সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মায়ের পদাঙ্ক অনুসরণ করে এইডস সম্মেলনে প্রিন্স হ্যারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: আন্তর্জাতিক এইডস সম্মেলনে যোগ দিতে দু’দিনের সফরে নেদারল্যান্ডসের রাজধানী আমস্টারডামে পৌঁছেছেন প্রিন্স হ্যারি। সেখানে একটি অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন। অধিবেশনে তিনি বিভিন্ন দেশ থেকে আসা যুব প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেন। এ প্রতিনিধি দলে ভারত, জিম্বাবুয়ে ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসা প্রতিনিধিরা রয়েছেন। এসব তরুণরা এইডসে আক্রান্ত হবার পরে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন সেসব বিষয় তুলে ধরেন। হ্যারি ওই তরুণদের সঙ্গে বেশ কিছু সময় কাটান। তাদের সঙ্গে সেলফিও তুলেছেন তিনি।

সোমবার থেকে আমস্টারডামে পাঁচ দিনব্যাপী ২২তম আন্তর্জাতিক এইডস সম্মেলন শুরু হয়েছে। ২৭ জুলাই সম্মেলন শেষ হবে। চলতি বছর আন্তর্জাতিক এই সম্মেলনের মূল উপপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘ব্রেকিং ব্যারিয়ার্স, বিল্ডিং ব্রিজেস।’ এইচআইভি এবং এইডস আক্রান্তদের পাশে কার্যকরভাবে দাঁড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করে এবারের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এইডস বিষয়ে গণসচেতনতা বাড়াতে কয়েক বছর ধরে এইডস বিষয়ক ক্যাম্পেইনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ডিউক অব সাসেক্স (৩৩)। হ্যারি মূলত তার মা প্রিন্সেস ডায়নার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে চলেছেন। ব্রিটিশ রাজপরিবারের মধ্য প্রিন্সেস ডায়নাই প্রথম এইডস রোগীদের সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছিলেন।

৮০’র দশকে মানুষের মধ্যে এই বিশ্বাস ছিল যে, এইডস ছোঁয়াচে রোগ। এইডস আক্রান্তদের সংস্পর্শে গেলেই এ রোগ হতে পারে। অথচ সে সময়ই প্রিন্সেস ডায়না এইডস আক্রান্ত রোগী পাশে ছিলেন, তাদের দিকে হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। কখনও প্রকাশ্যে আবার কখনও নিভৃতে তিনি এসব রোগীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। ন্যাশনাল এইডস ট্রাস্টের (এনএটি) একজন পৃষ্ঠপোষক ছিলেন প্রয়াত এই প্রিন্সেস।

Harry

আফ্রিকার দেশ লেসেথো ও বতসোয়ানাভিত্তিক দাতব্য সংস্থা সেন্টেবেইলের সঙ্গে যুক্ত প্রিন্স হ্যারি। ২০০৬ সালে প্রিন্স হ্যারি এই সংস্থা গড়ে তোলেন। সেন্টেবেইল শব্দের মানে হলো ‘আমাকে ভুলো না।’ স্থলবেষ্টিত লেসেথোতে মরণব্যাধী এইচআইভি/এইডস আক্রান্ত হাজার হাজার শিশু ও তরুণদের জন্য কাজ করে এই সংস্থাটি।

হ্যারি সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে আন্তর্জাতিক এইডস সোসাইটির প্রেসিডেন্ট ও এইডস সম্মেলন ২০১৮’র কো-চেয়ার লিন্ডা-গেইল বেকার বলেন, ‘এইডসবিরোধী প্রচারণায় হ্যারির অবদান নতুন প্রজন্মের জন্য সত্যিই অনুকরণীয়। এইডস হওয়া মানেই সব কিছু শেষ হয়ে যাওয়া নয় এটাই আমরা স্মরণ করতে পারি। এইডসবিরোধী প্রচারণায় তার নেতৃত্ব এবং দাতব্য সংস্থা সেন্টেবেইল ও আন্তর্জাতিক এইডস সোসাইটিকে সহযোগিতা করার জন্য আমরা কৃতজ্ঞ।’

সূত্র: ডেইলি মেইল




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: