সর্বশেষ আপডেট : ৫৯ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইন্টারনেটের দিকেই বেশি ঝুঁকেছে শিক্ষার্থীরা,কমেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাওয়ার প্রবণতা

জীবন পাল:: রোববার (৬ মে) দুপুরে ১টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশের পর সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফলাফল প্রত্যাশিদের ভিড় বাড়তে থাকে। প্রথম দিকে শিক্ষার্থীদের চাইতে অভিভাবকদের ভিড়টাই ছিল বেশি। সময় বাড়ার সাথে সাথে প্রায় প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই নিজের ফলাফল জানতে শিক্ষার্থীদের ভিড় কিছুটা বাড়তে দেখা গেলেও তা ছিল সামান্য। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চিত্রটি ছিল প্রায় একই রকম।

তাছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদের কাছ থেকে ঘোষণা পাওয়া ফলাফলের অপেক্ষা করার চাইতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ফলাফল জেনে নিতেই বেশি আগ্রহী হতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের। একই আগ্রহ দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের অভিভাবদের মধ্যেও।

ফলাফল প্রকাশের অনেক আগে থেকেই নগরীর ব্লুু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজে উপস্থিত ফল প্রত্যাশী অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের প্রত্যেককে হাসিমাখা মুখে আনন্দ-উল্লাস করতে দেখা গেছে। ফলাফল প্রকাশের আগেই এরকম আনন্দ-উল্লাসের কারণ জানতে চাইলে কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, স্কুলে ফলাফল প্রকাশ হয়নি ঠিকই, কিন্তু ইন্টারনেটে ফলাফল চলে এসেছে। আমরা ইন্টারনেট থেকে আমাদের ফলাফল জেনে ফেলেছি। তাই আমাদের এই আনন্দ-উল্লাস।

একই রকম অনুভূতি পাওয়া গেল অভিভাবকেদের মধ্যেও। ব্যক্তিগত অভিমত পোষন করতে গিয়ে তাসরিন জাহানের মত কয়েকজন অভিভাবক বলেন, আমাদের সময়ে ঘরে বসে ইন্টারনেটে এই রকম ফলাফল সংগ্রহের কোন সুযোগ ছিলনা। ফলাফল জানতে হলে আমাদের নিজ নিজ বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকাটা জরুরী ছিল। সেই বাধ্যবাধকতা এখন নেই বললেই চলে। আমরা একসাথে উপস্থিত হয়ে ফলাফল সংগ্রহ করে যে আনন্দ পেয়েছি আমাদের সন্তানেরা কালের বিবর্তনে সে আনন্দ থেকে বঞ্ছিত হয়েছে। তবে তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়নের ফলে তারা অনেক এডভান্স হয়েছে বলতে হয়।

এ বিষয়ে ব্লু-বার্ড,অগ্রগামী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজসহ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের ভাষ্যমতে, সময়ের সাথে সাথে অনেক কিছু বদলাবে এটাই স্বাভাবিক। তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়ন হয়েছে। সেই ছোঁয়া লেগেছে শিক্ষার্থীদের গায়ে। বলতে হবে এটা পরিবর্তন ও দিনবদলের হাওয়া। তবে নিজেদের সহপাঠিদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতেই মূলত শিক্ষার্থীরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উপস্থিত হচ্ছে। আনন্দ- উল্লাস করছে। এই আনন্দটা আসলে বাসাবাড়িতে বসে উপভোক করা সম্ভব না।


এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: