সর্বশেষ আপডেট : ৩৩ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইলিশ নেই সুগন্ধা ও বিষখালীর বুকে

নিউজ ডেস্ক:: ইলিশ উৎপাদনের জন্য বিখ্যাত ঝালকাঠির সুগন্ধা ও বিষখালী নদী। কিন্তু চলতি বর্ষা মৌসুমের শুরুতে এসব নদীতে কাঙ্ক্ষিত ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না। তাই ইলিশ ধরা না পড়ায় অভাব-অনটনে ঋণ করে চলছে জেলেদের সংসার।

এদিকে জেলেদের সুদ ও দাদন দিয়ে এখন বেকায়দায় পড়েছেন এনজিও এবং ব্যবসায়ীরা। জেলেদের এ দুর্দিনে কিছু করারও নেই এনজিও, দাতা সংস্থা ও সরকারি সংস্থার।

jagonews24

রাজাপুর উপজেলার চল্লিশ কাহনিয়া এলাকার জামাল হোসেন জানান, বর্ষা মৌসুমের শুরুতে নদীতে গেলে ২-৩ দিন পর ইলিশ পাওয়া যায়। তাও খুব কম এবং ছোট আকারের।

জেলে সোহেল হাওলাদার বলেন, ‘আগে বাবার সঙ্গে নদীতে ইলিশ ধরতে যাইতাম। গত বছর বাবা মারা গেছে। নদীতে ইলিশ নেই। তাই এখন আর জাল নিয়ে নদীতে ইলিশ ধরতে যাই না। বর্তমানে বড়শি দিয়ে দেশি বিভিন্ন জাতের মাছ ধরি। তাই দিয়ে সংসার চালাতে হয়।’

জেলে মো.বাদশা মিয়া জানান, জেলেরা মৎস্য ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে দাদন নিয়ে নৌকা ও জাল কিনছেন। এখন ২-৩ দিন পর ২-১টি ইলিশ ধরা পড়লেও তা মৎস্য ব্যবসায়ীদের কাছে দিয়ে আসতে হয়। এরপর আবার নদীতে অভিযান হলে আমাদের পুলিশ অথবা নৌ-বাহিনীর জাহাজ এসে জাল নিয়ে যায়।

জেলেপাড়ার বয়োজেষ্ঠ্য নবদ্বীপ জেলে, নদীতে মাছ ধরেই শৈশব থেকে বার্ধক্যে পৌঁছেছেন। এখন তিনি বিভিন্ন রোগ-শোকে আক্রান্ত। তিনি জানান, এক সময় ঝালকাঠি শহরের চাঁদকাঠি আর গুরুধাম এলাকা জেলেরাই জমিয়ে রেখেছিলেন। তখন নদীতে মাছের অভাব ছিল না। কিন্তু এখন আর আগের মতো মাছ নেই। তাই অভাব লেগেই আছে। তার অভিযোগ, সরকারি সাহায্য সহযোগিতা কিছুই পান না তিনি।

jagonews24

ঝালকাঠি জেলা মৎস কর্মকর্তা বাবুল চন্দ্র ওঝা জানান, জেলায় মোট জেলের সংখ্যা ৫ হাজার ৩০৫ জন। প্রকৃতপক্ষে, লোকসংখ্যা ও জেলের সংখ্যা দুটোই বেড়েছে এবং ঝালকাঠি একটি পকেট জেলা। ভোলা, পটুয়াখালি, বরগুনা থেকে ছেঁকে ছেঁকে ইলিশ ধরা পড়ে। বাকি কিছু অংশ সুগন্ধা ও বিষখালীতে আসে। তবুও ইলিশ সংরক্ষণে সরকার গত কয়েক বছর ধরে যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে আসছে তাতে নদীতে ইলিশ বেড়েছে। ঝালকাঠিও তার ব্যতিক্রম নয়।

এছাড়া সাধ্যমতো এক হাজার ১২ জন জেলেকে সরকারি প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: