সর্বশেষ আপডেট : ৩০ মিনিট ৪১ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মাদকবিরোধী অভিযানের নামে ‘হত্যা’ বন্ধ করুন: জাতিসংঘ

নিউজ ডেস্ক:: বাংলাদেশে অবৈধ মাদকপাচার ও ব্যবহার বন্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে সরকার। গত মে মাসের মাঝামাঝি থেকে শুরু হওয়া মাদক বিরোধী অভিযানে নিহত হয়েছেন শতাধিক এবং আটক হয়েছেন আরও বহু মানুষ। কিন্তু এসব নিহতের ঘটনাকে ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের’ সঙ্গে তুলনা করে তা অবিলম্বে বন্ধ করে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার জিয়াদ রা’দ আল হোসাইন।

বুধবার এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে মাদকের বর্ধিত ব্যবহার রোধে সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি ঘোষণার পরই ‘হত্যাকাণ্ড’ শুরু হয়েছে। এত বিপুল সংখ্যক মানুষের মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। তারা কেউ ‘নিরপরাধ’ ছিলেন না বলে সরকার জনগণকে আশ্বস্ত করছে, কিন্তু মাদকবিরোধী অভিযানে এমন ভুল হতে পারে।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মাদকবিরোধী অভিযানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এখন পর্যন্ত ১৩০ জন ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছেন। মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের এ ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে আরও অন্তত ১৩ হাজার জনকে আটক বা গ্রেফতার করা হয়েছে।’ তার ভাষায়, ‘প্রতিটি ব্যক্তির জীবনের অধিকার রয়েছে। মাদক ব্যবহার বা বিক্রির কারণে মানুষের মানবাধিকার যেন লঙ্ঘিত না হয়। অপরাধ দমনের যেকোনো প্রচেষ্টার পুরোভাগে অবশ্যই নির্দোষ হওয়ার অনুমান ও যথাযথ প্রক্রিয়া থাকতে হবে।’

বিপুল সংখ্যক মানুষকে গ্রেফতারের সময় অনেককে আইন লঙ্ঘন করে ইচ্ছামতো আটক করার সম্ভাবনা থাকে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের’ ঘটনা তদন্ত করতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘মাদক নিয়ন্ত্রণের নামে মানবাধিকার লঙ্ঘনের সুযোগ থাকতে পারে না।’

হাইকমিশনার বলেন, ‘অবৈধ মাদকের চোরাচালান ও বিক্রি যে ব্যক্তি ও পুরো সমাজের ভীষণ ভোগান্তির সৃষ্টি করে সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু যারা মাদক ব্যবহার করেন তাদের বিচারবহির্ভূতভাবে হত্যা, অবাধে গ্রেফতার ও কলঙ্কিত করা কোনো সমাধান হতে পারে না।’

তিনি আরও বলেন গত ১৫ মে মাদক বিরোধী অভিযানের নামে ‘হত্যা’ ও ‘গ্রেফতার শুরু হওয়ার মাত্র একদিন আগেই জাতসংঘের মানবাধিকার পরিষদের নিয়মিত পর্যালোচনায় অংশ নিয়েছিল বাংলাদেশ। সেখানে তারা বিচার বহির্ভুত হত্যা, যথেচ্ছা আটকসহ গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাগুলো তদন্তের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।

অভিযোগ সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবৃতি
জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার জিয়াদ জিয়াদ রা’দ আল হোসাইনের মাদক বিরোধী অভিযানে ‘হত্যার’ অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।জিয়াদের সমালোচনার জবাবে তিনি রয়টার্সকে বলেন, ‘আমরা কাউকে হত্যা করিনি।আমাদের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা আক্রান্ত হবার পরই কেবল নিজেদের আত্মরক্ষার জন্য অপরাধীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।’

দেশের তরুণ প্রজন্মকে রক্ষা করার জন্য তার সরকার সমাজ থেকে মাদক নির্মুলের যে চেষ্টা চালাচ্ছে তা অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।তিনি আরও বলেন, ‘দেশের জনগণ আমাদের এই প্রচেষ্টাকে (মাদকবিরোধী অভিযান) সমর্থন দিচ্ছে।’

সূত্র-রয়টার্স




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: