সর্বশেষ আপডেট : ৩২ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

দোয়ারাবাজারে নিহতদের বাড়িতে ঈদের খুশির বদলে চলছে শোকের মাতম

দোয়ারাবাজার সংবাদদাতা:: ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ফের মর্মান্তিক দূর্ঘটনায় কেড়ে নিল দোয়ারাবাজারের ৫জন ও চালকসহ ১১জনের প্রাণ। নিহতদের বাড়িতে ঈদের খুশির বদলে চলছে এখন শোকের মাতম। এদিকে গত জুলাই মাসের শেষভাগে ঢাকা- সিলেট মহাসড়কে লাইটেস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে সিলেটের ওসমানী নগরে দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের মুকিরগাঁও গ্রামের বর আরব আলী, তার আপন দুই ভাই, তাদের ভগ্নিপতি, তাদের নিকটাত্মীয় গর্ভবতী মহিলাসহ একই গ্রামের ৭জন মারা যায়। বিধি বাম, সেই রেষ কাটতে না কাটতেই দ্বিতীয় দফা ফের মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় আরো ৫জনের প্রাণহানী ঘটলো। দোয়ারাবাজারের মুকিরগাঁও এবং গিরিশনগর গ্রাম যেন এখন মৃত্যুপুরী। দুই গ্রামের স্বজনহারাদের মাঝে চলছে শোকের মাতম।

পুলিশ ও নিহতদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ভৈরব ও নরসিংদীর সীমান্ত এলাকা বেলাবো উপজেলার দঁড়িয়াকান্দিতে বাস-লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে স্বামীস্ত্রী ও চালকসহ ১১জন নিহত হন। জানা যায়, নরসিংদী থেকে ‘বস পরিবহন‘ এর একটি যাত্রীবাহী বাস ঢাকার মহাখালী যাচ্ছিল। গাড়িটি বেলাবোর দঁড়িয়াকান্দি এলাকায় পৌছামাত্র বিপরীত দিক থেকে আসা ভৈরবগামী একটি যাত্রীবাহী লেগুনার সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৮জন নিহত হন। আশংকাজনক অবস্থায় আহতদের উদ্ধার করে ভৈরব ও নরসিংদীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তন্মধ্যে ভৈরব হাসপাতালে চিকিতসাধীন অবস্থায় ২জন এবং নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নেয়ার পর একজন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। নিহতদের মধ্যে দোয়ারাবাজারের স্বামীস্ত্রীসহ একই গ্রামের ৫জন এবং ছাতকের সূড়িগাঁও গ্রামের একজন ছিলেন।

দোয়ারাবাজারের নিহতরা হচ্ছেন- উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের গিরিশনগর গ্রামের মৃত কাজিল হকের পুত্র সুজন মিয়া (২৫), সুজন মিয়ার স্ত্রী সাবিনা বেগম (২০), তাদের নিকটাত্মীয় একই গ্রামের নাজিম উদ্দিনের পুত্র মনোয়ার হোসেন (২৪), কাছু মিয়ার পুত্র শাহীন মিয়া (২০) এবং মৃত তাজুল ইসলামের পুত্র সুমন মিয়া (১৮)। এদের মধ্যে প্রথমোক্ত ৪জনকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জানাজা শেষে এবং সুমন মিয়াকে পরদিন বুধবার জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে। নিহত অপরজন হচ্ছেন পার্শ্ববর্তী ছাতক উপজেলার সূড়িগাঁও গ্রামের আপ্তাব মিয়া। এরা সবাই নির্মাণ শ্রমিক। তারা সবাই নরসিংদীর একটি ইটভাটায় শ্রমিক হিসাবে কর্মরত ছিলেন। স্ত্রী-পুত্র, বউ-ঝি, আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে সোমবার রাজধানী ঢাকা থেকে ছাতকগামী নাইট কোচে বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে যাত্রীবাহী লেগুনাযোগে তারা ভৈরব যাচ্ছিলেন। এদিকে উপজেলার গিরিশনগরে মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনার খবর পৌছামাত্র স্বজন হারানোদের পরিবারে শুরু হয়েছে এক হৃদয় বিদারক কান্নার রুল। নিহত সুজন মিয়ার পঞ্চাশোর্ধ মাতা রাহেলা বেগম বারবার মূর্ছা খেয়ে অজ্ঞান হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। অন্য নিহতদের বাড়িতেও চলছে শোকের মাতম। স্বজন হারানোর শোকে ঈদের আনন্দের ছোঁয়া লাগেনি নিহতদের পরিবারে।

নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে তাদের শোকাহত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ মাস্টার, দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, ছাতক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল, ছাতক উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী, দোয়ারাবাজার উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি তাজুল ইসলামসহ প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: