সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৫৭ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সাড়া ফেলেছে পারমিতা হিমের উপন্যাস ‘নারগিস’

সাংবাদিক, লেখক পারমিতা হিমের প্রথম উপন্যাস ‘নারগিস’ পাঠক মহলে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।  বইটি পড়ে পাঠকরা নানান ভাবে ব্যক্ত করছেন তাদের নিজস্ব অনুভূতি। এমনই একজন পাঠক সাংবাদিক আবদুল আহাদ।  যিনি বইটি পড়ার পর নিজের ফেসবুক ওয়ালে প্রকাশ করেছেন নিজের অভিব্যক্তি। সাংবাদিক আবদুল আহাদের ফেসবুক ওয়াল থেকে সেই মন্তব্যটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো….

‘নারগিস। অনেকদিন পর একটা ভাল উপন্যাস পড়লাম। লেখক পারমিতা হিম শতভাগ সফল। এটি এমন একটা উপন্যাস যার প্রথম পৃষ্ঠা পড়ার পর পরের পৃষ্ঠার প্রতি আগ্রহ বেড়ে যায় দ্বিগুণ। পুরোটা পড়া শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত যেন শান্তিই পাওয়া যায়না। ১০৪ পৃষ্ঠার উপন্যাস দুই রাতেই পড়ে শেষ করলাম।

এই উপন্যাসে নারগিস, রোকসানা চরিত্র যেন আমাদের সমাজেরই বাস্তব দুজন নারী। তাদের শিশুকাল, বয়ঃসন্ধিকাল, তারুণ্য, যৌবন সব সংগ্রামে ভরপুর। একটা মেয়ে কি চায়, কেন চায়, তার কি ভাল্লাগে সেটা বাবা মা’রা বুঝতে চাননা কখনো। এর পরিণতি কি হতে পারে সেটারই বাস্তব চিত্র ফুটে ওঠেছে উপন্যাসে।

নার্সিং কলেজের ছাত্রী নোভার মৃত্যু মেনে নেয়ার মতো নয়। লেখক এভাবে তার মৃত্যু না ঘটালেই পারতেন। একটা নিষ্পাপ মেয়ের এমন মৃত্যু…..আহ!

প্রতিবাদের ভাষা নিয়ে নারগিসের বক্তব্য থেকে অনেক শেখার আছে। সত্যিই তো, তথাকথিত সমাবেশ, মানববন্ধন ইত্যাদি দিয়ে কখনো কোন দাবি আদায় হয়নি। আন্দোলনকারীরাও জানেন, তাদের সমাবেশ নিয়ম রক্ষা মাত্র।

উপন্যাসের শেষে হল যেভাবে সেটা অনেকটা অকল্পনীয়। নারগিসের ডিভোর্স দেয়া বরের সাথেই রোকসানার দেখা টরেন্টোতে। এই বাক্য পড়ার আগে মাথায়ও আসেনি এমন ঘটবে।

ছেলেমেয়েকে বুয়েটে পড়ানো রোকসানার বাবা মায়ের পরিণতি খুবই কষ্টের। বুয়েট পাশ ছেলে বিদেশে আর মেয়ে ঢাকা শহরে বড় চাকরিতে ব্যস্ত। কিন্তু চট্টগ্রামের বাবা মাকে দেখার মতো সময় নেই তাদের। ছেলে মেয়ের চিন্তায় মরেই গেলেন রোকসানার মা।

বড় কথা হল নারগিস উপন্যাসটি আমার পড়া সবচেয়ে সহজ ভাষায় লেখা উপন্যাস। আমরা যে ভাষায় সংবাদ লিখি। উপন্যাসের ডায়লগগুলো এজন্যই বেশি ভাল লেগেছে।

শান্ত মেয়ে রোকসানা স্কুলের কর্মচারীর হাতে ধরা পড়ার পর বুদ্ধিমত্তা দিয়ে ছাড়া পাওয়া অদ্ভুত ভাল লেগেছে। আর না পড়েও নারগিস বই পড়া পরীক্ষায় সেরা হয়ে যায়। এমন কিছু কাহিনী উপন্যাসের আকর্ষণ বাড়িয়ে দিয়েছে।

অন্ধকার রেস্টুরেন্টে পুলিশের হাতে ধরা খাওয়ার পর রোকসানার অসহায়ত্ব খুব কষ্টের ছিল। আমি ভেবেছিলাম পুলিশ ওই মোটোর সাথে বিয়েই দিয়ে দিবে। কিন্তু এখানেও রোকসানা অদ্ভুত রকমের বুদ্ধি দিয়ে ছাড়া পায়।

উপন্যাসের দাম ৫শ’ শুনে প্রথমে অবাকই হয়েছিলাম। কিন্তু বইটি হাতে নিয়ে মনে হল দাম খুব বেশি না। উন্নত কাগজ, বইয়ের মালাট, বাধাই সবকিছু নিখুঁত। আর উপন্যাসটি পড়ে মনে হল ১শ টাকা করে ৫০টি উপন্যাস কিনে পড়ার চেয়ে নারগিসের মানের একটি বই পড়াও ভাল।

উপন্যাস পড়া শেষে খুব জানতে ইচ্ছা করছে সাজ্জাদ ভেবে নারগিসের বরের সাথে রোকসানার চ্যাট নারগিস জানতো কিনা? এজন্যই কি নারগিস সাগরকে ডিভোর্স দেয়?’

লেখক: আবদুল আহাদ, রিপোর্টার, সময় টেলিভিশন।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক: লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: