সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ১৯ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পেটের ভেতর ৪১০০ পাথর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: পেশায় হার্ডওয়ার দোকানের মালিক জোগেশ ঈলে (৪৩) ভারতের মহারাষ্ট্রের নাশিক শহরে বসবাস করেন। কয়েক সপ্তাহ ধরেই তলপেটে খুব ব্যথা অনুভব করছিলেন তিনি। এক পর্যায়ে ব্যথা সহ্য করতে না পেরে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। চিকিৎসক তাকে পরীক্ষা করে নিশ্চিত হন তার পেটে পাথর হয়েছে। আর এ কারণেই তার পেটে ব্যথা ছিল।

অবশেষে অপারেশন করানোর সিদ্ধান্ত নেন জোগেশ। অপারেশন থিয়েটারে চিকিৎসকরা তো যেন থ’ হয়ে গেলেন। একটা নয়, দুইটা নয়-একে একে বেরিয়ে এলো ৪১০০ পাথর।

জোগেশের অপারেশন করানো হয় ভারতের কেরালা রাজ্যের কৃষ্ণ হাসপাতালে। ডাঃ আমির কেলি ওই হাসপাতালের পরিচালক। আমির কেলি জানান, প্রতিটি পাথরের সাইজ ৩ থেকে ৪ ডায়ামিটার। চার ঘন্টা ধরে এ অপারেশন করা হয়েছে। হাসপাতালের দু’জন স্টাফকে দিয়ে পাথরগুলো গোনা হয়। দুই ঘন্টা ধরে গণনা শেষে ৪১০০ পাথর বের করা হয়েছে বলে তারা নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, অপারেশনের পর রোগী এখন বেশ ভালো আছেন। সামনের সপ্তাহে তাকে হাসপাতাল থেকে মুক্তি দেয়া হবে। স্থূলতা, ডায়াবেটিস, অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাস এবং কোলস্টেরল পেটে পাথর তৈরি হওয়ার মূল কারণ বলে জানিয়েছেন আমির কেলি। বিশেষ করে নারীদের জন্য এখন এটি খুবই সাধারণ একটা বিষয়।

তিনি বলেন, এ রকম ঘটনা এর আগেও ঘটেছে। এর আগে পশ্চিমবঙ্গে ডাঃ এমএল সাহা এক রোগীর পেট থেকে ১১ হাজার ৯৫০টি পাথর বের করেছিলেন।

আমির কেলি আরও জানান, কোলেস্টেররের কারণেই পেটে পাথর হয়। অসহ্য ব্যথার পরই কেবল রোগিরা চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। এ অসহ্য যন্ত্রণা থেকে অপারেশনই একমাত্র বিকল্প। এ রোগ মারাত্মক আকার ধারণ করলে পিত্তকোষে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। প্রতি এক হাজারে একজন রোগীর পিত্তকোষে ক্যান্সার আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা রয়েছে।

সূত্র: দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: