সর্বশেষ আপডেট : ৫১ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ১২ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কাদের সাহেব এলেন, চা খেলেন, চলে গেলেন

নিউজ ডেস্ক:: পূর্বঘোষিত সময় নির্ধারণ করা ছিল না। টেলিফোনে কথা। চায়ের দাওয়াত নিলেন। আর সময় গড়ালেন না। মুহূর্তেই সচিবালয় থেকে সোজা চলে গেলেন পল্টনে। বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) অফিসে। মিডিয়াপাড়ায় খবর মিলল প্রায় বৈঠকের পর।

কিন্তু কী আলোচনা হলো ১৫ মিনিটের ওই চা বৈঠকে? সামনের নির্বাচন, জোট নাকি রাজনীতির অন্য প্রসঙ্গ- তাই জানতে চাওয়া হয় কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের কাছে। তিনি অবশ্য ওই বৈঠককে নিছক সৌজন্য সাক্ষাৎ বলে উল্লেখ করেন।

আমি এত আহম্মক নই যে, রাজনীতির এজেন্ডা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে আলোচনা করব

`হঠাৎ কেন এই বৈঠক’ জানতে চাইলে সেলিম বলেন, পূর্বঘোষিত কোনো সময় নির্ধারণ ছিল না। ওবায়দুল কাদের সাহেব হঠাৎ করে ফোন করে বললেন, আপনার অফিসে চা পান করতে আসব। বললেন, সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর সাক্ষাৎ করতে আসা হয়নি। অন্যদের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করছি। এরপর সময় না নিয়ে পার্টি অফিসে চলে আসলেন। কাদের সাহেব এলেন, চা খেলেন, চলে গেলেন।

বৈঠকে রাজনীতির কোনো বিষয়ে আলোচনা হয়েছে কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে বামপন্থী এই নেতা বলেন, রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হওয়ার সুযোগ ছিল না। চা বৈঠকে ১৫ মিনিটের মতো আলাপ। তিনি (কাদের) ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। ছাত্র রাজনীতির স্মৃতিকথা নিয়েই আলোচনা।

‘সামনে নির্বাচন। রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হওয়া প্রাসঙ্গিক ছিল বটে’… এর জবাবে সেলিম বলেন, আলোচনার সুযোগ ছিল না এই কারণে যে, আমাদের রাজনীতিই হচ্ছে এখন আওয়ামী লীগের দুঃশাসন থেকে দেশকে মুক্ত করা। আমি এত আহম্মক নই যে, রাজনীতির এজেন্ডা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে আলোচনা করব। মূলত এটি ছিল সৌজন্য সাক্ষাৎ। এমন সাক্ষাতে রাজনীতির আলাপ শিষ্টাচারবহির্ভূত।

‘পরবর্তীতে সংলাপের বিষয়ে আলাপ হয়েছে কি না’- জবাবে তিনি বলেন, সৌজন্য সাক্ষাতে এমন কোনো বিষয়ে আলাপ হওয়া উচিত না বলে মনে করি।

গত ২৪ জুলাই হঠাৎ সিপিবি পার্টি অফিসে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম এবং ওবায়দুল কাদেরের মধ্যে সংক্ষিপ্ত বৈঠক হয়। ওই বৈঠক নিয়ে নানা গুঞ্জন এখন রাজনৈতিক আলোচনায়।

২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যায়নি সিপিবি। ওই নির্বাচনের আগে গণভবনে সিপিবির সঙ্গে বৈঠক করে তাদের নির্বাচনে অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছিল আওয়ামী লীগ। কিন্তু সেবার নির্বাচনে অংশগ্রহণের ব্যাপারে অপারগতা প্রকাশ করে সিপিবি।

গত ১৩ জুলাই সমমনা আটটি বাম দল নিয়ে ‘বাম গণতান্ত্রিক জোট’ নামে একটি জোট করে কমিউনিস্ট পার্টি। এই জোট নিয়েও এখন নানা আলোচনা রাজিনীতির টেবিলে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: