সর্বশেষ আপডেট : ৯ মিনিট ১৪ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বাকিংহাম প্যালেসের বন্ধ দরজাগুলোর ভেতরের বিভিন্ন তথ্য

নিউজ ডেস্ক: বিশ্বের প্রতিটি রাজপ্রাসাদ ঘিরেই মানুষের কৌতূহলের শেষ নেই। তবে পৃথিবীর সব রাজপ্রাসাদই বাকিংহাম প্যালেসের মতো খ্যাতি বা জৌলুসের দিক দিয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারে না। আপনারা অনেকেই অনেকেই হয়তো টিভি পর্দায় চোখ বড় বড় করে বাকিংহাম প্যালেসের ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথ থেকে শুরু করে ছোট্ট প্রিন্স জর্জের হাত নাড়া দেখেছেন। আবার কেউ হয়তো সেখানে ঘুরতে গিয়ে ক্ষণিকের জন্য বাহির থেকে দেখেছেন। কিন্তু কখনো কি জানতে ইচ্ছা করেনি প্রাসাদের বন্ধ দরজাগুলো পিছনে কি রয়েছে? হয়তো হয়েছে কিন্তু সবাই তো আর রাজ অতিথি হিসেবে প্রাসাদে গিয়ে দেখা সম্ভব না। তাই চলুন দুধের স্বাদ ঘোলে মিটিয়ে আসি। জেনে নিন বাকিংহাম প্যালেসের ১০টি আকর্ষণীয় তথ্য।

বাকিংহাম প্যালেসে মোট ২৪০টি শয়নকক্ষ রয়েছে:
রাজপ্রাসাদ বলে কথা, শতাধিক শয়নকক্ষ না হলে কি আর চলে! বাকিংহাম প্যালেসে মোট ২৪০টি বেডরুম বা শয়নকক্ষ রয়েছে।২৪০টি শয়নকক্ষের মধ্যে মাত্রটি ৫২টি রাজপরিবারের সদস্যরা এবং বিভিন্ন সময়ে আগত আত্মীয়স্বজন অথবা অতিথিরা থাকার জন্য ব্যবহার করেন। বাকি ১৮৮টি বেডরুম রাজপ্রাসাদের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারী অর্থাৎ যারা প্রাসাদের জৌলুস ধরে রেখেছেন এবং প্রাসাদটি সচল রেখেছেন, তারা ব্যবহার করেন।

বাকিংহাম প্যালেসে সর্বমোট ৭৭৫টি কক্ষ রয়েছে
বিশাল ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের মতো বিশাল বাকিংহাম প্যালেসে সর্বমোট ৭৭৫টি কক্ষ রয়েছে। কক্ষগুলোর মধ্যে ২৪০টি শয়নকক্ষ, ৯২টি অফিস রুম, ১৯টি রাজ্যের জন্য ভিন্ন ভিন্ন রুম রয়েছে এবং ৭৮টি বাথরুম রয়েছে। সেই সাথে আরও অন্যান্য রুম তো রয়েছেই।

রাজপ্রাসাদের ভিতরের সকল সুযোগ সুবিধা ৫ তারকা হোটেলের সমকক্ষ
বাকিংহাম প্যালেস পুরো একটি ৫ তারকা হোটেল। এই প্রাসাদের ভিতর রয়েছে একটি সুইমিং পুল, মুভি থিয়েটার, এমনকি একটি পোস্ট অফিসও রয়েছে। প্রাসাদের অভ্যন্তরে সার্বক্ষণিক ডাক্তারের ব্যবস্থা রয়েছে এবং ডাক্তারের কক্ষে যেকোনো জরুরী মুহূর্তে অপারেশন করার সুযোগ সু্বিধাও রয়েছে। সত্যি বলতে, রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথকে কোনো প্রয়োজনে বাইরে না গেলেও চলবে।

রানীর নিজস্ব ১টি এটিএম বুথ রয়েছে
বাকিংহাম প্যালেসে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের নিজস্ব ১টি এটিএম বুথ রয়েছে। জানা মতে, এই এটিএম বুথটি প্রাসাদের বেজমেন্ট রয়েছে। একমাত্র যখন রাজপরিবারের কোনো সদস্যের নগদ অর্থের প্রয়োজন হয়, তখনই এই এটিএম বুথ থেকে পাউন্ডের নোট বের করা হয়।
তবে আশা করা যায়, প্রিন্স উইলিয়াম এবং কেট মিডলটনকে এখন পর্যন্ত এটিএম বুথটি ব্যবহার করতে হয়নি।


প্রাসাদের নিচে চওড়া টানেল রয়েছে
বাকিংহাম প্যালেস একটি আন্ডারগ্রাউন্ড টানেল রয়েছে। ২০০৬ সালে এক সাক্ষাতকারে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ নিজে টানেলের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি একবার টানেলের মধ্যে মোটা একটি জীবন্ত জিনিস দেখতে পান। তবে সত্যিকার অর্থে এই টানেলটি প্রিন্স চার্লস ও ক্যামিলিয়ার ক্লারেন্স হাউসে এবং ব্রিটিশ পার্লামেন্টে যাওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়।


রানীর কুকুরছানা সবখানে যেতে পারে
রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের কিছু প্রিয় কুকুরছানা রয়েছে। ছোট ছোট পা এবং শিয়ালের মতো দেখতে করগিস কুকুরগুলো রাজপ্রাসাদের সবখানে বিচরণ করতে পারে।
প্রাসাদের কোনো স্থানই এই কুকুরছানাগুলোর নাগালের বাইরে নয়। তারা তাদের মহিমাময়ী রানীর মতো প্রাসাদের সবখানে ঘোরার অধিকার রাখে। তবে গুজব রয়েছে এই কুকুরছানাগুলো অতি সামান্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত।


প্রাসাদের সব ঘড়ি ঠিক রাখার জন্য সার্বক্ষণিক কর্মী রয়েছে
বাকিংহাম প্যালেসে বিভিন্ন স্থানে সর্বমোট ১,০০০টি ঘড়ি রয়েছে। রাজপ্রাসাদের ঘড়ি বলে কথা, এদের থেমে থাকলে তো আর চলবে না! ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদের ঘড়ি যদি নষ্ট হয়ে পড়ে থাকে আর সেটা যদি কেউ জানতে পারে, তাহলে তো কেলেঙ্কারি হয়ে যাবে।
বিভিন্ন পত্রিকায় বিভিন্ন রসালো খবর বের হবে। সে জন্য বাকিংহাম প্যালেসের প্রতিটি ঘড়ি সর্বদা চলছে কিনা তার জন্য ৩ জন আলাদা কর্মী রয়েছে। কোনো ঘড়ি কোনো কারণে নষ্ট হলে এই কর্মীরা সেটি ঠিক করে আবার সচল করেন।

প্রাসাদের সব বাতি দেখাশোনা করার জন্যও কর্মী রয়েছেন
ঘড়ি সচল রাখার মতো প্রাসাদের বাল্বগুলো ঠিক আছে কিনা, সেটা দেখার জন্যও কর্মী রয়েছেন। বাকিংহাম প্যালেসের সকল বাল্ব ঠিক আছে কিনা সেটা দেখার জন্য ১ জন কর্মী রয়েছেন।
পুরো বাকিংহাম প্যালেসে ৪০ হাজারের বেশি বাল্ব রয়েছে। তাই বাল্ব নষ্ট হওয়ার বিষয়টি যিনি সামলান তাকে প্রতিদিন অনেক ব্যস্ত সময় পার করতে হয় পর্যবেক্ষণের জন্য।

রানী এলিজাবেথের রাজকীয় বাগানটি লন্ডনের সর্ববৃহৎ বাগান
রাজকীয় বাগানের চেয়ে বড় বাগান থাকে তাহলে রানীর মাহাত্ম্য কোথায় থাকলো। বাকিংহাম প্যালেসে রানী এলিজাবেথের বাগানটি লন্ডন শহরের মধ্যে সবচেয়ে বড়।
রানী এলিজাবেথের ফুলের বাগানে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল রয়েছে। যার মধ্যে ২৫ প্রজাতির গোলাপ রয়েছে। ২৫ প্রজাতির গোলাপের মধ্যে একটি প্রজাতির নাম রাখা হয়েছে রানীর প্রিয় নাতি প্রিন্স উইলিয়ামের নামে।

প্রাসাদে হেলিপ্যাডও রয়েছে
রানীর রাজকীয় ভ্রমণের জন্য গাড়ীবহর তো রয়েছেই। সেই সাথে হেলিকপ্টারে করে বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার জন্য প্রাসাদের অভ্যন্তরে ১টি হেলিপ্যাডও রয়েছে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: