সর্বশেষ আপডেট : ৫১ মিনিট ১৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সরকারের বাজেট দেয়ার ইখতেয়ার নাই: মঈন

নিউজ ডেস্ক:: সরকারের বাজেট দেয়ার কোন ইখতেয়ার নাই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান। বৃহস্পতিবার দুপুরে শেরেবাংলাস্থ চন্দ্রিমা উদ্যানে ঢাকা মহানগর উত্তরের সদ্যঘোষিত কমিটির নেতাকর্মীদের নিয়ে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

আজকে বাজেট দেয়া হচ্ছে ৪ লক্ষ ৬৪ হাজার কোটি টাকা উল্লেখ করে মঈন খান বলেন, এটা গতবছরের চেয়ে ৬০ হাজার কোটি টাকা বেশি। নির্বাচনী বছরে এই বাজেটকে আপনারা কিভাবে দেখছেন- এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি বাজেট সম্বন্ধে এখানে বিস্তারিত বলতে চাই না। বাজেট আগে পেশ করা হোক। বাজেটের উপরে আমরা প্রয়োজনে রিএ্যাকশন দেব। তার চুলচেরা বিশ্লেষণ আমরা করবো। আমি শুধু এইটুকু সংক্ষেপে বলতে চাই। আজকে যে সরকার বাজেট দিচ্ছে। সেই সরকারের বাজেট দেয়ার কোন ইখতেয়ার নাই।

তিনি বলেন, ‘বাজেট দেয়ার নামে তারা জনগণের ট্যাক্সের টাকা লুটপাট করছে। ১০০ কোটি টাকা প্রজেক্টকে তারা ১০০০ হাজার কোটি টাকার মেগা প্রজেক্ট বানিয়ে সেখান থেকে তারা লুটপাট করছে। বাজেটের আকার কিছু বোঝা যায় না। বাজেটের মান অত্যন্ত নিম্ন।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, আপনারা দেখেছেন যে, ঢাকা শহরে যে সব বড় বড় প্রজেক্ট নেয়া হয়েছে। এমনকি পদ্মা সেতু প্রজেক্ট প্রথম শুরু হয়েছিল মাত্র সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা দিয়ে। সেই প্রজেক্ট আজ ৩৫ হাজার কোটি টাকায় পরিণত হয়েছে। আমরা বলেছি, এই প্রজেক্ট শেষ হতে হতে পদ্মা সেতুর বাজেট ৫০ হাজার কোটি টাকা হলেও আমরা অবাক হব না। এতেই প্রমাণিত হয় যে বাজেটের কোয়ালিটি কি। বাজেট ফুলে ফেঁপে বড় হয়েছে। এটা বাজেটের জন্য গৌরবময় কোন বিষয় নয়। সাইজ দিয়ে কোন বাজেটের কোয়ালিটি নির্ধারিত হয় না। আমি স্পষ্ট ভাষায় বলে দিতে চাই, এই বাজেট জনগণকে শোষণ করছে। এই বাজেট একটি ভুয়া বাজেট। এই বাজেট দিয়ে কখনো বাংলাদেশের মানুষের কল্যাণ হবে না।

তিনি বলেন, আপনারা আমার সঙ্গে গ্রামে, গঞ্জে চলুন। প্রতিটি রাস্তা, হাট, বাজার, স্কুল, কলেজ তার অবস্থা আপনারা পর্যবেক্ষণ করুন। আপনারা (সরকার) বলছেন, আমাদের সময় বাজেটের পরিমাণ ছিল মাত্র ৬০ হাজার কোটি টাকা। আজকে ৪ লক্ষ ৬০ হাজার কোটি টাকা হয়েছে। আমি প্রশ্ন করব, ৪ লক্ষ হাজার কোটি টাকা কার পকেটে যাচ্ছে। আজকে এই সরকারের কার্যক্রমের কারণে জনগণ এই প্রশ্ন করতে পারেনা। ইনশাআল্লাহ আগামীতে যদি একটি সুষ্ঠু নির্বাচন হয়। তার মাধ্যমে যদি একটি জবাবদিহিমূলক সরকার আসে। সেই সময় একটি জবাবদিহিমূলক পার্লামেন্ট যদি আমরা সৃষ্টি করতে পারি, সেখানে প্রশ্নগুলো তুলব।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি বজলুল বাসিত আঞ্জু, সহ-সভাপতি আব্দুল মতিন, সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এজিএম সামছুল হকসহ বিভিন্ন থানার নেতাকর্মীরা।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: