সর্বশেষ আপডেট : ২৪ মিনিট ১৯ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গার্লস স্কুলে সমকামিতা: মন্তব্য করে বিপাকে শিক্ষামন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
শিক্ষার্থীদের মধ্যে সমকামিতার প্রবণতা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। কলকাতার কমলা গার্লস হাইস্কুলে সমকামিতা বিতর্কে এমন মন্তব্য করেছেন পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের।

সম্প্রতি কমলা গার্লস স্কুলে সমকামিতা ইস্যুতে বিতর্কের ঝড় ওঠে। মূলত, প্রধান শিক্ষিকাকে লেখা নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর চিঠিকে ঘিরেই বিতর্ক দানা বাঁধে। ওই ছাত্রীর অভিযোগ, তার কয়েকজন সহপাঠী ক্লাসের মধ্যে ‘আপত্তিকরভাবে’ পাশাপাশি বসে থাকে। ক্লাসের মধ্যেই ‘আপত্তিকর’ কাজকর্ম করে।

এমন অভিযোগে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে স্কুলের পরিস্থিতি। ঘটনা আরও গুরুতর হয়ে ওঠে যখন স্কুলের স্ট্যাম্প দেওয়া কাগজে জোর করে ওই ছাত্রীদের দিয়ে ‘লেসবিয়ান’ বলে লিখিয়ে নেয়ার অভিযোগ ওঠে।

এ ঘটনার পর সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘স্কুলের মধ্যে লেসবিয়ানিজম কোনওভাবেই মেনে নেয়া হবে না। এটা অত্যন্ত ব্যক্তিগত একটি বিষয়, যা স্কুলের বাইরেই রাখাই ভালো। স্কুল কখনই ব্যক্তিগত ধারণা প্রকাশের জায়গা হতে পারে না। এটা অন্যকে প্রভাবিতও করতে পারে।’

কিন্তু কেন স্কুলে সমকামিতার প্রবণতা বাড়ছে? এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘স্কুলে বর্তমানে এই ধরনের প্রবণতা বাড়ছে। মূলত তরুণ-তরুণীদের মধ্যেই এই প্রবণতা বাড়ছে। তারা অনেকক্ষেত্রে একে অপরের মধ্যে দিয়ে যৌন চাহিদা মেটানোর চেষ্টা করছে যা আমাদের সংস্কৃতির পরিপন্থী।’

শিক্ষামন্ত্রীর এই মন্তব্যের পরে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে এলজিবিটি এবং রূপান্তরকামী সম্প্রদায়। সেক্স রিঅ্যাসাইনমেন্ট সার্জিকাল সলিউশনসের প্রধান তিস্তা দাশ বিবিসি বাংলাকে বলেন, ‘আমার তো মনে হয় ওনার নিজেরই আরও শিক্ষিত হওয়া দরকার। হতে পারে উনি ব্যক্তিগত মতামত প্রকাশ করেছেন, যেটা উনি সভ্যতা-সংস্কৃতি বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। সমকাম স্কুলে চলবে না, কিন্তু তাহলে কি বিষমকামীরা যা খুশি করতে পারে?’

এ ঘটনায় কমলা গার্লস স্কুল কর্তৃপক্ষকে কারণ দর্শাতে বলেছে রাজ্যের শিক্ষা বিভাগ। ছাত্রীরা আদৌ স্কুলে অশ্লীল কাজ করেছে কি না, তা আগে ভালো করে স্কুল কর্তৃপক্ষের খতিয়ে দেখা উচিত ছিল। তবে দোষ প্রমাণ হওয়ার আগেই ছাত্রীদের দিয়ে ‘লেসবিয়ান’লিখিয়ে নেওয়া অত্যন্ত ভুল ছিল বলেও উল্লেখ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী।

সূত্র: বিবিসি বাংলা

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: