সর্বশেষ আপডেট : ৩২ মিনিট ৩০ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ভারতে মুসলিমকে রক্ষা করায় হত্যার হুমকিতে পুলিশ কর্মকর্তা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: হিন্দু জনতার গণপিটুনি থেকে এক মুসলিম ব্যক্তিকে রক্ষা করেছিলেন এক ভারতীয় পুলিশ কর্মকর্তা। কিন্তু এজন্য এখন তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য উত্তরাখণ্ডের পুলিশ কর্মকর্তা গগনদীপ সিং যখন এক মুসলিমকে উন্মত্ত হিন্দু জনতার কবল থেকে উদ্ধার করেন, তখন সেই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। এটি তাকে রাতারাতি খ্যাতিও এনে দিয়েছিল।

সেই মুসলিম পুরুষ তার হিন্দু বান্ধবীকে নিয়ে যখন একটি মন্দিরে গেলে তার ওপর হামলা চালানো হয়েছিল। মন্দিরের হিন্দু জনতা তাকে ঘিরে ফেলে এবং মারধোর করার চেষ্টা চালায় এই বলে যে, সে ‘লাভ জিহাদ’ এর চেষ্টা করছে।

ভারতে যখন কোন মুসলিম কোন হিন্দু নারীর সঙ্গে প্রেম করে বা বিয়ে করার চেষ্টা করে, তখন কট্টরপন্থী হিন্দু গোষ্ঠীগুলো তাকে ‘লাভ জিহাদ’ বলে বর্ণনা করছে ইদানিং। হিন্দু গোষ্ঠীগুলো দাবি করছে মুসলিম পুরুষরা ষড়যন্ত্র করে হিন্দু নারীদের বিয়ে করে বা প্রেম করে ধর্মান্তরিত করার চেষ্টা করছে।

সেদিনের ওই ঘটনায় মুসলিম পুরুষটিকে রক্ষায় এগিয়ে এসেছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা গগনদীপ সিং। সোশ্যাল মিডিয়ায় তখন তার সাহসী ভূমিকার জন্য ব্যাপক প্রশংসা করেছিলেন অনেকে। অনেক পত্রিকায় ছাপা হয়েছিল তার সাহসী ভূমিকার কথা এবং সেই ঘটনার ছবি।

গগনদীপ সিং তখন বলেছিলেন, তিনি কেবল তার দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করছিলেন। তিনি আরও বলেছিলেন, যদি সেসময় তিনি ইউনিফর্ম পরা অবস্থাতেও না থাকতেন, তারপরও তিনি সেই কাজটাই করতেন।

কিন্তু গগনদীপ সিং এখন উল্টো সমালোচনার সম্মুখীন হচ্ছেন। তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ কারণে আপাতত তাকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। অনেক হিন্দু রাজনীতিক সেদিন উন্মত্ত জনতা যে আচরণ করেছে, তার সাফাই গাইতে শুরু করেছেন।

বিজেপির সংসদ সদস্য রাকেশ নৈনওয়াল এ নিয়ে বলেছেন, যখন মুসলিম পুরুষরা তাদের হিন্দু বান্ধবীদেরকে আমাদের মন্দিরে নিয়ে আসে, সেটা ঠিক নয়। তারা তো জানে যে এটা মন্দির এবং পবিত্র জায়গা।

আরেক বিজেপি নেতা রাজকুমার ঠাকরাল বলেছেন, এই মুসলিম পুরুষটি আসলে হিন্দু সমাজের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার চেষ্টা করছিল। ‘আমরা তো মসজিদে যাই না, কারণ সেখানে আমাদের যাওয়ার অধিকার নেই। এরা কেন আমাদের হিন্দুদের সংস্কৃতি ধ্বংস করার জন্য আমাদের মন্দিরে যায়?’ বলছেন তিনি।

তবে যে রামনগর জেলায় এই ঘটনা ঘটেছিল সেখানকার মানুষ এ ঘটনায় বিরক্ত। তারা বলছেন, যখন একটা ছেলে আর একটা মেয়ে একসঙ্গে কোথাও যায়, সেটা তাদের ব্যাপার। কীভাবে এসব লোকজন এটাকে ‘লাভ জিহাদ’ বলে তাদের ওপর হামলা চালায়? এ প্রশ্ন রামনগরের বাসিন্দা অজিত সাহনির।

সূত্র: বিবিসি বাংলা




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: