সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কোম্পানীগঞ্জে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া শিশুকন্যাকে ধর্ষণ

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশুকন্যাকে মুখ বেঁধে ধর্ষণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত ওই শিশুটি (১০)কে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রক্তক্ষরণ বন্ধ করতে ওই শিশুর শরীরে অস্ত্রোপচার করা হয়। এদিকে বিষয়টিকে সামাজিকভাবে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ১৭ই মে রাতে ওই শিশুটি প্রকৃতির ডাকে তার দাদির ঘরের পাশে বাথরুমে যায়। এ সময় ওই শিশুর চাচাতো ভাই মাদরাসা ছাত্র মো. আব্দুল্লাহ তাকে একা পেয়ে মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। আব্দুল্লাহ পারুয়া দাখিল মাদরাসার ছাত্র। সে নোয়াগাঁও গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে। এদিকে ঘটনার সময় শিশুটির কান্নার শব্দ শুনে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে আব্দুল্লাহ পালিয়ে যায়।

পরিবারের সদস্যরা রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে প্রথমে বসত ঘরে নিয়ে যান। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ধর্ষিতার বাবা ও মাকে না নিয়ে গোপনে ধর্ষকের মা ও ভাই আব্দুর রউফ ওই শিশুকে নিয়ে সিলেটে একটি হাসপাতালে ভর্তি করেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আসক ফাউন্ডেশন সিলেট বিভাগীয় সভাপতি রকিব আল মাহমুদ মানবাধিকারের একটি টিম নিয়ে কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জকে অবগত করে ওই হাসপাতালে যান এবং সংবাদের সত্যতা পেয়ে ওই শিশুকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী হাসপাতালের পুলিশ ইনচার্জ এসআই পলাশকে সঙ্গে করে নিয়ে ওসিসি বিভাগে ভর্তি করেন। অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়াতে শিশুটিকে ওসিসি বিভাগ থেকে তাকে গাইনি ওয়ার্ডে নেয়া হয়। সেখানে ওই শিশুর অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে রক্তক্ষরণ বন্ধ করা হয়। এদিকে রবিবার (২০ মে) গাইনি ওয়ার্ড থেকে ওই শিশুকে ফের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আসক ফাউন্ডেশন সিলেট বিভাগীয় সভাপতি রকিব আল মাহমুদ জানান, শিশুকন্যার শারীরিক অবস্থান খুবই আশঙ্কাজনক। তাকে ধর্ষণের পর ঘটনাটি ধামাচাঁপা দিতে একটি মহল শিশুকন্যাকে সিলেটের একটি ক্লিনিকে ভর্তি করে।এরপর বিষয়টি আমরা জেনে কোতোয়ালি থানা পুলিশের সহযোগিতায় ওই কন্যা শিশুকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করি।

ওসিসির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ধর্ষণের শিকার হওয়ায় ওই শিশুটি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। তাকে নির্মমভাবে যৌন নির্যাতন চালানো হয়েছে। এদিকে ওসিসিতে ওই শিশুর সঙ্গে থাকা পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন আব্দুল্লাহ ওই শিশুর চাচাতো ভাই। এ কারণে পারিবারিকভাবে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটি অমানবিক। অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: