সর্বশেষ আপডেট : ২০ মিনিট ৫ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘আইন আমদানি’র অভিযোগ মাহাথিরের বিরুদ্ধে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::
মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের বিরুদ্ধে ‘আইন আমদানি’ করার অভিযোগ করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিনিয়োগ তহবিল ওয়ান মালয়েশিয়া ডেভেলপমেন্ট বেরহাদের (ওয়ানএমডিবি) অর্থ কেলেঙ্কারির সঙ্গে সম্পৃক্ত প্রমোদতরী ইকুয়ানিমিটি পুনরুদ্ধারে তিনি ওই আইন আমদানি করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন পলাতক ব্যবসায়ী লো তায়েক।

ঝো লো নামে পরিচিত এ ব্যবসায়ী ‘মধ্যস্থতাকারী’দের মাধ্যমে ইকুয়ানিমিটি কেনার দাবি করলেও নাজিব রাজাককে হটিয়ে ক্ষমতায় আসা মাহাথিরের সরকার বলছে, এর পেছনে রাষ্ট্রীয় তহবিলের অর্থ রয়েছে।

আইনজীবীদের বরাতে ঝো লো’র মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানান, মালয়েশিয়া যেভাবে প্রমোদতরীটি ‘জব্দ’ করেছে তা অবৈধ। মাহাথির ভিনদেশের ‘আইনি প্রক্রিয়া ছিনতাই’ করেছেন।

একদিন আগে ঝো লো’কে কর্তৃপক্ষের কাছে এসে প্রমোদতরীর মালিকানার প্রমাণ দেখানোর ‘চ্যালেঞ্জ’ ছুড়ে দেন মাহাথির। বলা হয়, প্রমোদতরীটি চুরি হওয়া ওয়ানএমডিবি প্রকল্পের অর্থের বিনিময়ে কেনা।

মাহাথিরের বিরুদ্ধে ভুল বিবৃতির অভিযোগ এনে লো’র মুখপাত্র বলেন, মালয়েশিয়ার ভুল বিবৃতি যুক্তরাষ্ট্রকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে, যার সঙ্গে জাহাজটি অবৈধভাবে দখলে রাখার কোনো সম্পর্ক নেই।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী (মাহাথির) আরও একবার প্রমাণ করলেন তার শাসনব্যবস্থায় যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ার কোনো স্থান নেই। এটা স্পষ্ট যে সুষ্ঠু ও ন্যায়সঙ্গত আইনি প্রক্রিয়ায় তার প্রশাসনের কোনোই আগ্রহ নেই।

২৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের প্রমোদতরী ইকুয়ানিমিটি মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষ বাজেয়াপ্ত করার আগে এর মালিকানার দাবিদার ছিল যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিক (ডিওজে) ও ইন্দোনেশিয়া।

ডিওজে’র দাবি, ওয়ানএমডিবির অর্থ কেলেঙ্কারির মাধ্যমে প্রমোদতরীটি কেনা হয়েছিল। আর মধ্যস্থতাকারীদের মাধ্যমে কেনা এই জাহাজের মালিকানা দাবি করে আসছিলেন লো।

গত সপ্তাহে ইন্দোনেশিয়া ঘোষণা দেয়, প্রমোদতরীটি মালয়েশিয়ার কাছে ফেরত পাঠানো হবে। আর মঙ্গলবার প্রমোদতরীটি মালয়েশিয়ার পোর্ট ক্ল্যাং বন্দরে নোঙর করে, এখনও সেখানেই অবস্থান করছে।

শনিবার ইকুয়ানিমিটি পরিদর্শনে গিয়ে সংবাদমাধ্যমকে মাহাথির জানান, প্রমোদতরীটির রক্ষণাবেক্ষক অনেক ব্যয়বহুল হওয়ায় তা বিক্রির পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে লো’র মুখপাত্রের দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, মাহাথির এভাবে অনৈতিকভাবে প্রমোদতরীটি দখল করায় তা কখনোই ন্যায্য মূল্যে বিক্রি করা সম্ভব হবে না। কারণ যে এই জাহাজ কিনবে নৈতিক দায়টি তার ওপরই বর্তাবে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: