সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মৃত্যু শুধু দূরেই ঠেলে না, কাছেও টানে

বিনোদন ডেস্ক:: শ্রীদেবীকে বিয়ের পর থেকেই প্রযোজক বনি কাপুরের সঙ্গে দূরত্ব বেড়েছিলো তার প্রথম স্ত্রী মোনা শৌরি কাপুরের ও সেই সংসারের সন্তানদের। বাবা হিসেবে বনি কাপুরকে মান্য করলেও শ্রীদেবীর সংসারে জন্ম নেয়া দুই বোনের প্রতি উদাসীন ছিলেন প্রথম পক্ষের সন্তান অর্জুন ও অনশুলা কাপুর।

শ্রীদেবীর জন্যই অর্জুনের মায়ের সঙ্গে তার বাবা বনি কাপুরের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এমনকি মোনার শেষ যাত্রায়ও দেখা যায়নি শ্রীদেবীকে। হয়তো সেই জন্যই বাবার সঙ্গে সম্পর্ক রাখলেও সৎ মা এবং সৎ বোনেদের সঙ্গে কখনই কোনো সম্পর্ক রাখেননি অর্জুন। নানা অনুষ্ঠানে এই প্রসঙ্গ আসলেও তা এড়িয়ে গেছেন তিনি কৌশলে।

তবে শ্রীদেবীর অকাল মৃত্যু কমিয়ে দিলো সব দূরত্ব। কাছে নিয়ে এলো দুই স্ত্রীর সন্তানদের। যোগ্য ভাইয়ের মতোই মা হারা বোনদের পাশে দাঁড়িয়েছেন অর্জুন। শ্রীদেবীর মৃত্যুর খবর শুনে নিজের আগামী ছবি ‘নামাস্তে ইংল্যান্ড’ ছবির শুটিং ছেড়ে অমৃতসর থেকে মুম্বাই ফিরে আসেন অর্জুন।

এরপর শ্রীদেবীর মরদেহ দেশে আনা থেকে শুরু করে শেষকৃত্য পর্যন্ত সবখানেই দায়িত্বে মনযোগী ছিলেন তিনি। চোখের জলে মাকে বিদায় দিয়েছেন জাহ্নবী-খুশি, জলভরা চোখ নিয়ে পাশে ছিলেন অর্জুনও। ছেলের এই দায়িত্বজ্ঞানে মুগ্ধ বাবা বনি কাপুরও। অনিল কাপুরও ভাতিজার চমৎকার মানসিকতার প্রশংসা করেছেন।

শুধু তাই নয়, অতোটা সরব না হলেও অর্জুনের বোন অনশুলাও মাথায় হাত রেখেছেন তার সৎ দুই বোনের। শ্রীদেবীর বড় মেয়ে জাহ্নবী কাপুর মায়ের মৃত্যুর শোকে একটি খোলা চিঠিও পোস্ট করেন তার সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইলে। সেই পোস্টে নতুন করে জীবনবোধ জাগিয়ে তোলার কথা বলা হয়। তবে এই পোস্টটিতে কোনও এক ফ্যান একটি কুমন্তব্য করেন, শ্রীদেবী কন্যা জাহ্নবী ও খুশি কাপুরকে নিয়ে। আর তার প্রতিবাদ করেন অনশুলা। সেই মন্তব্যটি ডিলিট করে দেন অনশুলা। পাশাপাশি, তিনি ওই ফ্যানকে বলেন, ‘আমার বোনেদের সম্পর্কে কোনো খারাপ মন্তব্য করবেন না দয়া করে। আমার এটা পছন্দ নয়। আমাকে আর আমার ভাই অর্জুনকে পছন্দ করার জন্য ধন্যবাদ।’

বনি কাপুরের দুই স্ত্রীর দুই সংসারের এক হয়ে যাওয়ার এই সময়টা বলিউডকে বেশ আবেগতাড়িত করেছে। বলিউডের অনেক তারকারা অর্জুন ও অনশুলার প্রশংসা করছেন সব কষ্ট ভুলে গিয়ে সৎ বোনদের মা হারানোর শোক মুছে দেয়ার চেষ্টায়। চার ভাইবোনের সম্পর্কটাকে বেশ উপভোগ করছেন কাপুর পরিবারের সদস্যরাও। তাই দেখে মনে হয়, মৃত্যু শুধু দূরত্বই বাড়ায় না, কমিয়েও দেয়। কাছে টেনে আনে বহুদূরের মানুষকে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: