সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৫০ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ঈদের পর কেমন খাবার খাবেন?

লাইফস্টাইল ডেস্ক ::
এক মাস রোজা রাখায় স্বাভাবিক ভাবেই খাওয়ার পরিমান কমে যায়। আমাদের পাকিস্থলিতেও আসে নানা পরিবর্তন। কিন্তু ঈদ আসলেই কয়েক দিন মজাদার তেল, মসলার খাবার যেন খেতেই হয়। কিন্তু এতে হতে পারে মারাত্নক স্বাস্থ্য ক্ষতি। ঈদের কয়েক দিন কি রকম খাবার খেতে হবে তা নিয়ে কিছু পরামর্শ দিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের ডীন ও অধ্যাপক এ বি এম আব্দুল্লাহ।

রোজার পর হঠাৎ ঈদের দিনে ও তার পর আর কিছু দিন অতিভোজনের ফলে পাকস্থলি তথা পেটের উপর চাপ পড়ে বেশি। নিজের ঘরের সাথে সাথে বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনের বাসায় আরো বেশি খেতে হয়। ফলে অধিক চাপে অনেক সময় পাকস্থলির এনজাইম ঠিকমত কাজ করতে পারে না। এ কারণে পেট ব্যথা, গ্যাস্টাইটিস, ডাইরিয়া, বমি, পেটফাঁপা ইত্যাদি দেখা যায়।

সাধারণত ঈদের দিন ও তার পর আর কয়েক দিন প্রচুর তৈলাক্ত খাবার যেমন পোলাউ, বিরিয়ানী, মুরগি, খাসী বা গরুর মাংস, কাবাব, রেজালা আর এর সাথে মিষ্টি জাতীয় খাবার আমরা সবাই খাই।

এসব খাবার পরিপূর্ণভাবে হজম করতে অন্তত ১০-১২ ঘন্টা সময় লাগে। একসাথে বেশি খাওয়ার ফলে পেটে অস্বস্তিকর অনুভূতি, ভরা ভরা ভাব, বারবার ঢেকুর ওঠা এমনকি বুকে ব্যথা পর্যন্ত হতে পারে।

অনেক ক্ষেত্রে দুগ্ধজাত খাবারগুলো যেমন পায়েস, সেমাই, হালুয়া ইত্যাদি খাবারে অস্বস্থি, ঘন ঘন মলত্যাগ ও অসম্পূর্ণ মলত্যাগের অনুভূতি হয়।

আবার বিভিন্ন খাবার অন্ত্র থেকে অতিরিক্ত পানি শোষণ করে। ফলে কোষ্ঠ-কাঠিন্যের সমস্যা বেড়ে যেতে পারে। যাদের হিমোরয়েড বা পাইলসের সমস্যা আছে, তাদের পায়ুপথে রক্তক্ষরণও হতে পারে।

ঈদের পর কয়েকদিন সকালে কিশমিশ, বাদাম, ফলের জুস, যেমন- পেঁপে, আম ইত্যাদি খেতে পারেন। দিনে বিভিন্ন ধরণের খাবার খাওয়ার ফাঁকে ফাঁকে প্রচুর পানি ও অন্যান্য তরল খাবার খাওয়া ভাল।

পোলাউ বা বিরিয়ানীর সঙ্গে অবশ্যই সালাদ জাতীয় খাবার এবং দই খেতে পারেন। মধ্যবয়সী এবং বয়স্ক মানুষের খাবার সম্পর্কে সচেতন থাকা প্রয়োজন। যারা উচ্চ রক্তচাপ, হার্টের রোগ, ডায়াবেটিস রোগে ভোগেন, তারা খাওয়া দাওয়ার ব্যাপারে অবশ্যই সতর্ক হবেন। কিডনির সমস্যা থাকলে প্রোটিন জাতীয় খাদ্য যেমন মাছ, মাংস, ডিম, ইত্যাদি সামান্য খেতে হবে। এমনকি ফলও বেশি খাওয়া যাবে না।

মনে রাখতে হবে :
>> ঈদের কয়েক দিন অতিরিক্ত পোলাউ, বিরিয়ানি বা চর্বি জাতীয় খাবার পরিমিত খাবেন
>> যাদের আইবিএস আছে, তারা দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার পরিহার করবেন।
>> রাতের দিকে দাওয়াতে গেলে অল্প পরিমাণে খাবেন। খাওয়ার অন্তত দু’ঘন্টা পর বিছানায় যাবেন।


নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: