সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী বাবুল বিশ্বাসের মৃত্যু নিয়ে পুলিশ প্রশাসনের প্রেসব্রিফিং

আল-হেলাল,সুনামগঞ্জ:: সুনামগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ হাবীবুল্লাহ জুয়েল বলেছেন,জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার জয়কলস গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী বাবুল বিশ্বাস পুলিশ নির্যাতনে মারা যায়নি। গ্রেফতারের পর কোর্ট তার নির্যাতনের চিহ্ন পায়নি।  এমনকি সে নিজেও কোর্টের কাছে নির্যাতনের কথা স্বীকার করেনি। পরে তাকে কারাগার কর্তৃপক্ষ সুস্থ অবস্থায় গ্রহন করেছে। মেডিকেল রিপোর্ট সুত্রে জানা গেছে, বাবুল বিশ্বাস হার্ট এট্যাকজনিত কারনে মৃত্যুবরন করেছে। তবে ভিসেরা রিপোর্টের পর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। ভিসেরা রিপোর্টে নির্যাতনের কথা উঠে আসলে সংশ্লিষ্ঠদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, বাবুল বিশ্বাস একজন মাদক ব্যাবসায়ী ছিল। ২০০৫ সালে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ মাদকের মামলায় তাকে গ্রেফতার করে। সে ২০১৭ সালের মাদকের মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী ছিল।

শনিবার বিকেলে হাজীপাড়াস্থ জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে প্রেস ব্রিফ্রিংকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাহিরপুর সার্কেল কানন কুমার দেবনাথ, ডিআইও-১ আনোয়ার হোসেন মৃধা,কোর্ট ইন্সপেক্টর শিবেন্দ্র চন্দ দাস,ওসি ওয়াচ সৈয়দ বশির আহমদ প্রমুখ। উল্লেখ্য গত ২৮ মে সোমবার ভোর ৩টার সময় জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশ স্থানীয় জয়কলস গ্রামের বাড়ী হতে ঘুমন্ত অবস্থায় বাবুল বিশ^াস (৩৫) কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর থানা হাজতে আটকে রেখে পুলিশ তাকে শারীরিক নির্যাতন করে বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী।

মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে মাদ্রক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলা দিয়ে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। ৩০ মে বুধবার সন্ধ্যা ৭.৫২টায় সুনামগঞ্জ কারাগারে তার মৃত্যু হয়। রাত ৮.১০ টায় সুনামগঞ্জ কারা কর্তৃপক্ষ তাকে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। নিহত বাবুলের স্ত্রী ৪ সন্তানের জননী দিপালী বিশ^াস বলেন,আমার স্বামী মাদক ব্যবসায়ী নন। জয়কলস গ্রামের মৃত ওয়াহাব উল্লাহর পুত্র আলী হোসেন,জঙ্গু মিয়ার পুত্র আনোয়ার হোসেন ও মৃত নরেন্দ্র বিশ^াসের পুত্র রবীন্দ্র বিশ^াস পূর্ব বিরোধের জের ধরে তাকে মদ দিয়ে ধরিয়ে দিয়েছে। পুলিশ সুপার বলেন, প্রতিপক্ষরা তাকে মদের বোতল দিয়ে ধরিয়ে দিয়েছে তদন্তে যদি এমন সত্যতা পাওয়া যায়,তাহলে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ফাঁসানোর চেষ্টার অভিযোগে তাদেরকেও আটক করা হবে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: