সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শ্রীমঙ্গলে সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা তুলে লাইলি উধাও

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি:: শ্রীমঙ্গলে ১৫ হত দরিদ্র নারীর ক্ষুদ্র ঋণের সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা নিয়ে উধাও হয়ে গেছে এক দলনেত্রী। রোববার (১২ আগষ্ট) দুপুরে শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে হাজির হয়ে এ অভিযোগ করেন ক্ষতিগ্রস্থ নারীরা। সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্থ নারীদের পক্ষে ডলি বেগম বলেন, বিগত কয়েক বছর যাবত কয়েকটি সঞ্চয়ী সমিতি উপজেলার সদর ইউনিয়েনের উত্তর ভাড়াউড়া গ্রামের অর্ধ শিক্ষিত, দরিদ্র মহিলাদের মাঝে ক্ষুদ্র ঋণ সহায়তা দিয়ে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় এলাকার দরিদ্রমহিলারা বিভিন্ন সমিতির কাছ থেকে ক্ষুদ্র ঋণ সহায়তা নিয়ে আসছে। নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক গ্রামে একটি কেন্দ্র ও একজন করে কেন্দ্র প্রধান করা হয়। সেই মোতাবেক একই গ্রামের আব্দুল জলিলের স্ত্রী লাইলী বেগম (৩৫) কে কেন্দ্র প্রধান করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয় বিগত ২ বছর আগে দলনেত্রী লাইলী বেগম মহিলাদের সরলতার সুযোগ নিয়ে সমিতির কর্মকর্তাদের যোগসাজসে ৮টি ক্ষুদ্র ঋন সমিতি থেকে ১৫ জন নারীর নামে ৬লাখ ৩২ হাজার টাকা ঋণ উত্তোলন করে। এ ঋণ উত্তোলন কালে সমিতির কর্মকর্তারা দলপ্রধানের কারণ দেখিয়ে সরাসরি লাইলী বেগমের হাতে ঋনের টাকা তুলে দেয় বলে অভিযোগ করা হয়। ক্ষতিগ্রস্থ নারীরা জানান, টাকা তোলার সময় আমাদের নামে টাকা তুলে ফেরৎ না দিলে এর দায় কে নেবে এমন প্রশ্ন করলে লাইলী বেগম মহিলাদের এই ঋণের কিস্তি পরিশোধসহ সকল দায় দায়িত্ব সে নিজে বহন করবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়। এর ২ বছর পর গত কয়েক সপ্তাহ যাবত ব্র্যাক, বুরে‌্যা, পল্লী দরিদ্র, শক্তি ফাউন্ডেশন, সিসিডি, পাতাকুঁড়ি সোসাইটি, আগ্রহ ফাউন্ডেশন ও আশার ক্ষুদ্র ঋণ প্রকল্পের কর্মকর্তারা বাড়ি গিয়ে ঋণ কিস্তি পরিশোধের তাগিদ দেয়। এ ঘটনায় আমরা জানতে পারি বিগত ২ বছর দলনেত্রী লাইলী বেগম নিয়মিত ঋণ কিস্তি পরিশোধ করে আসছিল।

এ বিষয়ে জানার জন্য আমরা সকল নারী সদস্যরা লাইলী বেগমের বাড়ি গিয়ে দেখি সে পালিয়ে গেছে। এনিয়ে আমরা ইউপি চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়ের কাছে নালিশ করলে তার কাছ থেকে কোন সাহায্য পাওয়া যায়নি। পরে ক্ষতিগ্রস্থ নারীদের পক্ষে আর্চনা রানী বৈদ্য বাদী হয়ে শ্রীমঙ্গল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এদিকে বিভিন্ন সমিতির ঋণ আদায়কারীরা এসব প্রতারিত নারীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঋণের কিস্তি পরিশোধে চাপ সৃষ্টি এবং উল্টো মামলার ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। এ অবস্থায় আমরা চরম উদ্বেগ-উৎকন্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। সংবাদ সম্মেলনে নারীরা প্রতারক লাইলী বেগমকে খুঁেজ বের করতে প্রশাসনের প্রতি দাবী জানিয়ে বলেন, অন্যথায় ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে আত্মহত্যা করা ছাড়া কোন উপায় থাকবে না।

সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্থ নারী শৈলী বৈদ্য, আর্চনা বৈদ্য, লক্ষী সূত্র ধর, সুফিয়া বেগম, ছয়ফুল বেগম, ডলি বেগম, আসমা বেগম, ছত্তারানী, আমিনা বেগম, রেনু বেগম, বানেছা বেগম, বেবী বেগম, সঞ্জু বৈদ্য,রহিমা বেগম ও সামসুন্নাহার উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি কেএম নজরুল এব্যাপারে আমি কিছুই জানিনা, তবে অভিযোগ করলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়ের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: