সর্বশেষ আপডেট : ৩৬ মিনিট ৪০ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

প্রেমিকাকে যৌনপল্লীতে বেচে দিল প্রেমিক!

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: যার সঙ্গে ঘর বাঁধার স্বপ্ন দেখেছিল মেয়েটি, সেই মনের মানুষটিই তাকে বিক্রি করে দিল যৌনপল্লীতে। তবে দুই বছর পর মেয়েটি তার বাড়িতে ফিরতে সক্ষম হয়েছে।

আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর দিনাজপুরের বাসিন্দা এক মেয়ে প্রেমে পড়েছিল মালদহের কালিয়াচকের একটি ছেলের। বিয়ে করবে বলে বাড়ি থেকে পালিয়েছিল। কিন্তু প্রেমিক তাকে বিক্রি করে দেয় বিহারের সীতামঢ়ীর এক যৌনপল্লীতে।

দুই বছর ধরে সেখানেই ছিল মেয়েটি। যৌনপল্লীতেই আলাপ হয় রেলকর্মী এক যুবকের সঙ্গে। তিনি সীতামঢ়ীরই বাসিন্দা। মেয়েটির ভাষ্য, ওই এলাকা থেকে বেরোনোর সব রাস্তাই বন্ধ ছিল। নিজে পালাতে পারবে না বুঝতে পেরে, তার কাছে যারা আসতেন, তাদের সাহায্য চাইত। কিন্তু তার কথায় গুরুত্ব দিত না কেউ-ই। ব্যতিক্রম শুধু ওই যুবক।

যুবকের কথায়, যখনই ওর কাছে যেতাম, কান্নাকাটি করত। খুব খারাপ লাগত আমার। খালি মনে হতো, ওকে যদি সাহায্য করা যায়। যদি কোনোভাবে ওকে বাড়িতে ফিরিয়ে দেয়া যায়।

পরে মেয়েটির কাছ থেকে বাড়ির ঠিকানা জেনে সেই যুবক চলে যান উত্তর দিনাজপুরে, মেয়েটির বাড়িতে। মেয়েটির পরিবারের লোকজনের সঙ্গে দেখা করেন।

গত শনিবার বাড়ি ফিরেছে মেয়েটি। এখন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি।

তার মা বললেন, মেয়ে অনেক যন্ত্রণা সহ্য করেছে। কটা দিন যাক। ওকে নিজের পায়ে দাঁড় করাবই।

ওই যুবক জানান, এ রকম আরো অনেক মেয়ে এসব যৌনপল্লীতে রয়েছে। পাচার রুখতে এবং পাচার হওয়া সেসব মেয়েকে ফেরাতে পুলিশের আরো তৎপর হওয়া উচিত।

স্থানীয় থানার ওসি দিলীপকুমার রায় জানান, ঘটনার ঠিক পরেই দুজনকে গ্রেপ্তার করা হলেও মেয়েটির খোঁজ মেলেনি। পুলিশ এখন তার জবানবন্দি নিয়েছে। তবে দোষীদের ধরা হবে বলে জানান ওসি।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: