সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হারাতে বসেছে মিয়া মসজিদের ঐতিহ্য

নিউজ ডেস্ক:: সুনিপুণভাবেই তৈরি করা হয়েছিল অতীতের ইতিহাস ঐতিহ্যের নিদর্শন সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া শাহী জামে মসজিদ। কালের বিবর্তনে সেটি ধীরে ধীরে মিয়া মসজিদ নামে পরিচিতি লাভ করে।

অনুমান করা হয়, মোঘল আমলে তৎকালীন মুসলিম জমিদার কাজী সালামতুল্লাহ খান বাহাদুর এটি নির্মাণ করেছিলেন। তৎকালীন বিহারের এক বাসিন্দা মসজিদটির নকশা ও কারুকাজের জন্য প্রধান মিস্ত্রির দায়িত্বে ছিলেন। মসজিদের গায়ে লাগানো একটি প্লেটে উল্লেখ রয়েছে, মসজিদটি ১৮৫৮-৫৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। মসজিদটির প্রতিষ্ঠাতা খান বাহাদুর মৌলভী কাজী সালামতউল্লাহ। যেটি মোঘল মনুমেন্টস অব বাংলাদেশ নামক গ্রন্থে প্রকাশিত তথ্য দ্বারা প্রমাণিত।

এক একর জমির উপর মসজিদটি নির্মিত। মসজিদের উত্তর পার্শ্বে প্রায় দুই একরের এক বিশাল দিঘি রয়েছে। দিঘির পানি কখনও শুকায় না। দিঘিটিই সত্যিকারের অর্থে মসজিদটির সৌন্দর্য্য আজও ধরে রেখেছে। মসজিদটিতে সর্বমোট ৭টি দরজা রয়েছে। ১৫ ফুট উচ্চতাবিশিষ্ট ৬টি বড় গম্বুজ ও ৮ ফুট উচ্চতাবিশিষ্ট ১৪টি মিনার রয়েছে। এছাড়া চার কোণে ২৫ ফুট উচ্চতাবিশিষ্ট ৪টি মিনার রয়েছে।

satkhira

শোনা যায়, মসজিদটির নির্মাণ শেষে প্রধান সেই কারিগরের দুই হাত কেটে নেয়া হয়। যেন তিনি নতুনভাবে অন্য কোনো স্থানে এই নকশা বা আকৃতির মসজিদ নির্মাণ করতে না পারেন। মসজিদটির সৌন্দর্য্য দেখে এ গল্প একেবারে উড়িয়েও দেয়া যায় না। কিন্তু বর্তমানে যথাযথ পরিচ্ছন্নতার অভাবে সৌন্দর্য্য হারিয়েছে প্রায় দুই শতাব্দীর পুরানো প্রাচীন ঐতিহ্যের স্বাক্ষী এ মসজিদটি।

মসজিদের বাউন্ডারি এলাকায় বহু অজানা ব্যক্তিদের কবরের চিহ্ন থাকলেও সেগুলোও অরক্ষিত। মসজিদের বিভিন্ন পার্শ্বের দেওয়ালগুলোতে এখন ফাটল ধরেছে। সংরক্ষণ আর সংস্কার না করা হলে কালের বিবর্তনের হারিয়ে যাবে মসজিদটি।

মসজিদের কেয়ারটেকার নূরুল ইসলাম বলেন, প্রতিদিনই লোকজন আসেন বিভিন্ন জায়গা থেকে। সবার নাম লিপিবদ্ধ করে রাখি। মসজিদটি সংস্কার বা সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে কেউ কোনো উদ্যোগ নেয়নি আজও।


নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: