাশি অসাধু এজেন্সিগুলোর লাগাম টেনে ধরার আহবান জানিয়েছে বায়রা।


এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: