সর্বশেষ আপডেট : ১৩ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মাদকবিরোধী অভিযানে সারা দেশের মানুষ ‘খুশি’, ভালো লাগছে না বিএনপির

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: মাদকবিরোধী অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে একের এর প্রাণহানিতে মানবাধিকারকর্মীরা উদ্বেগ জানালেও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এই অভিযানে সারা দেশের মানুষ ‘খুশি’ হয়েছে। মাদকবিরোধী অভিযানে সরকার জনগণের কাছে প্রশংসিত হওয়ায় বিএনপির ভালো লাগছে না বলে মন্তব্য করে কাদেরনি বলেন, বিএনপি মাদকের বিরুদ্ধে একটি শব্দও উচ্চারণ করেনি।

এই অভিযানকে তরুণ সমাজকে সর্বনাশা ধ্বংসের পথ থেকে ফিরিয়ে আনার একটি ‘যুগান্তকারী পদক্ষেপ’ বলেছেন তিনি।মাদক নির্মূলে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পর সারা দেশে অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী; তাদের অভিযানে গুলিবিদ্ধ হয়ে অনেকে মারাও পড়ছে, যা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো।এই অভিযানে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছে বিএনপি।

এই প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার সন্ধায় রাজধানীর কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটশন মিলনায়তনে ইফতারে মাহফিলে মাদকবিরোধী অভিযান নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে পড়েন ওবায়দুল কাদের।তিনি বলেন, “সরকারের কোনো ভালো কাজ বিএনপির ভালো লাগবে না, এটাই স্বাভাবিক। যারে দেখতে নারি, তার চলন বাঁকা।

“সারা দেশে মাদকবিরোধী যে অভিযান চলছে, তাতে দেশের মানুষ খুশি, মানুষ প্রশংসা করছে আর এটা বিএনপির ভালো লাগছে না। শেখ হাসিনার সরকার আমলে এই অভিযান ‘জনগণের বহু প্রত্যাশিত’ মন্তব্য করে এই সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, “আজকে সুনামির মতো ছড়িয়ে পড়ছে মাদক। তরুণ সমাজের একটা অংশকে ধ্বংস করে দিচ্ছে মাদক।এই অবস্থায় এ ধরনের অভিযান শহর থেকে গ্রাম সর্বত্রই প্রশংসিত হচ্ছে। এটা সবার মুখে মুখে, যে সরকার জনগণের স্বার্থে এই বিষয়টিতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে।”

অন্তত মাদক নির্মূলে রাজনৈতিক মতৈক্য হওয়া উচিত মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, “মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া এই দেশে কোনো রাজনৈতিক দল কথা বলেনি, এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। বিএনপি আজ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে বিষোদগার ছাড়া আর কী করছে? তারা এই পর্যন্ত মাদকের মতো, সন্ত্রাসের মতো, জঙ্গিবাদের মতো ঘটনা নিয়ে কখনও কোনো কথা বলেনি।

এটা একটা সামাজিক সমস্যা। একটা সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা দরকার। এই বিষয়টায় অন্তত সব রাজনৈতিক দলের ঐক্যমত গড়ে তোলা দরকার। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কথিত বন্দুকযুদ্ধ নিয়ে মানবাধিকারকর্মীদের সংশয় থাকলেও কাদের বলেন, মাদক ব্যবসায়ীরা শক্তিশালী চক্র, তাদের মোকাবিলা করতে গেলে ‘মুখোমুখি সংঘাত হতেই পারে’।
বিএনপি জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে তারা একটা কথাও বলেনি। সরকার যখন একটি ভালো পদক্ষেপ নিয়ে অভিযান শুরু করেছে তখন বিএনপির ভালো লাগছে না। সরকারের ভালো কাজ জনগণের কাছে প্রশংসিত হলে বিএনপির ভালো লাগে না, এটাই বাস্তবতা।

ক্রসফায়ার বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, এটাতো ক্রসফায়ার না, মুখোমুখি ববন্দুকযুদ্ধ। মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে অস্ত্র আছে। তারা যদি মোকাবিলা করে পুলিশ ও র‌্যাব কি তাদের ছেড়ে দেবে? মাদক ব্যবসায়ীরাদের সঙ্গে একটি শক্তিশালী সন্ত্রাসী চক্র রয়েছে। কাজেই এ চক্রের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘাত হতেই পারে।

ইফতার অনুষ্ঠানে ছিলেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আ স ম রব, মেজর (অব.) এম এ মান্নান, সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরণ, মোরশেদ আলম চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়াও জেলা সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ড. মো. শামসুল হক, ইফতার উপ-কমিটির আহ্বায়ক কে বি এম সহিদ উল্যাহ ও সদস্য সচিব খন্দকার লুৎফর রহমান ফটিক।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: