সর্বশেষ আপডেট : ১৫ মিনিট ৩২ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তাহিরপুরের সেই বাঁধে পূননির্মাণ, বাঁধগুলোতে পাহাড়া

তাহিরপুর প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় গত বৃহস্পতিবার ভোরে নাউটানা খালের বাধঁ ভেঙ্গে দেয় অজ্ঞাত ব্যক্তিরা। ফলে এই ভাঙ্গা বাঁধ দিয়ে প্রবেল বেগে পানি টাংগুয়ার হওরে প্রবেশ করে। টাংগুয়ার হাওরের অনেক জমি এখন পানির নিচে রয়েছে। দ্রুত এই বাঁধটি দিয়ে পানি প্রবেশ করা বন্ধ করা না হলে ৪হাজার একরের বেশী বোরো জমি পানিতে তলিয়ে যাওয়াসহ,হাওর পাড়ের ৮৮টি গ্রাম এবং হাওরের ঝুঁকির মধ্যে পরা ১০টি হাওর গুলো হল,টাংগুয়ার.হাওরের.এরালিয়াকোনা,গনিয়াকুরি,লামারগুল,টানেরগুল,নান্দিয়া,মাজেরগুল,গলগলিয়া,টুঙ্গামারা,সুনাডুবি,শামসাগর বাঁেধ আঘাত করবে সেই আশংকায় উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠায় ছিল এই হাওরের কষৃকগন। তাই তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল,তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূনেন্দ্র দেব,উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খসরুল আলমসহ স্থানীয় শতাধিক এলাকার লোকজন শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করে বাঁধটি বাঁশ,মাটি বস্তায় ভড়ে বাঁধে দিয়ে মেরামত করে নিয়ন্ত্রন আনে। তাই শ্রমিকরা বাঁেধ পাশেই গাছের ছায়ায় বিশ্রাম নিচ্ছে। এই বাঁধটি টাংগুয়ার হাওরের নজরখালী বাধেঁর আধা কিলোমিটার দূরে। আর প্রায় ১০বছরের পুরোনো। এই বাঁেধ এবার টাংগুয়ার হাওরের সহ ব্যবস্থাপনা কমিটির লোকজন নাম মাত্র কাজ করায় সহজেই বাঁধটি কেটে দিয়েছে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা অভিযোগ রয়েছে এলাকাবাসীর মাঝে। এদিকে এউপজেলার অন্যান্য হাওরের বাঁধ মানব সৃষ্ট দূর্ভোগের শিকার যাতে না হয় সে জন্য হাওরের প্রতিটি বাঁধে পাহাড়া বসানো হয়েছে।

নিরব আহমেদ,হাদিউজ্জামান,রফিক স্থানীয় এলাকাবাসী জানান,এখন ধান কেটে গোলায় তুলার কথা আর এখন হাওরেই পানিতে ডুবতেছিল কষ্টের ফলানো ধান। এবার যে স্বপ্ন দেখছিলাম তা এখন দূস্বপ্নে পরিনত হওয়ার পথে ছিল।

তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল,তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূনেন্দ্র দেব,উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খসরুল আলমসহ স্থানীয় শতাধিক এলাকার লোকজনের চেষ্টায় এবার রক্ষা পেয়েছে। যারা বাঁধ কেটে এমন জগন্য কাজ করেছে তাদের কঠিন শাস্তির দাবী জানাই। তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূনেন্দ্র দেব জানান,ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধটি সবাইকে নিয়ে মেরামত করেছি এখন সম্পূর্ন ঝুকিঁ মুক্ত রয়েছে। মানব সৃষ্ট কারনে যেন অন্যান্য বাঁেধ এমন গটনা না গঠে তার জন্য প্রতিটি বাঁেধ এখন থেকে পাহাড়া বসানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যারা এই বাঁধ কেটে দিয়েছে তাদের গ্রেফতার করে কঠিন শাস্থি দেওয়া হবে।

পানি উন্নয় বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্দ আবু বকর সিদ্দিক ভূঁইয়া জানান,নাউটানা বাধঁটি আমাদের পানি উন্নয়ন বোর্ডের না। আমাদের প্রতিটি বাঁধ ভাল ও সুরক্ষিত আছে। কয়েক বছর পূর্বে টাংগুয়ার হাওরের রক্ষাবেক্ষনে নিয়োজিত আইইইউসিএন নামক সংগঠন বাঁধটি নিজেদের মৎস আহরনের জন্য নির্মান করে। উল্লেখ্য,সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা টাংগুয়ার হাওরের নাউটানা খালের বাধঁ ভেঙ্গে দেওয়ার বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। এ ঘটনায় ৮জনের নাম উল্লেখ্য করে অজ্ঞাত ৯০জনকে আসামী করে তাহিরপুর থানায় মামলাটি দায়ের করেন টাংগুয়ার হাওরের সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির কোষাধক্ষ্য বৃহস্পতিবার (২৬এপ্রিল) রাতে মামলাটি দায়ে করা হয়েছে। মামলা দায়ের পর পুলিশ আনোয়ার হোসেন নামে এক আসামীকে গ্রেফতার করে শুক্রবার বিকালে জেল হাজতে প্রেরন করেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক: লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: