সর্বশেষ আপডেট : ২৮ মিনিট ৩১ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ১২ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দিন দিন পরিস্থিতি অবনতি হচ্ছে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জে টানা কয়েক দিনের টানা বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে। জেলার ১১টি উপজেলার নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। জেলার সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ৮০সেন্টিমিটারের উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত ২৪ঘন্টায় ১০৫সেঃ মিঃ বৃষ্টিপাত রেকড করা হয়েছে। এছাড়াও জেলার ১১টি উপজেলা সীমান্তের ছোট-বড় ৫০টির অধিক ছড়া দিয়ে প্রবল বেগে পাহাড়ী ঢলের পানি প্রবাহিত হওয়ার এ কারনে পাহাড় ধসের আতংকের মধ্যে রয়েছে তাহিরপুর উপজেলার চারাগাঁও,চানঁপুর,রজনী লাইন,বড়ছড়া,বাগলী সীমান্তসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলা সীমান্তে বসবাসকারী মানুষজন।

এছাড়াও জেলার সুরমা,কুশিয়ারা,ধনু,যাদুকাটা নদীসহ প্রতিটি নদী দিয়ে পাহাড়ী ঢলের পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবল বেগে প্রবাহিত হওয়ায় নদী তীরবর্তী বসত বাড়ি গুলো রক্ষা করার জন্য ঐসব এলাকার লোকজন করছে পানির সাথে যুদ্ধ। পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে মৎস্য চাষের পুকুর,নদীর তীর সংলগ্ন বীজতলা,আবাদি জমি গুলোর ব্যাপক ক্ষতির আশংকা রয়েছে। অব্যাহত ভারি বর্ষন ও পাহাড়ী ঢলের কারনে রাস্তাঘাট ডুবে যাচ্ছে,বসতবাড়ির চারপাশে পানি থৈই থৈই করছে। জেলার বিভিন্ন উপজেলার স্কুল,হাট-বাজার,বসত-বাড়ি,রাস্তা-ঘাট ও নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হওয়ায় আশংকায় জেলা সদর, তাহিরপুর,বিশ্বাম্ভরপুর,জামালগঞ্জ,ধর্মপাশা,মধ্যনগড়,দোয়ারা,ছাতক,দোয়ারা বাজার,দিরাই-শাল্লাসহ ১১টি উপজেলার নিন্মাঞ্চলে বসবাসকারী সাধারন মানুষ উৎবেগ আর উৎকণ্ঠায় রয়েছে।

তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট বাজার ঔষধ কোম্পানীর ফারিয়ার সভাপতি সুহেল আহমদ সাজু জানান-জেলা শহরসহ আশেপাশের উপজেলা গুলোর সাথে বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলের পানি বাড়ায় সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। যে ভাবে বাড়ছে বৃষ্টি,সেই সাথে বাড়ছে পানি তাতে করে সীমাহীন ভোগান্তির শেষ থাকবে না জেলাবাসীর। বালিজুরী ইলাহী বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান বলেন-বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলের পানি বাড়ছে নিন্মাঞ্চলের স্কুলে পানি প্রবেশ করবে। পানি আরো বাড়লে নিন্মঞ্চলের বিদ্যালয় ক্লাস বন্ধ করে দিতে হবে। তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান-পানি বাড়ার কারণে তাহিরপুর উপজেলার হাওর এলাকার দ্বীপ সাদৃশ্য গ্রাম গুলোতে বসবাসকারী মানুষ রয়েছেন উদ্বেগ আর উৎকন্ঠা মধ্যে। যে পরিস্থিতি হউক মোকাবেলা করার সর্বাতœক চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ পরিচালক রঞ্জন কুমার দান জানান,বৃষ্টির কারনে নদীতে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিন্মাঞ্চলের বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে বন্যার আশংকা রয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক সাবিরুল ইসলাম সাবিরুল ইসলাম জানান,এখনো বন্যা পরিস্তিতি সৃষ্টি হয় নি। বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে তা মোকাবেলা করার জন্য জেলা প্রশাসন প্রস্তুত রয়েছে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: