সর্বশেষ আপডেট : ৪৭ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শিক্ষার্থী এবং ডাক্তারদের যুক্তরাজ্যে আসা সহজ করার লক্ষ্যে ইমিগ্রেশন আইন পর্যালোচনা করা হবে- হোম সেক্রেটারী

ডেইলি সিলেট ডেস্ক :: ইউকের ইমিগ্রেশন আইন পর্যালোচনার ঘোষণা দিয়েছেন হোম সেক্রেটারী সাজিদ জাভিদ। বিশেষ করে বিদেশ থেকে শিক্ষার্থী এবং ডাক্তারদের ইউকেতে আসার ক্ষেত্রটি সহজ করার লক্ষ্যে ইমিগ্রেশন আইনের গুরুত্বপূর্ন অংশগুলো পর্যালোচনা বা রিভিউ করা হবে বলে জানান তিনি।

রোববার বিবিসি’র এন্ড্রোমার শো’তে আলাপকালে হোম সেক্রেটারী জানান, তিনি উপলব্দি করেছেন নেট মাইগ্রেশনের সংখ্যা নির্ধারনের ক্ষেত্রে বিদেশী শিক্ষার্থীদের যুক্ত করার ফলেই সমস্যা তৈরী হয়েছিল। তিনি বলেন, বিদেশী শিক্ষার্থীরা এমনিতেই তাদের টার্ম শেষ হওয়ার পর ইউকে ত্যাগ করে। তাই এতে নেট মাইগ্রেশনের ক্ষেত্রে দীর্ঘ স্থায়ী কোনো প্রভাব ফেলেন না। কিন্তু নেট মাইগ্রেশনের সংখ্যা কমানোর জন্যে সরকার যে পলিসি গ্রহণ করেছে তাতে বিদেশী শিক্ষার্থীদের যুক্ত করার ফলেই সমস্যার তৈরী হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।
উল্লেখ্য নেট মাইগ্রেশনের সংখ্যা কমানোর নীতি থেকে বিদেশী শিক্ষার্থীদের বাদ দেওয়ার জন্যে প্রধানমন্ত্রী থেরিসা মেকে বিভিন্ন পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে। এমনকি স্কটিশ কনজারভেটিভের পক্ষ থেকে এই আহ্বান জানানো হয়।

অন্যদিকে স্কীল্ড ওয়ার্কারদের ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রে কেপ সিস্টেমের বিষয়ে তিনি খুব সতর্কতার সঙ্গে ভাবছেন বলে জানান। বর্তমান ইগ্রেশন পলিসি অনুযায়ী বছরে ২০ হাজার ৭শ’র বেশি বিদেশী স্কিলড ওয়ার্কারকে ভিসা দেওয়া যাবে না। এর ফলে হাজার হাজার আইটি বিশেষজ্ঞ, ইঞ্জিনিয়ার এবং এনএইচএস স্টাফ ইউকে আসার জন্যে ভিসা প্রাপ্তী থেকে বঞ্চিত হন।

ফলে ইউকেতে আসার জন্যে বিদেশী শিক্ষার্থী এবং আইটি স্পেশালিস্ট, ইঞ্জিনিয়ার এবং এনএইচএস স্টাফদের ভিসা প্রদানের বিষয়টি বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়ে পর্যালোচনার কথা বলেন হোম সেক্রেটারী সাজিদ জাভিদ। টায়ার টু ভিসা সিস্টেম নিয়েও কথা বলেন তিনি।

গত এপ্রিলে উইন্ডরাশ কেলেঙ্কারীর দায় নিয়ে সাবেক হোম সেক্রেটারী এম্বার রাড পদত্যাগের পর নতুন ব্রিটিশ হোম সেক্রেটানী হিসেবে দায়িত্ব নেন সাজিদ জাভিদ। দায়িত্ব নিয়েই তিনি উইন্ডরাশ জেনারেশনের ইস্যুটিকে অগ্রাধিকার দিয়ে বেশ কিছু ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।ইলিগ্যাল ইমিগ্র্যান্টদের ব্যাংক একাউন্ট খোলার সুযোগের বিষয়টিও পুর্নবিবেচনা করার কথা ভাবছেন বলে জানান তিনি।

এছাড়াও সন্ত্রাস প্রতিরোধে পুলিশ এবং নিরাপত্তাখাকে ব্যয় বাড়ানোর জন্যে তিনি চ্যান্সেলর ফিলিপ হ্যামন্দের সঙ্গে লবিং করে যাচ্ছেন বলেও জানান হোম সেক্রেটারী সাজিদ জাভিদ।


এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: