সর্বশেষ আপডেট : ৪০ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ট্রাম্পকে ‘নির্দয়’ বললেন মালালা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উদ্বাস্তু নীতির সমালোচনায় এবার মালাল ইউসুফজাই৷ ট্রাম্পের উদ্বাস্তু নীতিকে ‘নির্দয়’ বললেন নোবলে জয়ী যুবতী মালালা৷ উদ্বাস্তু নীতির নামে কয়েক হাজার শিশুকে বন্দি করে রেখেছেন ট্রাম্প৷ যা মানবিকতার বিরুদ্ধে বলে জানালেন মালালা৷

দক্ষিণ আমেরিকার একচি মেয়েদের স্কুল উদ্বোধনে গিয়ে ট্রাম্পকে বিঁধলেন মালালা৷ উদ্বাস্তু আইনের কোপে এখনও মেক্সিকো সহ আমেরিকার বিভিন্ন প্রান্তে ২৩০০ শিশু বন্দি৷ চাপের মুখে পড়ে পরিবারের সঙ্গে বাচ্চাদের আলাদা করার প্রক্রিয়া আপাতত বন্ধ করেছে ট্রাম্প৷ কিন্তু এখনও বন্দি হাজার হাজার শিশু৷ মালালার স্পষ্ট বক্তব্য, ‘বাচ্চাদের আটকে রাখা অমানবিক৷ নির্মম নীতি জারি করেছেন ট্রাম্প৷ কীভাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট হয়ে এই কাজ তিনি করতে পারেন?’ প্রশ্ন মালালা ইউসুফজাইর৷

ব্রাজিল সহ বেশ কয়েকটি দেশে মালাল ফান্ড কাজ করছে৷ তৈরি হচ্ছে মেয়েদের জন্য স্কুল৷ রিও দে জেনিরো প্রথম মালালার সফর৷ ব্রাজিলে শিক্ষা খাতে মালালা ফান্ড অগ্রণী ভূমিকা নিচ্ছে, প্রায় দেড় মিলিয়ন ছাত্রীকে শিক্ষার আলোয় নিয়ে আসার পরিকল্পনা মালাল ফান্ডের৷ মালালা জানাচ্ছেন, যে কোনও দেশের রাষ্ট্রপ্রধান সঠিক দায়িত্ব পালন করে, সমস্ত সমস্যার সমাধান সম্ভব৷

ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্ষেত্রেও একই নীতি বর্তায়৷ বেআইনি ভাবে মেক্সিকো সীমান্ত পার করার চেষ্টা করা রুখতে বাচ্চাদের আটকে রাখা সমস্যার সমাধান নয় বলে জানান মালালা৷ মা, বাবার থেকে ৩-৪ বছরের শিশুকেও আলাদা করা হচ্ছে৷ মানা হচ্ছে না নূন্যতম সামাজিক নিয়ম৷ তিনি বলেন, ‘ আমি আশা করব উদ্বাস্তু নীতির নামে যে অন্যায় ট্রাম্প প্রশাসন চালাচ্ছে, তা বন্ধ হবে, নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটনে প্রতিবাদের ঝড় উঠছে৷ আমিও সেই প্রতিবাদে তাদের পাশে৷ প্রেসিডেন্ট বিষয়টি নিয়ে ভাবুন৷ ’

২০১৪ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কার পেয়েছিলেন মালালা৷ সবচেয়ে কনিষ্ঠ নোবেলজয়ী হিসেবে খ্যাতি পান৷ চলতি বছরেই দেশ ছাড়ার ৬-৭ বছর পর পাকিস্তান যান মালালা৷ ভোটের আগে পাকিস্তানে গিয়ে ভোটে দাড়ানোর ইচ্ছেও প্রকাশ করেন৷ কথা বলেন পাকিস্তানের সর্বদলীয় নেতাদের সঙ্গে৷ জানান, দেশের প্রগতির জন্য প্রয়োজন উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থার৷

২০১২ সালে সেই শিক্ষার লড়াই করতে গিয়ে তালিবানদের গুলি মাথায় নিয়েছিলেন মালালা৷ বেঁচে ফেরেন কোনওরকমে৷ এখনও সেই শিক্ষার জন্যই তাঁর লড়াই৷ উদ্দেশ্য সাধনে তৈরি মালালা ফান্ড৷ তাঁকে রাষ্ট্রসংঘ যোগ্য স্বীকৃতি দিলেও মার্কিন প্রেসিডেন্টের উদ্বাস্তু নীতিকে তিরস্কার করতে রাখঢাক করলেন না মালালা ইউসুফজাই৷

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: