সর্বশেষ আপডেট : ৯ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তাঁতবস্ত্র ও হস্তশিল্প মেলা বন্ধে অভিযান, তথ্য সংগ্রহে সাংবাদিকদের বাধা

নিজস্ব প্রতিবেদক:: নগরীর দরগা গেইটস্থ কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য কেন্দ্র ( কেমুসাস) এ চলমান তাঁতবস্ত্র ও হস্তশিল্প মেলা বন্ধে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়েছে। জেলা প্রশাসনের অনুমতি না থাকায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বৃহস্পতিবার (১৬ আগষ্ট) বিকাল ৫টা থেকে এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হাসান প্রিন্স। প্রায় ৩ ঘন্টা ব্যাপি পরিচালিত এই অভিযানে তথ্য সংগ্রহ করতে ও ছবি তুলতে আসা সংবাদকর্মীদের বাধা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ সংবাদকর্মীদের। সেই সাথে সাপ্তাহিক সাহিত্য আসরে যোগদান করতে আসা কেমুসাসের কয়েকজন সদস্যকেও আসরে যোগদান করতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে সাংবাদিকদের দেখে ভুক্তভুগি কেমুসাসের সদস্য মো. খলিলুর রহমান বলেন,প্রত্যেক বৃহস্পতিবার আমাদের সাহিত্য আসর বসে। আমাদের সদস্যরা এতে অংশ গ্রহণ করে। অথচ আজকে এসে দেখি গেইটে পুলিশ দাড়ানো। আমাদেরকে ভেতরে প্রবেশ করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে।
রাগান্বিত ভাবে তিনি বলেন, কেমুসাসে ঢুকতে আমাদেরকে পুলিশ বাধা দিবে কেন? শুনলাম চলমান তাঁতবস্ত্র ও হস্তশিল্প মেলা অবৈধ বলে উচ্ছেদ অভিযান চলছে। এটা তাদের বিষয়।
কিন্তু সাহিত্য আসরের কথা বলার পরও আমাদের বাধা দেওয়াটা অযুক্তিক ও অপমানজনক বলে মনে হয়েছে।

সাহিত্য আসরে ঠুকতে না পারা কেমুসাসের গেইটে অপেক্ষামান আরেক সদস্য সিরাজুল ইসলাম বলেন, হয়তো অভিযান পরিচালনাকারী ম্যাজিস্ট্রেট ভেতরে থাকার কারণে তিনি আমাদের অপেক্ষার বিষয়টি জানেন না। তবে সাহিত্য আসরে আসা কেমুসাসের সদস্যদের এভাবে বাধা দেওয়াটা অনুচিত বলে মনে করছি। কেননা, সাহিত্য আসরটি আমাদের রেগুলার একটি বিষয়। মেলা বা অভিযান এর সম্পূর্ণ বাইরের বিষয়। ভ্রাম্যমান অভিযানের অজুহাতে আমাদের সাহিত্য আসরে ঢুকতে না দিয়ে এভাবে গেইটে দাড় করিয়ে রাখাটা আমাদের জন্য আসলেই লজ্জাজনক বলে মনে হয়েছে।

অপরদিকে তাঁতবস্ত্র ও হস্তশিল্প মেলায় আসা অনেক ক্রেতাদের হঠাৎ করে মেলা প্রাঙ্গনে অভিযান দেখে বিব্রতবোধের মধ্যে পড়তে দেখা গেছে। অনেক ক্রেতাকে মেলায় এসে ফিরে যেতেও দেখে গেছে। ৫/৬ দিন আগে মেলা চলাকালীন সময়ে মেলা থেকে ক্রয়কৃত জামা পরিবর্তন করতে এসেছিলেন নগরীর কাজীটুলার মো. আলী। কেমুসাসের গেইটে পুলিশ দেখে যিনি পড়ে যান বিভান্তির মধ্যে। তার সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ৫/৬ দিন মেয়ের জন্য জামাটি কিনেছিলাম এই মেলা থেকে। অথচ আজ এসে দেখছি মেলা প্রাঙ্গনে পুলিশ। উচ্ছেদ অভিযান চলছে। পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে জামাটা পরিবর্তন না করেই ফিরে যেতে হবে।
এদিকে বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা থেকে চলমান ভ্রাম্যমান আদালতের এ অভিযানের খবর পেয়ে কেমুসাস প্রাঙ্গনে তথ্য সংগ্রহ করতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়া সংবাদকর্মীদের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাধা দেন বলে অভিযোগ করেন বাধার সম্মুখিন হওয়া সংবাদকর্মীরা। সংবাদকর্মীদের অভিযান স্থল থেকে বের করা দেওয়া হয়েছে এবং প্রত্যেকের নাম,পত্রিকার নাম,আইডি কার্ড,আইডি কার্ডের নাম্বারসহ স্বাক্ষর দিয়ে তথ্য সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ঐসব সংবাদকর্মীরা। সেই সাথে এক পর্যায়ে অভিযান স্থলে থেকে সংাদকর্মীদের বের করে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ সংবাদকর্মীদের।
অত:পর সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটের দিকে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হাসান প্রিন্স কেমুসাসের গেইটের ভেতর দেখে বাইরে থাকা সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন। এর আগে গেইটের বাইরে সাহিত্য আসরে যোগদান করার জন্য অপেক্ষমান কেমুসাসের সদস্যদের গেইট খুলে ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়।
তথ্য সংগ্রহ করতে আসা অপেক্ষমান সংবাদকর্মীরা কেমুসাসের গেইটের বাইরে থেকেই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হাসান প্রিন্স এর কাছে এ অভিযানের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জেলা প্রশাসনের অনুমতি না থাকার কারণে ভ্রাম্যমান আদালতে এই উচ্ছেদ অভিযান করা হচ্ছে। ব্যবসায়ীদের মালামাল বুঝিয়ে দেওয়ার কারণেই শৃঙ্খলার স্বার্থে কাউকে ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছেনা।
সাংবাদিকদের বের করে দেওয়া এবং ঢুকতে না দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন,মূলত শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার স্বার্থেই এটা করা।
এ অভিযানের তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে সাংবাদিকদের বাধা দানের বিষয় আইন বহি:র্ভূত কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে এটা ভ্রাম্যমান আদালতের আইনের মধ্যেই পড়ে বলে উপস্থিত সংবাদকর্মীদের অবগত করেন তিনি।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: