সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে ১০৫ বছরের বয়স্ক ভাতা পাননি বিষুকা বাক্তি

কমলগঞ্জ সংবাদদাতা:: মৌলবীবাজারের কমলগঞ্জে ১০৫ বছর বয়সেও ভাগ্যে জুটেনি বয়স্ক ভাতা। বয়সের ভারে ন্যুব্জ বিষুকা বাক্তি । লাঠিতে ভর দিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হেটে ভিক্ষা ভিত্তি করে চলে এক দু’বেলার আহার। শরীরে আগের মতো শক্তি নেই। অনাহারে-অর্ধাহারে তার দিন কাটছে। বিষুকা বাক্তির বাড়ি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের মদন মোহনপুর চা বাগান এলাকায় মেয়ের বাড়িতে । ছোট একটি ছাপরা ঘরে মেয়ের সংসারে থাকা বয়োজ্যেষ্ঠ বিষুকা বাক্তির। সামান্য যে সম্পদ ছিল, তা বিক্রি করে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছিলেন। বিষুকা বাক্তি সরকার থেকে কোনো ভাতা পাননি এতদিন যাবৎ।

বিষুকা বাক্তি আক্ষেপ করে বলেন, ইউপি মেম্বারের কাছে বয়স্ক ভাতার জন্য কত আকুতি-মিনতি করেছি বাবু। ‘ভবিষ্যতে এলে পাবে’ এই আশ্বাসটুকু ছাড়া আর কিছুই কপালে নাই জোটেছে আমার । তাঁর প্রশ্ন,‘কত বয়স হলে বয়স্ক ভাতা সরকারের ঘরে উঠে ?’তার মেয়ে আদরী বাক্তি(৬০) বলেন, ‘আমরা অসহায় ও গরিব মানুষ লাগে বাবু। হামরা পাচ ভাই বোন লাগে, আমি সবার ছোটকা আছি । হামার বড়কা দিদি বাসন্তী বাক্তি (৮০) বয়সে আজ ১৬, ১৭ বছর হলো ও মরেছে হামার দিদিও বয়স্ক নাহি পেয়েছে,এইটা দুঃখ নাহি লগছে মনে,কিন্তু হামার মা ভিক্ষা করে খায়ে না খায়ে করে দিন কাটছে বুড়িটার ১০০ বহুত উপরে হয়ে গেল,বুড়িটা কপালেও বয়স্ক ভাতা নাহি জুটছে,ওইটা দুঃখ লাকছে মনে বাবু, আমাদের দেখার যেন কেউ নাই আছে। চেয়ারম্যান বাবু গত বছর বলে গেলেও মেম্বারটা বয়স্ক ভাতার কার্ডে হামার মায়ের নাম নাহি তুলেছে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: