সর্বশেষ আপডেট : ২৬ মিনিট ৬০ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২২ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আপনাদের প্রিয় প্রেসিডেন্ট ভুল কিছু করেননি-টুইটারে ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: প্লেবয় মডেলের সঙ্গে সম্পর্কের প্রমাণসম্বলিত অডিও নিয়ে টুইটারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মডেল ম্যাকডোগালের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে অস্বস্তিতে পড়েন ট্রাম্প। অভিযোগ ওঠে, ওই মডেলের মুখ বন্ধ করতে তাকে বিপুল অঙ্কের অর্থ পরিশোধ করেছেন ট্রাম্প। এফবিআই দাবি করছে, তারা ট্রাম্প ও তার আইনজীবীর এক কথোপকথনে এর প্রমাণ পেয়েছে। ট্রাম্প এফবিআইএর দাবি অস্বীকার করেননি। তবে তিনি ওই কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার প্রমাণ সংগ্রহের প্রক্রিয়াকে অচিন্তনীয় আখ্যা দিয়েছেন। একইসঙ্গে আইনজীবী কথোপকথনের ভিডিও ধারণ করার বিষয়টিকে সম্ভাব্য অবৈধ কর্মকাণ্ড আখ্যা দিয়েছেন তিনি। তবে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ওই অডিও ধারণে বৈধতা ক্ষুণ্ন হয়নি।

২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের খবরে বলা হয়, প্লেবয় মডেলের সঙ্গে সম্পর্কের ঘটনার স্বত্ব কিনতে ওই মডেলকে দেড় লাখ ডলার পরিশোধ করেছিলেন ট্রাম্পের আইনজীবী মাইকেল কোহেন। বৃহস্পতিবার নিউ ইয়র্ক টাইমস খবর দেয়, চলতি বছরের গোড়ার দিকে এ ঘটনার প্রমাণস্বরূপ একটি অডিও হাতে পায় এফবিআই। খবর প্রকাশের পর হোয়াইট হাউসের এক মুখপাত্র এবিসি নিউজকে বলেন, প্রেসিডেন্ট বলেছেন ম্যাকডোগালের সঙ্গে কোনওদিনই তার সম্পর্ক ছিল না। শনিবারের টুইটার পোস্টে ওই মডেলের সঙ্গে সম্পর্ক থাকা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি ট্রাম্প। তবে অনুসারীদের উদ্দেশে তিনি লিখেছেন, ‘আপনাদের প্রিয় প্রেসিডেন্ট ভুল কিছু করেননি’।

এফবিআই-এর দাবি, ২০১৮ সালের গোড়ার দিকে কোহেনের কার্যালয়ে তল্লাশির সময় ট্রাম্প-কোহেনের এ সংক্রান্ত গোপন টেপ তাদের হাতে আসে। ট্রাম্পের বর্তমান আইনজীবী এমন অডিও’র অস্তিত্ব থাকার কথা স্বীকার করলেও ট্রাম্পকে নির্দোষ দাবি করছেন। শনিবার সকালে টুইটারে ট্রাম্প লেখেন, ‘অভাবনীয় এটাই যে সরকার একজন আইনজীবীর কার্যালয় ভাঙতে পারে (খুব সকালে)- সচারচর এমনটা শোনা যায় না। আরও অচিন্তনীয় যে একজন আইনজীবী তার মক্কেলের সঙ্গে করা আলাপচারিতার রেকর্ড রাখতে পারে- এমনটাও কখনও শোনা যায়নি। কাজটি সম্ভবত অবৈধ।’

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে এ ধরনের অডিও ধারণের বৈধতা রয়েছে। সেখানকার আইন অনুযায়ী, আইনজীবী এবং তার মক্কেল নিজেদের বিশেষ যোগাযোগগত সুবিধার স্বার্থে এ ধরনের অডিও ধারণ এবং সেগুলোর গোপনীয়তা রক্ষার অধিকার ভোগ করতে পারে।

শনিবার ট্রাম্পের বর্তমান আইনজীবী রুডি গিলানি বলেন, নিউ ইয়র্কের ট্রাম্প টাওয়ারে ওই আলোচনা হয়েছিল। তিনি মন্তব্য করেন, সম্ভবত যোগাযোগগত বিশেষ সুবিধার স্বার্থে ট্রাম্প ও কোহেনের মধ্যকার কথোপকথনের অডিও ধারণ করা হয়েছিল। তবে নিজস্ব সূত্রের বরাতে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, চলতি সপ্তাহে মার্কিন আদালত ধারণকৃত ওই কথোপকথনের ব্যাপারে রায় দিয়েছে। রায়ে বলা হয়েছে, ধারণকৃত ওই অডিও বার্তা ‘বিশেষ যোগাযোগগত সুবিধার আওতায়’ পড়েনি।

এপ্রিলে কোহেনের বাড়ি, অফিস আর হোটেল কক্ষ তল্লাশি করে এফবিআই ট্রাম্প-কোহেন অথবা তার অফিস কর্তৃক দাবিকৃত ‘বিশেষ যোগাযোগগত সুবিধা’র আওতাধীন ৪ হাজার ৮৫টি নথি এবং ইলেক্ট্রনিক রেকর্ড জব্দ করে। আদালতের রায়ে এর মধ্যে ১৪৫২টি নথি বিশেষ সুবিধার আওতায় নয় রায় দিয়ে তা সরকারের কাছে দিয়ে দেওয়া হয়। প্লেবয় মডেলকে নিয়ে ট্রাম্প-কোহেনের অডিওটি সেই ১৪৫২ নথির একটি।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: