সর্বশেষ আপডেট : ৪৫ মিনিট ১৫ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ভিজিএফ চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী:: ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ‌ের উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে হত দরিদ্র পরিবারের মাঝে ভিজিএফ চাল ব‌িতরনে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ করেছেন এক ভুক্তভোগী ব্যক্তি। ইউপি চেয়ারম্যান ২০ কেজির বদলে ১০-১২ কেজি করে চাল বিতরণ করেছেন বলে তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেন। ইউনিয়নের বরাদ্দকৃত বিশেষ ভিজিএফের ১৯ টন চালের মধ্যে আরো ৫ টন চাল বিতরণের আগেই গোপনে বিক্রি করে দিয়েছেন বলেও জানান অভিযোগকারী। অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গতকাল শুক্রবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের দামোধরতপি গ্রামের কেতকী রঞ্জন দাসের দায়েরকৃত অভিযোগ থেকে জানা যায়, ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন ইউনিয়নের হতদরিদ্রদের মধ্যে বিতরণের জন্য সরকারিভাবে ১৯ টন চাল বরাদ্দ পেয়েছেন। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী তালিকাভুক্ত প্রতিজনকে ২০ কেজি করে চাল দেওয়ার কথা থাকলেও গত ১৬ আগস্ট ৯নং ওয়ার্ডের হতদরিদ্রদের মধ্যে মাত্র ১০-১২ কেজি করে বিতরণ করেন তিনি। এসময় কম পাওয়া লোকজন বিক্ষুব্ধ হলেও চেয়ারম্যানের বাহিনীর হুমকির কারণে ফিরে যান। এছাড়াও অন্যান্য ওয়ার্ডেও একইভাবে ওজনে কম দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শফিউল্লাহ শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ভুক্তভোগীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। এসময় কুদিরাই গ্রামের হতদরিদ্র আলেছা বেগম, কমর উদ্দিন, শাহিন মিয়া, আলা উদ্দিন, রনসি গ্রামের গেদা মিয়াসহ অনেকেই জানিয়েছেন তারা ২০ কেজি চাল পাননি। তাদের মধ্যে কেউ ১০ কেজি, কেউ ১২-১৫ কেজি করে পেয়েছেন বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানিয়েছেন।

এদিকে এ ঘটনায় অভিযোগকারীকে হুমকি-ধমকি দেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. আক্তার হোসেন বলেন, ওজনে কম বা বিক্রি কোনটাই আমরা করিনি। আমরা যথাযথভাবেই চাল বিতরণ করেছি। তবে এক ব্যক্তির সঙ্গে আমার পূর্ববিরোধ থাকায় তিনি আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শফিউল্লাহ বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে চাল বিক্রির কোন সত্যতা পাইনি। তবে হতদরিদ্রদের ২০ কেজির বদলে ওজনে কম দেওয়া হয়েছে এর প্রমাণ পেয়েছি।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: