সর্বশেষ আপডেট : ৩২ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পাল্টা সংবাদ সম্মেলনে আব্দুর রউফ: ফারহানা-সেফুলরা ভুয়া উত্তরাধিকার সনদ তৈরি করে ভূমি দখলের পাঁয়তারা করছে

আখালিয়ার নোয়াপাড়ায় ফারহানা হোসেন ও সেফুল বেগম জাল-জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে ভুয়া উত্তরাধিকারী সনদপত্র তৈরি করে ভূমি দখলের পাঁয়তারা করছেন। এমন অভিযোগ তুলেছেন নোয়াপাড়া এলাকার বন্ধন-বি-৭ এর বাসিন্দা হাজী তোতা মিয়ার পুত্র মো. আব্দুর রউফ।

শনিবার দুপুরে সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। গত ৯ জুলাই আখালিয়ার হোসেন আহমদের স্ত্রী ফারহানা হোসেন সংবাদ সম্মেলন করে যে অভিযোগ তুলেছেন তা মিথ্যা ও বানোয়াট বলে দাবি করেন রউফ। তিনি নিজেকে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি), সিলেট সিটি করপোরেশনের ঠিকাদার ও সিলেট চেম্বারের সদস্য বলে পরিচয় দেন।

আব্দুর রউফ বলেন, ভুয়া উত্তরাধিকারী সনদ তৈরি করে আখালিয়ার ব্রাহ্মণশাসন মৌজার ২৪৬ নং দাগের ৩ শতক ৫০ পয়েন্ট ভূমি সেফুল বেগমের নামে নামজারি করা হয়েছে। অথচ, এই দাগে তার ১ শতক ৮৭ পয়েন্ট ভূমি ছিল। বিনিময় দলিলমূলে ১ শতক ২০ পয়েন্ট ভূমি নাজীর উদ্দিন রাজ্জাকের স্ত্রী রাশিদা রাজ্জাকের কাছে হস্তান্তর করেছেন। এ অবস্থায় ২৪৬ নং দাগে সেফুল বেগম মাত্র ৬৭ পয়েন্ট ভূমির মালিক হন।
তিনি অভিযোগ করেন, সেফুল বেগম মাত্র ৬৭ পয়েন্ট ভূমির মালিক হয়া সত্ত্বেও ৩ শতক ৫০ পয়েন্ট ভূমি নামজারি করে নিয়েছেন। পরে ফারহানার স্বামী প্রবাসী হোসেন আহমদের কাছে ২ শতক ৫৬ পয়েন্ট ভূমি বিক্রি করেছেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, নামজারি বাতিলের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও প্রমাণাদিসহ সহকারি কমিশনার (ভূমি) বরাবরে আবেদন করেছি। ইউনিয়ন ভূমি অফিস ঘটনার সত্যতা পেয়ে প্রতিবেদন এসিল্যান্ডের কাছে দাখিল করেছে। বর্তমানে বিষয়টি বিচারাধীন রয়েছে।
এই আবেদনের কারণে সেফুল বেগমদের লোকজন পরিবারের সদস্যদের প্রাণে মারার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। তিনি বলেন, এর প্রতিবাদ করায় তারা আমাদেরকে মেরে ফেরার হুমকি দিচ্ছে এবং নারী নির্যাতন মামলা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেওয়ার ভয় দেখাচ্ছে। এ বিষয়ে জালালাবাদ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। গত ১৩ মে এটি নন এফআইআর মামলা হিসেবে রুজু করা হয়েছে। যার নং ৫২/১৮। প্রতরণা ও জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে সম্পত্তি আত্মসাত করার চেষ্টায় লিপ্ত থাকায় মহানগর হাকিম ১ম আদালতে মামলা দায়ের করেন আব্দুর রউফ। মামলা নং সিআর ৯০/২০১৮।

আব্দুর রউফ জানান, সেফুলদের প্রতারণার বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে এলাকায় সালিশ বৈঠকও হয়েছে। সেফুল বেগমের নামে প্রতারণার একাধিক মামলা রয়েছে। একসময় থানা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারও করেছিল।

এ অবস্থায় তার সম্মানহানী ও প্রতারণার বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে ফারহানা-সেফুলরা বিভিন্ন ধরণের অপপ্রচার করছে বলে অভিযোগ আব্দুর রউফের। তিনি ফারহানা-সেফুল গংদের বিরদ্ধে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি অনুরোধ জানান।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আব্দুর রউফ এর ভাই মো.ইউনুছ মিয়া, স্থানীয় বাসিন্দা ও মুরব্বি মো. লাভলু, মো. তাজুল ইসলাম, মো. রেজাউল করিম, মো. দেলওয়ার হোসেন ইমন, সোয়েব আহমদ, মো. মোবারক হোসাইন, সাহেদ আহমদ, সেলিম আহমদ, গোলাম কিবরিয়া, মো. আবুল হোসেন, মো. সাদিক হোসেন, মিজানুর রহমান, মো. দিদার হোসেন প্রমুখ।  – বিজ্ঞপ্তি


এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: