সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

টাংগুয়ার হাওরে বৈরী আবহাওয়ার কারণে দেখা হল না ভরা পূর্ণিমা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের টাংগুয়ার হাওরে ভরা পূর্ণিমা দেখা হল না হাজার হাজার পর্যটক ও দর্শনার্থীদের। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা পর্যটকদের পাদচারণায় মুখরিত সীমান্ত ঘের্ষা টাংগুয়ার হাওর ও তার আশপাশের এলাকা গুলো গ্রাম গুলোতে ভড়া পূর্নিমা দেখতেই। কিন্তু বাদ সেদেছে বৃষ্টি। সন্ধ্যাপর থেকেই গত কয়েক দিন ধরেই বৃষ্টির কারনে আকাশ থাকে একবারেই মেঘে ডাকা। ফলে ভড়ার পূর্ণিমার স্বাধ নিতে না পারায় সবাই আশাতহ হয়ে ফিরে গেছেন নিজ নিজ বাড়ি ঘরে। তবে বরাবরের মতই হাওরের প্রাকৃতিক সুন্দর্যে মুগ্ধ হয়েছেন বেড়াতে আসা সবাই।

জানাযায়,সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার সীমান্ত ঘের্ষা বিশাল সমাজ্যের টাংগুয়ার হাওরের বুকে মেঘ মুক্ত খোলা হাওরের শীতল হাওয়ায় মুক্ত পরিবেশে জোছনা দেখতেই গত দু-দিন টাংগুয়ার হাওরের বুকে হাজার হাজার পর্যটকদের পদচারনায় মুখরিত ছিল। গত শুক্রবার ও শনিবার (২৭-২৮জুলাই) সকালে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেই দলে দলে আসেন পর্যটক ও দর্শনার্থীরা লাইট্রেস,নোহা,পাজেরো,লেগুনাসহ বিভিন্ন যানবাহন দিয়ে উপজেলা সদরে। এসেই ইঞ্জিন চালিত নৌকা দিয়ে কয়েক হাজার পর্যটক টাংগুয়ায় রাত্রি যাপন করার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। মূল উদ্দেশ্য হাওরে জোছনা দেখা। অনেকেই আবার নিজ নিজ পরিবারের সকল সদস্যকেও সাথে নিয়ে এসেছেন এই মহা আনন্দ ক্ষনের স্বাক্ষী হতে। নির্মল আনন্দের জন্য ভ্রমণপিপাসুরা দলে দলে খাওয়ার ব্যবস্থা করেই দিনের বেলায় টাংগুয়ার হাওর ছাড়াও বারেকটিলা,শিমুল বাগান,যাদুকাট নদী,শহীদ সিরাজ লেকসহ বিভিন্ন পর্যটন এলাকায় গুরে বেড়িয়েছেন। শুক্রবার রাতে অপেক্ষায় ছিলেন ভরাপূর্নিমার দেখার আশায় কিন্তু তা আর হল। সারা রাত নৌকায় অবস্থান করতে হয়ে বাধ্য হয়ে।

শুক্রবার ও শনিবার দু’রাত টাংগুয়ার হাওরের জোছনা দেখতে পর্যটকরা নৌকার মধ্যেই টাংগুয়ার হাওরের জলে ভেষেঁ ভেষেঁ জোছনা উপভোগ করতে চেয়ে ছিলেন বলে জানান দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত পর্যটকগন ও দর্শনার্থীরা। অনেকেই জানান,টাংগুয়ার হাওরে জোছনা দেখব বলে পরিকল্পনা ছিল প্রায় মাস খানেক ধরেই। তবে বৃষ্টি কারনে জোছনা দেখা হল না। তারপরও নৌকার মধ্যেই আমরা রাতের খাওয়া-দাওয়া করেছি বেড়িয়েছি এই এলাকার বিভিন্ন সুন্দর্য মুগ্ধ হবার মত স্থান গুলো এটাও এক অন্য রখম আনন্দ।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান,আবহাওয়ার কারনে ভরাপূর্ণিমা হাওরের জলে বেশেঁ বেশে উপভোগ করা হল না কারন গত কয়েকদিন ধরেই সন্ধ্যারপর থেকেই ছিল বৃষ্টি।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: